প্রথম সারির করোনা যোদ্ধা সহ মেদিনীপুরে ২১, খড়্গপুরে ৩৩, ডেবরায় ১৮ জন সংক্রমিত, শালবনী, গড়বেতা, দাঁতন সহ জেলায় ২০৬, মৃত্যু ৪ জনের

thebengalpost.in
খড়্গপুর গ্রামীণ থানা (Kharagpur Local Police Station) :
.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ৩০ সেপ্টেম্বর: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী, গত চব্বিশ ঘণ্টায় পশ্চিম মেদিনীপুরে ফের সংক্রমিত হলেন দ্বি-শতাধিক মানুষ! সোমবারের রিপোর্টে ২০৯ জনের পর, মঙ্গলবারের রিপোর্টেও করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ২০৬ জন। আরটি-পিসিআরে ১১৬ জন, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেনে ৮৩ জন এবং ট্রুনেটে ৭ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। ফলে, জেলায় মোট সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৮০৬ জন। তবে, গত চব্বিশ ঘণ্টায় প্রায় ১৫০ জন সুস্থ হওয়ার পর, এই মুহূর্তে চিকিৎসাধীন আছেন মোট ১৪১২ জন। এরমধ্যে, করোনা হাসপাতাল ও সেফ হোমে আছেন মাত্র ৩০৭ জন। বাকি ১১০৫ জন হোম আইসোলেশনেই আছেন। এই মুহূর্তে জেলায় সুস্থতার হার ৮৫ শতাংশ বেশি! এদিকে, গত চব্বিশ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমিত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের। করোনা সংক্রমিত হয়ে,  পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় মোট মৃত্যু সংখ্যা বেড়ে হল ১৫৫।

thebengalpost.in
জেলায় ফের সংক্রমিত দুশো’র বেশি :

.

এদিকে, গত চব্বিশ ঘণ্টায় শুধুমাত্র আরটি-পিসিআর অনুযায়ী মেদিনীপুর শহর ও শহরতলীতে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ১৯ জন। অপরদিকে, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন সহ ট্রুনেট মিলিয়ে আরো ২-৩ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানা গেছে। জেলার প্রথম সারির করোনা যোদ্ধা হিসেবে সংক্রমিত হয়েছেন, জেলা কালেক্টরেট তথা জেলা প্রশাসনের দুই ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটের। তবে, তাঁরা দু’জনই স্বল্প উপসর্গযুক্ত বলে জানা গেছে এবং তাঁরা গৃহ নিভৃতবাসেই আছেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সম্প্রতি জেলা পরিষদের একজন কর্মাধ্যক্ষের রিপোর্টও পজিটিভ এসেছে বলে জানা গেছে। তিনি শালবনী করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বলেও জানা গেছে। অপরদিকে, মেদিনীপুর শহরের পুলিশ লাইনে ২ জন, বিধাননগরে ২ জন, চিড়িমারসইতে ২ জন, মৃণালপল্লী আবাসে ২ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। এছাড়াও, মির্জাবাজার, সিপাই বাজার, ক্ষুদিরামনগর, পালবাড়ি সহ মেদিনীপুর শহর ও শহরতলীতে আরো ১২ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে আরটি-পিসিআর অনুযায়ী। খড়্গপুর গ্রামীণ থানার ওসি, সালুয়া ই এফ আর ক্যাম্পের ৩ জওয়ান, রেল সূত্রে ৫ জন সহ মোট ৩০ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। আইআইটি ক্যাম্পাসে নতুন করে ৩ জন, টাটা মেটালিকসের ১ জন, মালঞ্চ এলাকায় একই পরিবারের ৪ জন, নিমপুরাতে ২ জন ছাড়াও খরিদা, বিদ্যাসাগরপুর, তালবাগিচা, প্রেমবাজার, রবীন্দ্রপল্লী, বিবেকানন্দ পল্লী, ভবানীপুর সহ রেলশহরের আরো বেশ কয়েকটি এলাকায় করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। খড়্গপুর গ্রামীণ থানার (লোকাল থানা) ওসি (৩২)’র রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে গতকাল রাতে। এছাড়াও, বেনাপুর (কালিয়াড়া) গ্রামের একই পরিবারের মা (২১) ও শিশুকন্যা (২) এবং বুড়ামাল গ্রামের এক কিশোরের (১৪) রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। সবমিলিয়ে খড়্গপুরে ৩৩ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে আরটি-পিসিআর অনুযায়ী।

thebengalpost.in
জেলা জুড়ে করোনা সংক্রমিত ২০৬ জন :

.

অন্যদিকে, ডেবরা এলাকায় ফের ১৮ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। লোয়াদা ৯ নং এর মানসিংহপুর, মুরাসাতি এলাকায় ২ জন, গোপকোন্ঠি (সত্যপুর ৩ নং) এলাকায় ২ জন, সনগড় (ধনেশ্বরপুর ৩ নং) এলাকায় ১ জন এবং কানুরামপুর (ডেবরা ৫/২) এলাকায় ১ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। রাধামোহনপুরের (১১/২) ভগবানবসান এলাকায় একই পরিবারের ৪ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। এছাড়াও, বাঁশদা এলাকায় আরো ২ জন ও রাধামোহনপুরে ১ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। ডেবরা এসবিআই ব্যাঙ্কের এক কর্মী (৫৫)’র রিপোর্টও গতকাল পজিটিভ এসেছে আরটি-পিসিআর রিপোর্ট অনুযায়ী। এছাড়াও, কুলডিহাতে ২ জন, গোবিন্দপুরে ২ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। নারান্দা (পাঁশকুড়া) এলাকার ২ জন সহ ডেবরা’তে মোট ১৮ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানা গেছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে। এদিকে, শালবনীর ২ জন বি আর বি (টাঁকশালের কর্মী) কর্মী সহ মোট ৩ জন, গড়বেতায় ৩ জন, দাঁতনে ১২ জন এবং ঘাটাল ও দাসপুর মিলিয়ে একাধিক ব্যক্তি করোনা সংক্রমিত হয়েছেন।

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে