পশ্চিম মেদিনীপুরের সংক্রমণ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে! মেদিনীপুর, খড়্গপুর ছাড়িয়ে নতুন অভিমুখ ডেবরা, শালবনী-গড়বেতা-বেলদা-দাঁতন সহ গত ৪৮ ঘন্টায় ২৮৬

thebengalpost.in
করোনা সংক্রমণ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায়:
.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১০ অক্টোবর: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের গত কয়েকদিনের রিপোর্ট অনুযায়ী, জেলায় করোনা সংক্রমণ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে! সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৮৭ শতাংশ। তবে, রাজ্যের মতোই জেলাতেও সামান্য বেড়েছে মৃত্যুর হার। ১.৪০ থেকে বেড়ে হয়েছে ১.৫৫ শতাংশ! গত চব্বিশ ঘণ্টায় জেলায় ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং মোট মৃত্যু সংখ্যা এই মুহূর্তে ১৭৭ (জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের রিপোর্ট অনুযায়ী)। এদিকে, গত দু’দিনে (বা, গত ৪৮ ঘন্টায়) জেলায় করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ১৪৩ জন করে মোট ২৮৬ জন। আরটি-পিসিআর, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন এবং বেসরকারি হাসপাতালের ট্রুনেট মিলিয়ে মোট ২৮৬ জন সংক্রমিত হয়েছেন, যথাক্রমে বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার। জেলায় এই মুহূর্তে মোট করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা ১১৩৮৭ এবং সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৩৭২। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৯৮৩৮ জন।

thebengalpost.in
করোনা সংক্রমণ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায়:

.

এদিকে, গত ৪৮ ঘন্টায় মেদিনীপুর ও খড়্গপুর শহরে করোনা সংক্রমণ বেশ অনেকটাই কমেছে, আরটি-পিসিআর রিপোর্ট অত্যন্ত তাই বলছে। তবে, বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) ডেবরা এলাকায় করোনা সংক্রমণের বহর রীতিমতো আশঙ্কাজনক। শুধু, ডেবরা ব্লকেই সংক্রমিত হয়েছেন ৩২ জন, আরটি-পিসিআর অনুযায়ী। তবে, শুক্রবার এই সংক্রমণ অনেকটাই কমে হয়েছে ৮। এদিকে, বেলদা, দাঁতন, ঘাটাল, দাসপুর, ক্ষীরপাই, গড়বেতা, চন্দ্রকোনা, শালবনী প্রভৃতি এলাকাতেও কমেছে করোনা সংক্রমণ। বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী, ডেবরা ব্লকের যে এলাকাগুলিতে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে, সেগুলি হল- রাধামোহনপুর এবং তৎসংলগ্ন বাঁশদা, তুরিয়া সহ মোট ৬ জন, বালিচকের ডুঁয়া এলাকায় ২ জন, রঘুনাথপুর গ্রামে ১ জন, ভবানীপুর গ্রামের একটি পরিবারের ২ জন এবং ত্যাবাগেড়িয়া, চক সুজল নরহরিপুর, আলিসাগড় প্রভৃতি। এছাড়াও, ২ জন পুলিশকর্মী তথা করোনা যোদ্ধার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। অন্যদিকে, শুক্রবার (৯ অক্টোবর) রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী, ডেবরা ব্লকের ডেবরাতেই ৩ জন, লোয়াদা, শ্রীকৃষ্ণপুর, মলিঘাটী, জোট নারায়ন প্রভৃতি এলাকা সহ মোট ৮ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। গত দু’দিনে সবংয়ে মাত্র ৩ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। দেভোগ ১ নং গ্রাম পঞ্চায়েতের ২ জন ও আমদা এলাকার ১ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন আরটি-পিসিআর রিপোর্ট অনুযায়ী। মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের আরটি-পিসিআর (RT-PCR) রিপোর্ট অনুযায়ী, শালবনী ব্লকের জলহরিতে ৩৩ বছরের এক যুবকের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এছাড়াও, ঢ্যাংবহড়া গ্রামের এক ব্যক্তি (৫০) ও ডালমিয়া সিমেন্ট কারখানার কর্মরত এক ব্যক্তিও করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। এদিকে, দাঁতন, বেলদা, গড়বেতা, চন্দ্রকোনা, ঘাটাল, দাসপুর, ক্ষীরপাই, গোয়ালতোড় প্রভৃতি এলাকায় করোনা সংক্রমণ গত দু’তিনদিনে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। যদিও, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের বিভিন্ন ক্যাম্প বা শিবিরের তালিকা বেঙ্গল পোস্টের হাতে এসে পৌঁছয়নি। শুধুমাত্র, মোট সংখ্যাটা জানা গেছে। ফলে, বিভিন্ন ব্লকে করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা কিছু বাড়বে। তবে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মোট আক্রান্তের সংখ্যা তিন ধরনের টেস্টের রিপোর্ট অনুযায়ীই দেওয়া হয়েছে।

thebengalpost.in
শহর থেকে গ্রাম কিছুটা নিয়ন্ত্রণে করোনা :

.

অন্যদিকে, আরটি-পিসিআর রিপোর্ট অনুযায়ী গত বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর), মেদিনীপুর শহরে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন মাত্র ৪ (চারজন)। নান্নুরচক এলাকায় এক পরিবারে বাবা (২৬) ও তাঁর শিশুসন্তান (৪) ছাড়া ঈদগামহল্লা এবং মির্জাবাজারে ১ জন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। অপরদিকে, গতকাল (৯ অক্টোবর), মেদিনীপুর শহরে সংক্রমিত হয়েছেন ১১ জন। পুলিশ লাইন, কুইকোটা, বার্জটাউন, নজরগঞ্জ এবং মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের এক স্বাস্থ্যকর্মী সহ মোট ৫ জন এবং গুড়গুড়িপাল থানা এলাকায় ১ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। এছাড়াও, মেদিনীপুর সদর ব্লক এবং কোতোয়ালি থানা এলাকায় আরো ৫ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। সংক্রমণ কিছুটা কমেছে খড়্গপুর শহর ও গ্রামীণ এলাকাতেও। বৃহস্পতিবার খড়্গপুরে সংক্রমিত হয়েছেন ২১ জন। এই মুহূর্তে, খড়্গপুর পৌরসভার করোনা কেন্দ্রবিন্দুতে অন্যতম স্থান দখল করে আছে তালবাগিচা। এছাড়াও, ইন্দা এলাকা এবং রেল কলোনিগুলিতেও সমানে করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন মানুষ। বৃহস্পতিবার, তালবাগিচা, ইন্দা ছাড়া হিজলি, রবীন্দ্রপল্লী, সি আর নগর প্রভৃতি এলাকায় ১ জন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। রেল সূত্রে ২ জন, টাটা বিয়ারিংস এর ১ কর্মী করোনা সংক্রামিত হয়েছেন। কৌশল্যার বাসিন্দা ১ স্বাস্থ্যকর্মীর রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। সবমিলিয়ে ২১ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে ৮ অক্টোবর রাতের আরটি-পিসিআর রিপোর্ট অনুযায়ী। এদিকে, গতকাল অর্থাৎ শুক্রবার রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী রেলশহর খড়্গপুরের রেল পরিবারগুলোতে বিপুল পরিবার সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। রেলকর্মী ও তাঁদের স্ত্রী-সন্তান মিলিয়ে মোট ১১ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে শুধুমাত্র আরটি-পিসিআর অনুযায়ী। অন্যদিকে, তালবাগিচা তে ৩ জন, খরিদা ২ জন, প্রেমবাজারে ২ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এছাড়াও, নিমপুরা, সুভাষপল্লী, সোনামুখী-ঝুলি এবং গ্রামীণের জকপুর ও খিদিরপুরে ১ জন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। আরটি-পিসিআর অনুযায়ী মোট সংক্রমিতের সংখ্যা ২৩।

thebengalpost.in
করোনা পরীক্ষা শিবির :

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে