করোনা নেগেটিভ হওয়ার পরও ফের ‘পজিটিভ’ হয়ে মৃত্যু পিড়াকাটার পুলিশকর্মীর, শালবনী থেকে বেসরকারি হাসপাতালে পাঠিয়েও হলনা শেষরক্ষা

thebengalpost.in
.

মণিরাজ ঘোষ, শালবনী, ১ অক্টোবর : পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পুলিশে ফের দুঃসংবাদ! সবং থানার সেকেন্ড অফিসার (মেজোবাবু, বয়স : ৩৮) অতনু প্রামাণিকের মৃত্যু’র পর (১৫ সেপ্টেম্বর) জেলায় দ্বিতীয় পুলিশকর্মী তথা প্রথম সারির করোনা যোদ্ধার মৃত্যু হল আজ (১ অক্টোবর)! শালবনী থানার অধীন পিড়াকাটা পুলিশ পোস্টের (পুলিশ বীট হাউসের) কনস্টেবল, নরেশ চন্দ্র সরেন (৫৬) এর মৃত্যু হল করোনা সংক্রমিত হয়ে। শালবনী করোনা হাসপাতাল থেকে গত ২৭ সেপ্টেম্বর তাঁকে হাওড়ার কাছে এক বেসরকারি করোনা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছিল। সেখানেই সব চেষ্টা ব্যর্থ করে, আজ বিকেল চারটা নাগাদ তাঁর মৃত্যু হয় বলে জানা গেছে, শালবনী থানা ও পিড়াকাটা পুলিশ পোস্ট সূত্রে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সবং থানার এসআই অতনু প্রামাণিক (৩৮) এবং নরেশ চন্দ্র সরেন (৫৬) ছাড়া, এর আগে মেদিনীপুর সেন্ট্রাল জেলের সহকারী সুপার (জেলর ২) বিভূ মল্লিক (৫৬) এর মৃত্যুর পর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল (৩১ আগস্ট)।

thebengalpost.in

.

শালবনী থানার অধীন পিড়াকাটা পুলিশ পোস্টের প্রথম পুলিশকর্মী হিসেবে সংক্রমিত হয়েছিলেন নরেশ‌ বাবু। আগস্ট মাসের শেষ সপ্তাহে তাঁর রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টে। তিনি স্বল্প উপসর্গযুক্ত হওয়ায়, মেদিনীপুরের আয়ুশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। প্রায় ১০-১২ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর, সুস্থ হয়ে তিনি বাড়ি ফিরে যান। এরপর, বাড়িতে কিছুদিন বিশ্রাম নেওয়ার পর, গত ১২ সেপ্টেম্বর তিনি কাজে যোগদান করেছিলেন বলে জানিয়েছেন পিড়াকাটা পুলিশ পোস্টের আইসি (ইনচার্জ) মানস জ্যোতি দে। কিন্তু, গত ২৫ সেপ্টেম্বর ফের অসুস্থতা বোধ করায়, তাঁকে শালবনীতে পাঠানো হয়, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের জন্য। রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর, শালবনী করোনা হাসপাতালেই তাঁকে ভর্তি করা হয়। কিন্তু, যেহেতু তাঁর সুগার ও প্রেসারের সমস্যা ছিল এবং শ্বাসকষ্টও বাড়ছিল, তাই তাঁকে হাওড়ার বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় শালবনী থানা ও জেলা পুলিশের তরফে। কিন্তু, সেখানে পাঠিয়েও শেষরক্ষা হলনা! শালবনী থানার আইসি (ইন্সপেক্টর ইন চার্জ) গোপাল বিশ্বাস অত্যন্ত হতাশার সাথে জানিয়েছেন, “অনেক চেষ্টা করা হয়েছিল, কিন্তু শেষ রক্ষা হলনা! আমরা আমাদের একজন পরিবারের সদস্য তথা করোনা যোদ্ধা’কে হারালাম। যদিও এই ক্ষতি অপূরণীয়, তা সত্ত্বেও আমাদের সাধ্যমতো আমরা ওনার পরিবারের পাশে আছি।” গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে, পুরো পিড়াকাটা পুলিশ পোস্ট (বা, পুলিশ ফাঁড়ি বা পুলিশ বীট হাউস) জুড়ে। ইতিমধ্যে, প্রায় ১০ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। সুস্থ হয়ে ফিরে এসেছেন, প্রাক্তন আইসি (ইনচার্জ) বিশ্বজিৎ মন্ডল, মেজোবাবু উৎপল সিংহ মহাপাত্র। চিকিৎসাধীন আছেন, এসআই মনোজ কুমার মাহালি সহ আরো বেশ কয়েকজন পুলিশকর্মী। তার মধ্যেই সন্ধ্যা নাগাদ ছুটে আসা এই দুঃসংবাদে ভেঙে পড়েছেন অনেক পুলিশকর্মী ও আধিকারিকই। তা সত্ত্বেও, সচেতনতা ও সাবধানতা অবলম্বন করে করোনা যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার বার্তা দিলেন, শালবনী থানার আইসি (ইন্সপেক্টর ইন চার্জ) গোপাল বিশ্বাস এবং পিড়াকাটা পুলিশ পোস্টের ইনচার্জ মানস জ্যোতি দে।

.
.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে