বিজেপির পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সভাপতি শমিত দাসের উপর আক্রমণ, চাঞ্চল্য জেলাজুড়ে

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ৯ অক্টোবর: দলীয় কর্মসূচি উপলক্ষে আজ (শুক্রবার), দাঁতনে গিয়েছিলেন বিজেপির পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সভাপতি শমিত দাস। গাড়ি থেকে নামার সাথে সাথেই তাঁর উপর রড দিয়ে আক্রমণ করেন , উত্তম দাস (বয়স আনুমানিক ৩০) নামে এক ব্যক্তি। প্রচন্ড এই আঘাতে পড়ে যান শমিত বাবু। মাথা ফেটে অঝরে রক্ত পড়তে শুরু করে। অতর্কিত এই আক্রমণে দলীয় কর্মীরাও হতভম্ব হয়ে পড়েন! তবে, আক্রমণকারীকে তাঁরা ধরে ফেলেন। দাঁতন থানার পুলিশ এসে তাঁকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। এদিকে, প্রথমে দাঁতন গ্রামীণ হাসপাতাল, পরে মেদিনীপুর শহরের নামকরা বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসা হয় শমিত বাবু’কে। তাঁর মাথায় বেশ কয়েকটি স্টিচ পড়েছে বলে জানা গেছে। মাথায় ব্যান্ডেজ করার পর তাঁকে, মেদিনীপুর শহরের নামকরা ইএনটি স্পেশালিস্টের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাঁর কানেও চোট লেগেছে বলে জানা যায়।

thebengalpost.in
বেসরকারি হাসপাতালে বিজেপি জেলা সভাপতি শমিত দাস :

.

এদিকে, এই ঘটনায় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীর দিকে আঙুল তুলেছেন, বিজেপি নেতৃত্ব। তবে বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, বছর খানেক আগে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন উত্তম দাস। তাঁকে যুব মোর্চার মন্ডল সভাপতিও করা হয়েছিল। কিন্তু, নতুন কমিটিতে তাঁকে ওই পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছিল বলে গোপন সূত্রে জানতে পারে উত্তম। বিভিন্ন বিষয়ে জেলা সভাপতি শমিত দাস গোষ্ঠীর সঙ্গে ওই ব্যক্তির মতভেদ তৈরি হয়েছিল বলেও জানা যায়। আজকের এই আক্রমণ তারই ফলশ্রুতি বলে জানা যায়। তবে, বিজেপি নেতৃত্ব জানিয়েছে, ওই কর্মীকে দল থেকে আগেই বহিষ্কার করা হয়েছে, সম্প্রতি তৃণমূলের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা ছিল। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূল জেলা সভাপতি অজিত মাইতি বলেন, “ছিঃ ছিঃ অত্যন্ত লজ্জার যে, বিজেপির নিজেদের দলীয় কোন্দল কে, তৃণমূলের নামে চালানোর চেষ্টা করছে। দাঁতনে বালি খাদান নিয়ে বিজেপির দুই গোষ্ঠীর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই গন্ডগোল চলছে। আর ওদের দলে তো দুষ্কৃতীর অভাব নেই, সব অস্ত্র নিয়ে ঘুরে বেড়ায়। দলীয় বৈঠকে তাই নিজেদের যুব মোর্চার মণ্ডল সভাপতি উত্তম দাসের হাতে আক্রান্ত হয়েছেন বিজেপির জেলা সভাপতি। পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করেছে, সব সত্য বেরিয়ে আসবে। আমরা বিজেপি জেলা সভাপতির দ্রুত আরোগ্য কামনা করি। তবে, এই ঘটনায় বিজেপির আসল রূপ বেরিয়ে পড়ল।” অসুস্থ থাকায়, বিজেপি জেলা সভাপতি ফোন ধরতে পারেননি। তবে, দলের অন্যান্য নেতৃত্ব বলেছে তৃণমূলের উস্কানিতেই এই ঘটনা ঘটেছে। এর প্রতিবাদে, মেদিনীপুর শহরের বটতলাচক ও কেরানিটোলায় বিকেল ৫ টায় পথ অবরোধের ডাক দেওয়া হয়েছে বিজেপির শহর পূর্ব ও পশ্চিম মন্ডলের পক্ষ থেকে।

thebengalpost.in
বিজেপির অভিযোগের জবাব দিলেন তৃণমূলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি :

.
.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে