মাতঙ্গিনীর বলিদান দিবসে ছাত্র-যুব-বেকার-বঞ্চিত-প্রতারিতদের বিক্ষোভ দেখল মেদিনীপুর

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, মেদিনীপুর, ৩০ সেপ্টেম্বর: শাসকের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখানোর জন্য বোধহয় এই দিনটিকেই বেছে নিয়েছিলেন, জেলার সর্বস্তরের বঞ্চিত-অসহায়-প্রতারিত ছাত্র-যুব, শিল্পী থেকে সাধারণ মানুষ! গতকাল, অর্থাৎ ২৯ সেপ্টেম্বর ছিল, শহীদ মাতঙ্গিনী হাজরা’র ৭৯ তম আত্মবলিদান দিবস। বুকে শাসকের (ব্রিটিশ বাহিনীর) গুলি খেয়েও, হাতে ধরা তেরঙ্গা পতাকাটি শক্ত করে ধরে রেখেছিলেন ‘গান্ধী বুড়ি’। আর, তাঁর বলিদান দিবসেই, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শিক্ষিত বেকার ছাত্র-যুব’র দল সরকারের খামখেয়ালিপনার বিরুদ্ধে গর্জে উঠলেন। তাঁরা ডাক দিলেন, “বেকার ভাতা-পুরোহিত ভাতা-ইমাম ভাতা-পুজো অনুদান নয় চাকরি দিন, চাকরি!” অন্যদিকে, মাওবাদীদের হাতে খুন হওয়া (পুলিশের খাতায় এখনো নিখোঁজ) জঙ্গলমহলের অসহায়-নিপীড়িত-প্রতারিত পরিবারগুলি গর্জে উঠলেন, “খুন করে মাওবাদীরা চাকরি পেয়েছে, আর খুন হওয়া পরিবারগুলি শুধুই পেয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাস!” অপরদিকে, জেলার শিল্পীরা মুখ্যমন্ত্রী’র কাছে দাবি জানালেন, তাঁদের অবস্থা শোচনীয়, তাই পুজোতে তাঁদের ‘মুক্ত মঞ্চ’ ফিরিয়ে দেওয়া হোক, অর্থাৎ খোলা মাঠে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করতে দেওয়া হোক।

thebengalpost.in
শিক্ষিত বেকারদের রাজপথে বিক্ষোভ :

.

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিগত প্রায় চার বছর ধরে রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা হয়নি। ২০১৬ সালে, এসএলএসটি বা স্টেট লেভেল এলিজিবিলিটি টেস্টে নবম-দ্বাদশের পরীক্ষা হয়েছিল। ২০১৯ এ সেই নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে। অপরদিকে, ২০১৪ তে উচ্চ প্রাথমিক পরীক্ষা হয়েছে সেই প্রক্রিয়া এখনো সম্পন্ন হয়নি, আদালতের স্থগিতাদেশে থমকে আছে। প্যানেলের বিরুদ্ধে ভুরি ভুরি অভিযোগ! প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগও ২০১৭ এর ফেব্রুয়ারি’তে শেষ হওয়ার পর, আর পরীক্ষা হয়নি। এই অবস্থায়, রাজ্যের লক্ষ লক্ষ বেকার যুবক-যুবতীরা সারা রাজ্য জুড়ে বিক্ষোভ দেখালেন। মূলত, এসএলএসটি’র পরীক্ষার্থীরাই এদিন বিক্ষোভ দেখিয়ে, অবিলম্বে এসএসসি’র পরীক্ষা নেওয়ার জন্য এবং দ্রুত নিয়োগের দাবি জানালেন। মুখ্যমন্ত্রী’র চপ ভেজে উপার্জন করার পরামর্শের প্রতিও ব্যঙ্গবাণ ছুঁড়ে দিলেন পরীক্ষার্থীরা। জেলাশাসকের দপ্তরের সামনে কালেক্টরেটের রাজপথে অবস্থান-বিক্ষোভের সাথে সাথে, ‘চপ ভেজে’ প্রতিবাদ জানালেন শিক্ষার্থীরা! বেকার যুবক-যুবতীরা দাবি করলেন, পুজো কমিটিকে ৫০,০০০ করে টাকা দিতে পারছেন, আর নিয়োগ করতে পারছেন না ? এই ভাতা ওই ভাতা দিতে পারছেন, আর শিক্ষক নিয়োগের বেলায় অর্থের টান দেখাচ্ছেন? এভাবেই, আজ মেদিনীপুর রাজপথ উত্তাল হয়, এসএসসি পরীক্ষার দাবিতে। জেলাশাসকের দপ্তরের সামনে, আজ জেলার সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব তথা বিভিন্ন ধরনের শিল্পীরাও জমায়েত করে নিজেদের দাবি তুলে ধরেন এবং জেলাশাসক’কে ডেপুটেশন দেন, নিজেদের কর্ম নিশ্চয়তার দাবিতে। তাঁদের বক্তব্য, পুজোর সময় দূরত্ব বজায় রেখে খোলা মঞ্চে অন্তত ২০০ জন দর্শক সহ অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হোক। জেলাশাসকের মাধ্যমে তাঁরা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে এই দাবি রাখেন।

thebengalpost.in
মেদিনীপুর শহরে শিল্পীদের দাবি :

.

অপরদিকে, মেদিনীপুর শহরের লোধা স্মৃতি ভবনে আজ একটি বৈঠক করেন, জঙ্গলমহলের যৌথ মঞ্চ। মাওবাদীদের হাতে ‘শহীদ’ হওয়া পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া ও পুরুলিয়া’র বিভিন্ন পরিবারগুলি’র সদস্য-সদস্যারা আজ স্পষ্ট হুমকি দেন, “মুখ্যমন্ত্রী ক্ষমতায় আসার পর কথা রাখেননি! মাওবাদীরা চাকরি পেলেও, তাঁদের পরিবারের তরফে কাওকে চাকরি বা কোনো সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হয়নি। এ নিয়ে, শাসক দলের নেতৃত্বদের সঙ্গেও একাধিকবার আলোচনা হয়। কিন্তু তাঁদের অভিযোগ, জেলাশাসকের কার্যালয় থেকে নবান্ন পর্যন্ত ডেপুটেশন দিয়েও কোনও লাভ হয়নি। তাই এবার তাঁরা সরাসরি সংঘাতে যাওয়ার কথা ভাবছেন! তাঁদের অভিযোগ, মাওবাদী আমলে ঝাড়গ্রাম জেলায় নিখোঁজ হয়েছেন ৮১ জন, পশ্চিম মেদিনীপুরে ২৬ জন, বাঁকুড়ায় ১ জন ও পুরুলিয়ায় ১৬ জন। দীর্ঘ দশ বছর পরেও এই নিখোঁজদের ডেথ সার্টিফিকেট পর্যন্ত দেওয়া হয়নি। আর সেই কারণে, চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে তাঁদের। কিন্তু, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার অদ্ভুতভাবে নির্বিকার! তাই, তাঁদের চরম হুমকি, “এবার মাওবাদীদের দেখানো পথেই তাঁরা হাঁটতে বাধ্য হবেন!”

thebengalpost.in
রাস্তার উপর চপ ভেজে প্রতিবাদ :

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে