পাঁচ হাজারে পশ্চিম মেদিনীপুর, একাধিক করোনা যোদ্ধা সহ সবং, বেলদা, ডেবরা, পিংলা, গড়বেতায় পরিবার সংক্রমণ, শালবনীতে সংক্রমিত ওসিএল কর্মী

five thousand corona positive cases till now in paschim medinipur

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ৬ সেপ্টেম্বর: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সর্বত্রই এখন করোনা সংক্রমণ ছড়িয়েছে। তবে, বাড়ছে সুস্থতার সংখ্যাও। রবিবার সন্ধ্যায় জেলা স্বাস্থ্য ভবন সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় সর্বমোট সংক্রমিতের সংখ্যা হল ৫০৪৬ জন। রাজ্যের করোনা বুলেটিনের সঙ্গে প্রথম থেকেই তথ্যের ব্যবধান ছিল, কারণ হিসেবে স্বাস্থ্য আধিকারিকেরা বারবার বলেছেন, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় যে সমস্ত মানুষ এখন থাকেন না, কিন্তু স্থায়ী ঠিকানা হিসেবে জেলার নাম উল্লেখ করা আছে, রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের তালিকাতে তাঁদেরকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। রাজ্যের করোনা বুলেটিন অনুযায়ী তাই জেলার সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা হল ৫৬৬৪। জেলার তথ্য অনুযায়ী, ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৩০৯৮ জন (রাজ্যের বুলেটিনে ৪৩৭৭) এবং চিকিৎসাধীন আছেন ১৮৬৬ জন (রাজ্যের বুলেটিনে ১২২৯ জন)। রাজ্যের করোনা বুলেটিন অনুযায়ী জেলায় করোনা সংক্রমিত হয়ে মৃত্যু'র সংখ্যা ৫৮ হলেও, জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের হিসেব অনুযায়ী সংখ্যাটা ৮২ তে পৌঁছেছে! যদিও মৃত্যুর হার ১.৬২ শতাংশ। জেলা স্বাস্থ্য ভবনের আধিকারিকদের বক্তব্য অনুযায়ী, ১-২ শতাংশ মানুষের ক্ষেত্রে কিছু করা সম্ভব হচ্ছেনা! হঠাৎ করেই তাদের শারীরিক অবস্থার ভয়ংকরভাবে অবনতি হচ্ছে। শরীরের রক্ত জমাট বেঁধে যাচ্ছে। ফুসফুসে জল জমে যাচ্ছে নিমেষের মধ্যে! হাই ব্লাড প্রেসার, হাই ব্লাড সুগার, ফুসফুস ও হৃদযন্ত্রের সংক্রমণ এবং কিডনি'র সমস্যা থাকলে এই সমস্যা মারাত্মকভাবে প্রভাব ফেলছে। সেক্ষেত্রে ভেন্টিলেশনে নিয়ে যাওয়ার আগেই, রোগী শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করছেন বলে জানাচ্ছেন স্বাস্থ্য আধিকারিকরা! এই সমস্যা সারা দেশে এবং বিদেশেও ঘটছে বলে তাঁদের অভিমত।

thebengalpost.in
জেলার সর্বত্র করোনা সংক্রমণ :

.

এদিকে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার একাধিক প্রথমসারির করোনা যোদ্ধা'র রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) রাতে। সবং থানার সেকেন্ড অফিসার (মেজো বাবু) অতনু প্রামাণিক সহ বেলদা থানার ৬ জন পুলিশকর্মী সংক্রমিত হয়েছেন। উল্লেখ্য যে, এর আগে সবং থানার ওসি সুব্রত বিশ্বাসও করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। চন্দ্রকোনা রোডের (সাতবাঁকুড়া) ২ জন বনকর্মী, শালবনী'র এক ওসিএল কর্মী ও দুই কেন্দ্রীয় বাহিনী'র জওয়ানের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে সূত্রের খবর। শালবনী গ্রামীণ হাসপাতালে, তাদের র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট করা হয়েছিল বলে সূত্রের খবর। এছাড়াও, গড়বেতার লাপুড়িয়া ও ফতেসিংপুর (ঝলঝলি) এলাকার দুটি পরিবারে মোট ৫ জন সংক্রমিত হয়েছেন। ডেবরা'র লোয়াদা ৯ নং এর সাতরুখী এলাকায় একটি পরিবারে ৩ জন এবং পিংলা'র ৯ নং অঞ্চলের রাতারপুর এলাকার একটি পরিবারের ৩ জন সহ এই এলাকায় (পিন্ডরুই ৮ নং চন্ডীপুর) আরো একজন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। এছাড়াও, দাসপুর ১ ও ২, ঘাটাল ও ক্ষীরপাই পৌরসভার একাধিক ব্যক্তি সহ ঘাটাল মহকুমাতে ফের সংক্রমণের আধিক্য দেখা গেছে। সবমিলিয়ে, জেলায় শনিবার প্রায় ২৬০ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানা গেছে।
***আরো পড়ুন: মেদিনীপুর ও খড়্গপুরে সংক্রমণের ছড়াছড়ি....

.
.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে