সুদূর কলকাতা থেকে রাহুল সিনহা’কে খড়্গপুর আদালতে ‘টেনে আনলেন’ তৃণমূলের মহিলা নেত্রী

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ২ মার্চ: পরাধীন ভারতবর্ষের সময় থেকেই একটি প্রচলিত প্রবাদ হল, “বাঙালকে হাইকোর্ট দেখিয়োনা!” অর্থাৎ, তৎকালীন বঙ্গ প্রদেশে অবস্থিত কলকাতা হাইকোর্ট এর সঙ্গে মামলা-মোকদ্দমায় পটু বাঙাল বা বাঙালিরা একেবারে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে গিয়েছিল। ঠিক সেরকমই বর্তমান রাজ্য-রাজধানী কলকাতার বাসিন্দারাও মামলা-মোকদ্দমা বিষয়ে বেশ ভালোই পারদর্শী। সেই কলকাতার নেতাকে এবার মহকুমা আদালতে টেনে নিয়ে এলেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়্গপুরের মহিলা নেত্রী। প্রসঙ্গত, বছরখানেক আগে বিজেপি’র কেন্দ্রীয় নেতা ও প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়’কে উদ্দেশ্য করে কটূক্তি করেছিলেন বলে অভিযোগ। কুৎসিত ভঙ্গি করে তিনি বলেছিলেন, “কালীঘাটে তৈরি পার্টি কালীঘাটেই ঢুকে যাবে!” তাঁর এই মন্তব্যের বিরুদ্ধে রাজ্যের প্রতিটি থানায় লিখিত অভিযোগ জানানো হয়েছিল, তৃণমূলের মহিলা শাখার পক্ষ থেকে। খড়্গপুর টাউন থানায় লিখিত অভিযোগ করেছিলেন, স্থানীয় তৃণমূল নেত্রী প্রিয়াংকা সি। সেই মামলায় হাজিরা দিতে সোমবার খড়্গপুর মহকুমা আদালতে উপস্থিত হয়েছিলেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা।

thebengalpost.in
খড়্গপুর মহাকুমা আদালতে রাহুল সিনহা :

[ আরও পড়ুন -   দশ হাজার অতিক্রম করল পশ্চিম মেদিনীপুরের করোনা সংক্রমণ, খড়্গপুরের ওসি'কে পাঠানো হল কলকাতায়, সোহম সূত্রে আইশোলেশনে একাধিক ]

এদিন জামিন পাওয়ার পরেও অবশ্য নিজের বক্তব্যের জন্য দুঃখপ্রকাশ না করে অনড় থাকেন রাহুল। উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি বলেন, “আমি আমার বক্তব্য থেকে একটুও পিছুও হটব না! আমি আবার বলছি কালীঘাটের পার্টির কালীঘাটেই সমাপ্তি হবে, আর মাত্র দু’ মাসের মধ্যে।” তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা নিয়ে বলেন, “কি আর চমক হবে, দুটো নায়ক গায়ক তালিকায় যুক্ত হবে। যারা বাংলার মানুষকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, বদলা নয় বদল চাই, তারাই ‘বদলা’ কে প্রাধান্য দিয়ে হিংসা ও খুনের রাজনীতিকে বাংলার বুকে বটবৃক্ষের মতো স্থাপন করেছে! অতএব এই তৃণমূল আর নয়।” খড়্গপুর মহকুমা আদালতে দাঁড়িয়ে তৃণমূলকে এভাবেই কটাক্ষ করলেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা।

[ আরও পড়ুন -   মেদিনীপুরে ৫০, খড়্গপুরে ৬০, ডেবরায় ১৮ জন সহ গত ৪৮ ঘন্টায় ২৯৫ জন সংক্রমিত পশ্চিম মেদিনীপুরে ]