ফুটবল ম্যাচ খেলতে গিয়ে মাঝপথে জীবনের খেলা সাঙ্গ হল শালবনীর এক যুবকের, পাঞ্জা লড়ছেন আরো ৩ জন

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, শালবনী, ১৪ অক্টোবর: বাড়ি থেকে বাইকে করে বেরিয়েছিল ফুটবল ম্যাচ খেলতে। মাঝপথেই জীবনের সব খেলা সাঙ্গ হল, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনী ব্লকের মালিদা সিংপুর (পিড়াকাটা থেকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে অবস্থিত) গ্রামের এক তরতাজা যুবকের! মৃত্যু’র সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে আরো ৩ জন। একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক!

thebengalpost.in
শালবনীতে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা :

.
.

শালবনী ব্লকের পিড়াকাটা’র কাছে মালিদা সিংপুর গ্রাম থেকে বাইকে করে, বুধবার (১৪ অক্টোবর) শালবনী ব্লকের গোদামৌলি গ্রামে একটি ফুটবল টুর্নামেন্টের ম্যাচে যোগ দিতে বেরিয়েছিল কয়েকজন যুবক। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দু’টি বাইকে করে ৬-৭ জন ১৮ থেকে ২০ বছরের যুবক গোদামৌলির উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল তীব্র গতিতে, নিজেদের বাইক ছুটিয়ে। সেই গতিই কেড়ে নিল প্রাণ! ফুটবল মাঠে ঝড় তোলার আগেই, হেলমেট হীন যাত্রা আর বাইকের অতিরিক্ত গতিই মেলদা-সিংপুরের তরতাজা যুবক শঙ্কর মুর্মু’র জীবন কেড়ে নিল! কার্তিক সিং, রেবা রায় এবং বাবুরাম মুর্মু নামে আরো ৩ জন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে স্থানীয় সূত্রে। দুপুর ১.৩০ টা-২ টো নাগাদ পিড়াকাটা থেকে গোয়ালতোড় যাওয়ার রাস্তায়, মাঝখানে রঞ্জার জঙ্গলে (পিড়াকাটা থেকে ৫-৬ কিলোমিটারের মধ্যে) এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই চারজন একটি বাইকেই ছিল। তীব্র গতির এই বাইক, নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার (রাজ্য সড়কের) ধারে একটি গাছে ধাক্কা মারে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় শঙ্করের। বাকি ৩ জনও এদিক ওদিক ছিটকে পড়ে। একজনের অবস্থা অত্যন্ত সংকটজনক ছিল। স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে পিড়াকাটা পুলিশ পোস্টের পুলিশকর্মীরা তাদের উদ্ধার করে, মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। সেখানেই ৩ জনের চিকিৎসা চলছে। শঙ্করের ময়নাতদন্তও হবে। এই ঘটনায় পরিবার পরিজন ও এলাকাবাসীরা শোকস্তব্ধ হয়ে পড়েছেন।

thebengalpost.in
শালবনীতে মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু এক যুবকের :

.

স্থানীয়দের বক্তব্য, ওই এলাকাটি এমনিতেই দুর্ঘটনা প্রবণ! দু’ধারে শালের জঙ্গল। আর, রাস্তায় বড় বড় বাঁক। ফলে, একটু নিয়ন্ত্রণহীন হলেই দুর্ঘটনা অনিবার্য। গত একবছরেই এই রাস্তায়, শুধু ৫-৬ জন বাইক আরোহী হতাহত হয়েছে বলে তাঁরা জানাচ্ছেন। তাই, এলাকাবাসী দাবি করেছেন, এখানে পুলিশ বা সিভিক পুলিশ দেওয়া হোক!

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে