সিদ্ধান্তে অনড় শুভেন্দু! সাংসদের সঙ্গে দ্বিতীয় বৈঠকেও গলল না ‘বরফ’

বিজ্ঞাপন

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, কলকাতা, ২৪ নভেম্বর: প্রথম দফায় বৈঠকে নিজের মতামত তুলে ধরেছিলেন পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর বক্তব্যের মূল সুর ছিল, দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বা রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সীর দল চালানোর পদ্ধতি নিয়ে কোন আপত্তি নেই; তবে বর্তমান সময়ে প্রশান্ত কিশোর এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল চালানোর পদ্ধতি তিনি মেনে নিতে পারছেন না! বৈঠকের পর তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় জানিয়েছিলেন, “শুভেন্দুর বক্তব্য নেত্রীর কাছে তুলে ধরা হবে।” সূত্রের খবর অনুযায়ী, ফোনে কথা হয়েছিল আরেক সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেও। বর্ষীয়ান এই দুই সাংসদের মাধ্যমে, শুভেন্দু’র সঙ্গে দলের “মতানৈক্য” দূর হবে বলেই আশা করেছিলেন বাংলা আপামর তৃণমূল নেতা-কর্মী-সমর্থকেরা। বিভিন্ন সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে, গত সপ্তাহে সাংসদ সৌগত রায় ‘অন ক্যামেরা’ বলেছিলেন, “আমি আশাবাদী। আগামী সপ্তাহে শুভেন্দু’র সাথে আবারো আলোচনায় বলতে চলেছি।” কথামতো, গতকাল (সোমবার) সেই বৈঠক সম্পন্ন হয়েছে বলেই বিশ্বস্ত সূত্রের খবর। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের কাছে, বৈঠকের বিষয়ে স্বীকার করেছেন সাংসদ সৌগত রায়। তবে কি আলোচনা হয়েছে তা তিনি বলেন নি! অপর পক্ষ থেকেও, এই বৈঠক নিয়ে ‘টুঁ-শব্দ’ করা হয়নি। তবে, রাজধানীর বিভিন্ন রাজনৈতিক সূত্র জানাচ্ছে, শুভেন্দু তাঁর বক্তব্যে অনড়। এই বিষয়ে ‘দলনেত্রী’ কোনো সিদ্ধান্ত না নিলে, তাঁর পক্ষে এগোনো সম্ভব নয় বলেই তিনি জানিয়েছেন!

thebengalpost.in
দ্বিতীয় বৈঠকেও শুভেন্দুর মন গলাতে ব্যর্থ হলেন সাংসদ সৌগত রায় :

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিভিন্ন রাজনৈতিক সূত্রে এবং সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, গতকাল (সোমবার) সন্ধ্যায় রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে সাংসদ সৌগত রায়ের দ্বিতীয় দফায় বৈঠক হয়েছে প্রায় দেড় ঘন্টা। কিন্তু, সেই বৈঠক থেকে কোন সমাধানসূত্র মেলেনি বলে, স্বভাবতই হতাশ সাংসদ সৌগত রায়। সূত্রের খবর অনুযায়ী, এই বৈঠকেও শুভেন্দু পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, আপত্তি অভিষেক ও পিকে’র দল চালানোর পদ্ধতি নিয়ে। বিষয়টি যে পুরোপুরি দলনেত্রীর হাতে, তা বুঝে গেছেন উভয়পক্ষই। ফলে, দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই বিষয়ে কি সিদ্ধান্ত নেন, সেদিকেই তাকিয়ে আছেন তৃণমূল নেতৃত্ব থেকে তৃণমূল কর্মী সমর্থকেরা! একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে এক প্রকার হতাশার সাথে সৌগত রায় বলেছেন, “মিটিং হয়েছে, এর বেশি কিছু বলব না। আলোচনা হয়েছে। এ ব্যাপারে দলনেত্রীকে জানাব। শুভেন্দুর বক্তব্য কী! এনিয়ে দলেই রিপোর্ট করব।” তবে, তিনি যে এই বিষয়ে এখনও আশা ছাড়েননি, সে কথাও জানিয়েছেন। নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই মুহূর্তে বাঁকুড়া সফরে আছেন। তিনি ফিরলেই, তাঁকে এই বিষয়ে জানানো হবে বলে জানিয়েছেন বর্ষীয়ান সাংসদ। অপরদিকে, বিভিন্ন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা অনুমান করছেন, ৩৪ বছরের ‘জগদ্দল পাথর’ সিপিআইএম তথা বামফ্রন্টকে সরাতে সক্ষম হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, দলের অন্যতম প্রধান সেনাপতি শুভেন্দু অধিকারীর ‘মান’ ভাঙানো টাও তাঁর কাছে নিতান্তই বাঁ হাতের কড়ে আঙ্গুলের কাজ। তবে, তিনি কি তা করবেন? ঘুচবে কি ব্যবধান? হয়তো চলতি সপ্তাহেই তা পরিষ্কার হতে চলেছে!

thebengalpost.in
কি করবেনশুভেন্দু অধিকারী ? এই সপ্তাহেই পরিষ্কার হতে চলেছে :

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে