শেষমেশ ‘গেরুয়া বসনে’ জিতেন্দ্র! শত্রুতা ভুলে আপন করে নিলেন বাবুলও

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, হুখলি ও আসানসোল, ২ মার্চ: জল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি। দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর অবশেষে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের বৈদ্যবাটির সভা থেকে পদ্মশিবিরে যোগ দিলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সপ্তাহ দুয়েক আগেই তাঁকে জাতীয় মুখপাত্রের দায়িত্ব দিয়েছিল তৃণমূল। কিন্তু সেই দায়িত্ব পেয়ে ঘনিষ্ঠ মহলে তিনি জানিয়েছিলেন, কার্যত ক্ষমতাহীন দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। পাশাপাশি, পুরানো পদগুলি ফিরে না পেয়ে অসন্তুষ্ট ছিলেন তিনি। বিধায়ক টিকিটও জুটবেনা বলে জল্পনা তৈরি হয়েছিল! তবে, শুভেন্দু অধিকারী’র মধ্যস্থতায় শেষমেশ জুটল গেরুয়া বসন। আর বাবুল সুপ্রিয় বললেন, “পুরানো বৈরিতা ভুলে নরেন্দ্র মোদী’র টিমে স্বাগত জানালাম।”

thebengalpost.in
বিজেপিতে জিতেন্দ্র :

[ আরও পড়ুন -   IIT খড়্গপুরের গবেষকদের দূষণমুক্ত 'আত্মনির্ভর ভারত' গড়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর, বাইরে বিক্ষোভ বাম-কংগ্রেস-ডিএসও'র ]

উল্লেখ্য যে, এর আগে ২০২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর হঠাৎ শহরের উন্নয়ন সংক্রান্ত বিষয়ে একাধিক প্রশ্ন তুলে প্রথমে আসানসোল পুরনিগমের পুর প্রশাসক থেকে পদত্যাগ এবং পরে দলের জেলা সভাপতির পদও ছেড়ে দেন জিতেন্দ্র। শেষে কলকাতায় এসে মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে দেখা করার পর নিজের ভুল বুঝতে পেরে ফের তৃণমূলে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। এমনকি ফেসবুকে লিখেওছিলেন, ‘’দিদিকে ছেড়ে কোথাও যাব না।’’ তবে, কিছুদিনের মধ্যেই ফের মোহভঙ্গ হয় তাঁর। পুরানো দল আর যোগ্য সম্মান বা পদ ফিরিয়ে দেয়নি। তাই ফের শুভেন্দু অধিকারী ও বাবুল সুপ্রিয়’র শরনাপন্ন হন তিনি। সম্প্রতি একটি গোপন বৈঠকও হয়। বরফ গলতে শুরু করে। শেষপর্যন্ত নির্বাচনের আগেই নিজের পছন্দের দলে যোগদান করলেন জিতেন্দ্র।

[ আরও পড়ুন -   অতিমারী অতিক্রম করে খুলেছে স্কুলের দরজা, রাস্তা দিতে নারাজ খড়্গপুর IIT, তুমুল বিক্ষোভ ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক-অভিভাবিকাদের ]