জেলা পুলিশে ফের দুঃসংবাদ! করোনা মুক্ত হয়েও প্রাণ হারালেন খড়্গপুর গ্রামীণ থানার পুলিশকর্মী

thebengalpost.in
খড়্গপুর গ্রামীণ থানার সাদাতপুর আউটপোস্টে একসাথে আক্রান্ত ৪ জন :
.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ৯ অক্টোবর: দুঃসংবাদ যেন পিছু ছাড়ছে না পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পুলিশের! করোনা সংক্রমিত হয়ে সবং থানার সেকেন্ড অফিসার অতনু প্রামাণিক (৩৮) এবং পিড়াকাটা পুলিশ পোস্টের কনস্টেবল নরেশ চন্দ্র সরেন (৫৬) এর মৃত্যু হয়েছে সম্প্রতি। এছাড়াও, মেদিনীপুর সেন্ট্রাল জেলের সহকারী জেলর (জেলর ২) বিভু মল্লিক (৫৫) ও প্রয়াত হয়েছেন করোনা আক্রান্ত হয়ে। তারপর, গত বুধবার (৭ অক্টোবর) পথ দুর্ঘটনায় নিহত হলেন, তরুণ পুলিশকর্মী (কনস্টেবল) বিকাশ পাত্র। আর, তার ঠিক একদিন যেতে না যেতেই, এবার করোনা-মুক্ত হয়েও কো-মর্বিটিভিতে মারা গেলেন, খড়্গপুর গ্রামীণ থানা (Kharagpur Local Police Station)’র পুলিশকর্মী (কনস্টেবল) কিংকর কুমার মিদ্যা (৫৩)। শুক্রবার সকালে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে তাঁর মৃত্যু হয় বলে জানা গেছে পুলিশ সূত্রে।

thebengalpost.in
খড়্গপুর লোকাল থানা :

.

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত ১ লা অক্টোবর পুলিশকর্মী কিংকর কুমার মিদ্যা এবং তাঁর ছেলে কুনাল মিদ্যা (২৪)’র করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল। দু’জনকেই লেভেল ফোর করোনা হাসপাতাল শালবনী (Salboni Covid Hospital)’তে ভর্তি করা হয়েছিল। গতকাল (৮ অক্টোবর), করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসার পর কিংকর বাবু’কে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে (স্টেপ ডাউন করে) স্থানান্তরিত করা হয়েছিল, কারণ কিংকর বাবু’র অন্যান্য শারীরিক অসুস্থতা বা কো-মর্বিডিটি ছিল। এরপরই, মেডিক্যাল কলেজে আজ সকালে তিনি প্রয়াত হন! শালবনী করোনা হাসপাতালের নবনিযুক্ত সুপার ডাঃ নন্দন ব্যানার্জি জানালেন, “শুধু উনি নন, একথা অস্বীকার করার উপায় নেই, ডায়াবেটিস, হাইপারটেনশন সহ বিভিন্ন অসুস্থতা থাকা এবং পঞ্চাশোর্ধ্ব বা ষাটোর্ধ্ব রোগীদের ক্ষেত্রে সঠিক চিকিৎসা পরিষেবা দিয়ে সুস্থ করে তোলা কিংবা করোনা মুক্ত হওয়ার পরও তাঁদের চিকিৎসার মধ্যে রাখা এই দুটি বিষয়ই এখন সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ চিকিৎসক কিংবা বিশেষজ্ঞদের কাছে। ওনার খবরটা আজকে সকালেই পেয়েছি। খুবই দুঃখজনক খবর! আসলে, করোনা ভাইরাস শরীর থেকে বেরিয়ে গেলেও, শরীরে অ্যান্টিজেন এবং অ্যান্টিবডির লড়াইটা চলতেই থাকে। আর, শ্বাসযন্ত্র পুরোপুরি সক্রিয় হতে সময় লাগে। তাই, নেগেটিভ রিপোর্ট আসার সাথে সাথে, আমরা ওনাকে মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলাম, ওনার শারীরিক অবস্থার কথা ভেবেই।” এদিকে, বাবার মৃত্যুর খবরে ভেঙে পড়েছেন কুনাল। আজ সকালে তাঁর র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট করা হলে, রিপোর্ট ‘নেগেটিভ’ এসেছে। তাঁকেও ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানা গেছে শালবনী হাসপাতাল সূত্রে। সূত্রের খবর অনুযায়ী, কিংকর বাবু’কে শেষবারের জন্য দেখার জন্য শালবনী করোনা হাসপাতাল থেকে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে আসবেন, ছেলে কুনাল মিদ্যা।

thebengalpost.in
শালবনী করোনা হাসপাতাল :

.

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখা ভালো, গত ২৯ সেপ্টেম্বর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল, খড়্গপুর লোকাল থানার ওসি আসিফ সানি (৩২)’র। তারপরই, কিংকর বাবু সহ অনেক পুলিশকর্মীর করোনা রিপোর্ট করা হয়েছিল। গত ১ লা অক্টোবর রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল, কিংকর বাবু এবং তাঁর ছেলের। থানার বড়বাবু বা ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক (Officer in Charge) আসিফ সানি ইতিমধ্যে কলকাতা থেকে করোনামুক্ত হয়ে ফিরেছেন। তবে, সুস্থ হয়ে ফিরতে পারলেন না, থানার অভিজ্ঞ পুলিশকর্মী কিংকর বাবু। শোকের ছায়া নেমে এসেছে খড়্গপুর লোকাল থানা বা গ্রামীণ থানাতে!

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে