করোনা সংক্রমণের কেন্দ্রবিন্দুতে মেদিনীপুর! সংক্রমিত ৪৫, জেলায় ১৬৩, তালিকায় পুলিশ, স্বাস্থ্যকর্মী থেকে রাজনৈতিক নেতা

More Corona Positive at Midnapore Town and Paschim Medinipur District also

thebengalpost.in
করোনা মৃত্যুতে সেঞ্চুরি পশ্চিম মেদিনীপুরের :
.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১২ সেপ্টেম্বর: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দফতরের শুক্রবার রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী জেলায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১৬৩ জন।এর মধ্যে, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টে ১৩০ জন এবং আরটি-পিসিআর টেস্টে ৩৩ জন। শুধুমাত্র মেদিনীপুর শহরেই সংক্রমিত ৪৫। বিভিন্ন চিকিৎসক, আধিকারিক এবং বিশেষজ্ঞদের মতে, জেলার সংক্রমণবৃত্তের কেন্দ্রবিন্দুতে এখন শুধু ঘাটাল-খড়্গপুরই নয়, মেদিনীপুর শহরও একটি বড় জায়গা দখল করে নিয়েছে। জেলা সদর মেদিনীপুরের সর্বত্র সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়লেও, লক্ষ্যনীয় যে পারিবারিক এবং এলাকাভিত্তিক সংক্রমণের হারই বেশি! প্রশাসন এবং স্বাস্থ্য দপ্তর মানতে না চাইলেও, গোষ্ঠী সংক্রমণের তথ্য বা আশঙ্কা কোনোটাই উড়িয়ে দেওয়া যায়না! শহরের রাঙামাটি, সিপাইবাজার, মির্জাবাজার (বা, মিঞাবাজার), পাটনাবাজার প্রভৃতি এলাকাগুলোতে গোষ্ঠী সংক্রমণের আশঙ্কা তাই থেকেই যাচ্ছে! অপরদিকে, গতকাল অর্থাৎ শুক্রবার রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী, শরৎপল্লী, হাতারমাঠ প্রভৃতি এলাকাতে পারিবারিক সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। জেলা শহরের বাইরে, খড়্গপুর ধারাবাহিকভাবে করোনা-ব্যাটিং চালিয়ে যাচ্ছে। আর, ঘাটাল মহকুমার ঘাটাল পৌরসভা, দাসপুর ও ক্ষীরপাইয়ের সংক্রমণ-ধারাবাহিকতাও অস্বীকার করার মতো নয়। একইসঙ্গে, দাঁতন, বেলদা, নারায়ণগড়, গড়বেতা, ডেবরা, সবং, কেশপুর এর করোনা গ্রাফও ঊর্ধ্বমুখী! এক-দু’জন করে সংক্রমিত হলেও শালবনী, গোয়ালতোড় সহ কয়েকটি এলাকায় তুলনামূলক ভালো পরিস্থিতি।

thebengalpost.in
জেলা সদর থেকে শুরু করে সর্বত্র সংক্রমণের ছড়াছড়ি :

.

শুক্রবার রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী, মেদিনীপুর শহরের সংক্রমিত ৪৫ জনের মধ্যে সর্বাধিক উল্লেখযোগ্য হল, জেলা স্বাস্থ্য ভবনের এক গ্রুপ ডি কর্মী (৫৮), যিনি মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ নিমাই চন্দ্র মন্ডলের রুমের বাইরেই বসতেন। তবে, তিনি উপসর্গহীন এবং নিজের বাড়িতে আইশোলেশনে আছেন। সম্প্রতি, স্বাস্থ্য ভবনের একটি গাড়ির চালকের রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর, ওই কর্মী তার সংস্পর্শে এসেছিলেন বলেই, তিনি অ্যান্টিজেন টেস্ট করিয়েছিলেন, গতকাল (শুক্রবার) সেই রিপোর্ট পজিটিভ আসে। উল্লেখ্য যে, গত বুধবার (৯ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য ভবনের জেডএলও (Zonal Leprosy Officer) বা কুষ্ঠ পরিষেবা বিষয়ক আধিকারিকের (৫৫) রিপোর্টও পজিটিভ এসেছিল, তিনিও উপসর্গহীন হওয়ায় গৃহ নিভৃতবাসে আছেন। এদিকে, মেদিনীপুর শহরের বিবিগঞ্জ নিবাসী এক কংগ্রেস নেতা’র (৬৫) রিপোর্ট এদিন পজিটিভ এসেছে বলে জানা যায়। দলীয় সূত্রে খবর, তিনি স্বল্প উপসর্গ যুক্ত। এছাড়াও, শহরের তাঁতিগেড়িয়ার এক প্রৌঢ় (৬৮), মীরবাজারের এক প্রৌঢ় (৬২), মিত্র কম্পাউন্ডের এক প্রৌঢ়া (৬৫) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। পুলিশ লাইনের এক প্রৌঢ় (৫৪) এবং ডাকবাংলো রোডের এক প্রৌঢ়া (৫৪)’র রিপোর্টও পজিটিভ এসেছে শুক্রবার রাতে। বটতলা সংলগ্ন হর্ষণদিঘীর এক মহিলা (৩০) সহ মোট ৬ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের সেন্ট্রাল ল্যাবরেটরির এক কর্মীসহ বয়েজ হোস্টেলের এক ইন্টার্নের (২২) শরীরেও পাওয়া গেছে করোনা ভাইরাসের জীবাণু। অপরদিকে, অ্যান্টিজেন পরীক্ষার রিপোর্টে মেদিনীপুর শহরে মোট ৩৬ টি পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। শহরের, কোতবাজার সংলগ্ন হাতারমাঠ এলাকায় একই পরিবারের ৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। রাঙামাটিতেও একই পরিবারের ৪ জন সহ ওই এলাকায় আরো ১ জন বৃদ্ধার (৮০) কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। মির্জাবাজারে একই পরিবারের ২ বছরের শিশু এবং তার বাবা-মা’র রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানা গেছে। শহরের গেটবাজার সংলগ্ন ডাকবাংলো রোডেও একসঙ্গে একই পরিবারের দুই কিশোরী সহ তাদের বা-মা এর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। সিপাইবাজার এলাকায় এক মাঝবয়স্ক ব্যক্তি (৪৬) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। শহর সংলগ্ন গোলাপীচকে এক মহিলার (৩৮) এবং গোপগড় এলাকায় এক কিশোরের (৮) করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। মাইকেলমধুসুদন নগরে এক কিশোর (১৫) করোানায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা য‍ায়। এছাড়াও, শহরতলিতে মুন্সিপাটনা, পাঁচখুরি, বীরসিংহপুর সহ বিভিন্ন এলাকায় মোট ১০ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

thebengalpost.in
শহর থেকে গ্রাম সর্বত্র সংক্রমণ :

.

অপরদিকে, ডেবরা এলাকায় ফের ১১ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। ডেবরার দুর্গাপু্র এলাকায় একই পরিবারের ৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়াও বারাতি, বালিচক, জামনা, জালিমন্দা সহ ডেবরা টোলপ্লাজার এক কর্মী (৫৮) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। গড়বেতায় ৮ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ ঘটে বলে জানা যায়। গড়বেতার আমলাগোড়ায় একটি পরিবারের ৩ জন এবং ধবনি, রাধানগর, হলদিনালা, ফতেসিংপুর এলাকায় একজন করে মোট ৪ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। ঘাটালের ১২ নম্বর ওয়ার্ডের নিশ্চিন্তপুরের ১জন, ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের কুশপাতা এলাকায় একই পরিবারের ২ জন সহ মোট ৩ জন করোনায় আক্রান্ত হন। ক্ষীরপাইয়ের গোপালপুর, ধরমপুর, সীতাশোল, জাড়া প্রভৃতি এলাকা সহ মোট ৫ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। বেলদা, নারায়ণগড়, কেশিয়াড়ি মিলিয়ে প্রায় ১৭ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানা যায় স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে। বেলদার সাউরি সংলগ্ন লালপুরে ২ জন, কোঠবাড়ে একই পরিবারের ৪ জন, সাউরি সংলগ্ন নাহানজোরা এলাকায় ১ জন, বড়মাতকাতপুরের একই পরিবারের ৩ জন, নবোদয়পল্লীর ১ জন সহ মোট ১৫ জন এবং কেশিয়াড়ির ২ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এদিকে, গোয়ালতোড় থানা (৫১) ও সবং থানায় (৩২) ফের একজন করে পুলিশকর্মী করোনা সংক্রমিত হয়েছেন।‌ এছাড়াও গোয়ালতোড়ে আরো একজন ব্যক্তি (৬০) এবং শালবনীর এক মহিলা’র (৪১) রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে এদিন। কেশপুরের মহিষদা এলাকায় ২ জন এবং শ্যামচাঁদপুর এলাকায় ১ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এছাড়াও, দাঁতন ও দাসপুর এলাকাতে একাধিক ব্যক্তি করোনা সংক্রমিত হয়েছেন বলে জানা গেছে স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে।

thebengalpost.in
সংক্রমণের গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী :

এদিকে, রেলশহর খড়্গপুরে মোট ৪৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। আইআইটি ক্য‍াম্পাসের ২ জন ( ৪২ বছরের মহিলা ও ১৩ বছরের কিশোরী) সহ খড়্গপুর শহরের মালঞ্চ , সালু্য়া সি.আই.টি. ক্যাম্প, খড়্গপুর সংলগ্ন রুপনারায়নপুর এলাকায় মোট ৬ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। রেলশহরের ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের কৌশল্যা এলাকায় একই পরিবারের ৩ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণের হদিশ মেলে। ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের সাঁজোয়াল এলাকায় একই পরিবারের ২ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ৯ নম্বর ওয়ার্ডের খরিদা সংলগ্ন কুমোরপাড়া এলাকায় পরিবারের ২ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ২নম্বর ওয়ার্ডের ইন্দায় এক প্রৌঢ়ের করোনা সংক্রমণ ঘটে। খড়্গপুর লোকালের বলরামপুর সংলগ্ন কশবা এলাকায় এক মাঝ বয়স্ক ব্যক্তি (৪৩), ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের ওল্ড সেটেলমেন্ট এলাকায় এক বৃদ্ধ (৭৩), সাউথ সাইডের রেলের আবাসনের ২ জন সহ ৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। এছাড়াও ইন্দার বিদ্যাসাগরপল্লীতে ১ জন, ভবানীপুরের ১ জন, শ্রীকৃষ্ণপুরের ৩ জন, খড়্গপুরের জি.আর.পিএর ৩ জন, ছোট ট্যাংরার ১ জন , পাঁচবেড়িয়ার ১জন ও কৌশল্যার ১ জন সহ মোট বিভিন্ন এলাকায় ১৮ জন করোনায় আক্রান্ত হন। আর.টি.পি.সি.আরের রিপোর্ট অনুযায়ী ৫ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এর মধ্যে রয়েছেন ৯ নম্বর ওয়ার্ডের খরিদার ১ জন, নিউ সেটেলমেন্ট এলাকার হরিজনবস্তির ১ জন, সাউথ সাইড রেল আবাসনের ২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। পশ্চিম মেদিনীপুরে সবমিলিয়ে ১৬৩ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। যার মধ্যে অধিকাংশ জন উপসর্গহীন (Asymptomatic) হলেও, স্বাস্থ্য দপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, জ্বর, সর্দি-কাশি, গা হাত পা ব্যথা’র উপসর্গ ছাড়াও বেশ কয়েকজনের মাথাব্যথার উপসর্গও পাওয়া গেছে। উপসর্গহীন ছাড়া বাকিদের করোনা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।
***অরো পড়ুন : শালবনী করোনা হাসপাতালের সমস্ত বেডে অক্সিজেন, মেদিনীপুর মেডিক্যালেও নানা পরিষেবা, পজিটিভ প্রসূতি’র প্রসব এবার ঘাটালেও….

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে