মেদিনীপুরে ৫০, খড়্গপুরে ৬০, ডেবরায় ১৮ জন সহ গত ৪৮ ঘন্টায় ২৯৫ জন সংক্রমিত পশ্চিম মেদিনীপুরে

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ২১ সেপ্টেম্বর: গত ৪৮ ঘন্টায় (১৯ সেপ্টেম্বর ও ২০ সেপ্টেম্বর), পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় নতুন করে প্রায় ২৯৫ জন (আরটি-পিসিআর, অ্যান্টিজেন ও ট্রুনেট টেস্ট সহ) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন বলে জানা গেছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে (রাজ্যের বুলেটিন নয়)। ১৯ শে সেপ্টেম্বর ১৮৬ জন ও ২০ শে সেপ্টেম্বর ১০৯ জন সংক্রমিত হয়েছেন। গতকাল, অর্থাৎ ২০ শে সেপ্টেম্বর রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী, জেলায় এখনো পর্যন্ত চিকিৎসাধীন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২৪১৮ (মোট ৮৪৩৭) এবং করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু সংখ্যা ১২২। গত ৪৮ ঘন্টায় মেদিনীপুর শহর ও শহরতলীতে প্রায় ৫০ জন সংক্রমিত হয়েছেন এবং খড়্গপুরে সংক্রমিত হয়েছেন ৬০ জনেরও বেশি। এছাড়াও, ডেবরায় গত দু’দিনে ১৮ জন সংক্রমিত হয়েছেন। গড়বেতা (১১), চন্দ্রকোনাটাউন (৮), চন্দ্রকোনা রোড (৪), দাঁতন (১০), বেলদা (৫), ঘাটাল (১২), দাসপুর (১১), শালবনী (৩), সবং (১) সহ জেলার সর্বত্র সংক্রমিতের সন্ধান পাওয়া গেছে। আক্রান্তদের অনেকেই উপসর্গহীন হলেও, একাধিক ব্যক্তিই স্বল্প কিংবা ভারি উপসর্গযুক্ত। এই মুহূর্তে, জ্বর ও সর্দি ছাড়া সবথেকে সাধারণ উপসর্গ হল, স্বাদ ও গন্ধ চেনার ক্ষমতা সম্পূর্ণরূপে হারিয়ে ফেলা! উপসর্গযুক্ত দের, জেলার বিভিন্ন করোনা হাসপাতাল ও সেফহোমে পাঠানো হয়েছে বলে জানা যায় জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে। উপসর্গহীন’রা আছেন গৃহ নিভৃতবাস বা হোম আইশোলেশনে।

thebengalpost.in
শালবনী করোনা হাসপাতালে অত্যাধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থা সহ এইচডিইউ ইউনিট :

.

গত চব্বিশ ঘণ্টায়, আরটি-পিসিআর রিপোর্ট অনুযায়ী, মেদিনীপুর শহর ও শহরতলীতে মোট ৫০ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। এর মধ্যে, গত ১৯ শে সেপ্টেম্বর ৩৭ জন এবং গতকাল (২০ সেপ্টেম্বর) রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী ১৩ জন সংক্রমিত হয়েছেন। ১৯ শে সেপ্টেম্বর ও ২০ শে সেপ্টেম্বরের সংক্রমণযুক্ত এলাকাগুলি বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, গোষ্ঠী সংক্রমণের আশঙ্কা প্রবল! পাটনা বাজার, সিপাই বাজার ও হবিবপুর’কে টেক্কা দিয়ে এই মুহূর্তে শহরের সর্বাধিক সংক্রমণ প্রবণ এলাকা হল, শরৎপল্লী। এছাড়াও, মানিকপুর, রাজাবাজার, কোতবাজার প্রভৃতি এলাকাগুলোতেও সংক্রমণ ছড়াচ্ছে ধীরে ধীরে। মির্জাবাজার, মহাতাবপুর ও ধর্মা এলাকাতেও ধারাবাহিকভাবে সংক্রমিত হচ্ছেন মানুষ। গত শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর), মহতাবপুরে একই পরিবারের ২ জন সহ মোট ৩ জন, মির্জাবাজারে একই পরিবারের ৩ জন, রাজাবাজারে একই পরিবারের ৩ জন সহ মোট ৪ জন, হবিবপুরে মোট ৩ জন, শরৎপল্লীতে দুটি পরিবারের (২ জন করে) ৪ জন সহ মোট ৫ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। এছাড়াও, সিপাইবাজার (২ জন), মানিকপুর, ধর্মা, পাটনাবাজার, মিরবাজার, উদয়পল্লী, বরিশাল কলোনি, চাঁদসা বাবার মাজার, কর্ণেলগোলা, বিধাননগর প্রভৃতি এলাকাতেও একজন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। পলাশী, নেপুরা সহ শহরতলীর আরো ১০ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে শনিবার। এদিকে, গতকাল (২০ সেপ্টেম্বর) রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী, শহর ও শহরতলীতে মাত্র ১৩ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এল মধ্যে, শরৎপল্লীতে একই পরিবারের ৩ জন (বাবা- ৫৪, মা- ৪৬ ও সন্তান- ২৪) এবং মানিকপুরেও একই পরিবারের ৩ জন (৫৯ ও ৫৩ বছরের দুই ব্যক্তি, ৪৬ বছরের এক মহিলা) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। কোতবাজারেও এক দম্পতি (৪৬ ও ৪৩) করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। মেদিনীপুর শহরতলীর গুড়গুড়িপাল সহ আরো ৫ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে রবিবার রাতে।

thebengalpost.in
সংক্রমণ কিছুটা কমে গত দু’দিনে ৫০ জন মেদিনীপুরে :

.

এদিকে, গত ১৯ শে সেপ্টেম্বর ৪১ জন এবং গতকাল ২১ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে খড়্গপুর শহর ও গ্রামীণ এলাকায়। এর মধ্যে রেল সূত্রে প্রায় ২০ জন ছাড়াও আইআইটি ক্যাম্পাসের এক যুবক (২৫), সালুয়া ইএফআর ক্যাম্পের এক জওয়ান সহ গোপালী, মালঞ্চ, খরিদা, শ্রীকৃষ্ণপুর, ‌ঝুলি, ভবানীপুর, নিমপুরা প্রভৃতি এলাকায় একাধিক ব্যক্তি করোনা সংক্রমিত হয়েছে। গত ১৯ শে সেপ্টেম্বর ডেবরার হরিহরপুরে (ডুঁয়া ১০/১) একই পরিবারের ৪ জন, ডুঁয়াতে ১ এবং পিংলা (হাঁদল)’তে ১ জন‌ সহ মোট ৬ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। অপরদিকে, গতকাল, ডেবরা’র এক চিকিৎসক (৩৯) সহ মোট ১২ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। বাকলসা’তে দু’জন (৩১ বছরের মহিলা ও ১৭ বছরের কিশোর) ছাড়াও, বাঁশদা (১৫ বছরের এক কিশোরী), মাখন্দা (২ জন), ফতেবাড় (২ জন), মুরাস্থি (২ জন) সুলতানপুর (১ জন) ও নরহরিপুর (১ জন) এলাকা থেকে করোনা সংক্রমিতদের সন্ধান পাওয়া গেছে। ওসিএর এক কর্মী সহ শালবনীতে গত দু’দিনে ৩ জন, সবং এর হরিহাটে এক যুবকের (২৫) রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে শনিবার। এছাড়াও, গত ৪৮ ঘন্টায় গড়বেতা, চন্দ্রকোনা টাউন ও চন্দ্রকোনা রোড সহ ঘাটাল, দাসপুর, বেলদা ও দাঁতনে একাধিক ব্যক্তি করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। গত ৪৮ ঘন্টায় প্রায় ২০০ জনের বেশি মানুষ করোনা মুক্ত হয়েছেন বলেও জানা গেছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে।

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে