মেদিনীপুর শহরে ৩৪, জেলায় ১৫৩, সপরিবারে সংক্রমিত মেদিনীপুর রেঞ্জের ডিআইজি, গোয়ালতোড় থানা করোনা’র কবলে, সবং থেকে শালবনী সর্বত্র সংক্রমণ

Corona Infected DIG Midnapore Range and his family

.

মণিরাজ ঘোষ, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১১ সেপ্টেম্বর: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দফতরের বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাতের রিপোর্ট (র‌্যাপিড অ্যন্টিজেন ও আরটি-পিসিআর) অনুযায়ী, জেলায় সর্বমোট সংক্রমিতের সংখ্যা ১৫৩। এর মধ্যে র‌্যাপিড অ্যান্টিজেনে ১৩২ জন এবং মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের আরটি-পিসিআর অনুযায়ী ২১ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বৃহস্পতিবার রাতে। এই তালিকায় আবারো একবার, শীর্ষস্থানীয় পুলিশ আধিকারিক সহ প্রথম সারির একাধিক করোনা যোদ্ধারা আছেন। মেদিনীপুর রেঞ্জের ডিআইজি (Deputy Inspector General, Midnapore Range) আইপিএস ভি. সোলেমান নিশাকুমার সপরিবারে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। তিনি (৪১), তাঁর স্ত্রী (৪০) এবং কন্যার (১১) রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বৃহস্পতিবার রাতে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের আরটি-পিসিআর রিপোর্ট অনুযায়ী। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, মৃদু উপসর্গ যুক্ত (Mild Symptomatic) হওয়ায় গত ৯ সেপ্টেম্বর ডিআইজি সপরিবারে খড়্গপুর মহকুমা হাসপাতালে র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট করিয়েছিলেন। তাঁদের তিনজনের রিপোর্টই পজিটিভ এসেছিল। এরপর, নিশ্চিত হওয়ার জন্য তিনি মেদিনীপুর শহরের একটি আইসিএমআর অনুমোদিত বেসরকারি হাসপাতালের ল্যাবরেটরি’তে গত ১০ সেপ্টেম্বর আরটি-পিসিআর (ট্রুনেট মেসিন দ্বারা সম্পন্ন হওয়া) পরীক্ষা করানোর সিদ্ধান্ত নেন এবং তাতে দেখা যায় ডিআইজি এবং তাঁর কন্যা’র রিপোর্ট নেগেটিভ, শুধুমাত্র স্ত্রী’র রিপোর্ট পজিটিভ! এরপরই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে সংশ্লিষ্ট মহলে। নিয়মানুযায়ী এটা হওয়ার কথা নয়, কারণ র‌্যাপিড অ্যান্টিজেনে পজিটিভ হলে আরটি-পিসিআরে পজিটিভ হওয়ার কথা একশো শতাংশ, না হলেও ৯৯.৯৯ শতাংশ! কিন্তু, নেগেটিভ হলে এবং উপসর্গ থাকলে ফের আরটি-পিসিআর করানো হয় নিশ্চিত হওয়ার জন্য। কারণ, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন কিট প্রধান ভাইরাস ঘটিত উপাদানটিকে চিহ্নিত করতে পারলেও, সব উপাদানগুলি চিহ্নিত করতে পারতে, যা RT-PCR (Reverse Transcription Polymerase Chain Reaction) পারে। তা সত্বেও উল্টো ফল আসায় তিনি সরকারি ল্যাবরেটরি’র সহায়তা নেন। তাতে দেখা যায়, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেনের রিপোর্ট সঠিক ছিল, অর্থাৎ তিনজনের রিপোর্টই পজিটিভ।

thebengalpost.in
জেলাজুড়ে ফের বিপুল সংক্রমণ :

.
.

এদিকে, মেদিনীপুর শহর ও শহরতলীতে ফের ৩৪ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। মেদিনীপুর শহর সংলগ্ন কেরানীচটি এলাকায় এক যুবকের (১৮) করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে গতকাল রাতে। অশোকনগরে এক যুবক (২৫), উদয়পল্লী এলাকার এক ব্যক্তি (৩৫) এবং এক প্রৌঢ় (৫৩) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। এদিকে, অ্যন্টিজেন পরীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী শহরে আরো ৩০ জন কোভিড ১৯ আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। মেদিনীপুর শহরের পাটনাবাজারের এক মাঝবয়স্ক ব্যক্তির (৪৫) করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। মিঞাবাজারের এক গৃহবধূ (২৯) করোনা সংক্রমিত বলে জানা যায়। নজরগঞ্জ এলাকার ৩ জনের (পুরুষ-৪০, প্রৌঢ়-৫৬, যুবতী-২৮) দেহে পাওয়া গেছে করোনার জীবাণু। এছাড়াও, কোতোয়ালী থানার অন্তর্গত, গোপগড় এলাকায় এক ব্যক্তির (৪০) করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে জেলা স্বাস্থ্য দফতরের বৃহস্পতিবারের রিপোর্ট অনুযায়ী। শহরের রাঙামাটিতে ২ জনের (পুরুষ-৪২, যুবক-২০) রিপোর্ট নতুন করে পজিটিভ এসেছে। শহরের উপকণ্ঠে গোলাপীচকে এক যুবক (৩০) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন বলে জানা যায়। মেদিনীপুর পুলিশলাইনে কর্মরত ৫ জন পুলিশকর্মী’র করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে নতুন করে। এছাড়াও, মেদিনীপুর শহরের বল্লভপুরের ১ জন (বৃদ্ধ-৬২), বাড়মানিকপুরের ১জন (বৃদ্ধ-৬৬) ও ত‍াঁতিগেড়িয়ার টাউনকলোনীর ১জন (মহিলা-৩৮) সহ মোট ৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়াও, কোতোয়ালীর অধীনে শহর ও শহরতলিতে আরো ১১ জন সহ মোট ৩৪ জন এদিন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায় জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে।

thebengalpost.in
জেলাজুড়ে ফের বিপুল সংক্রমণ :

.

অপরদিকে, বৃহস্পতিবারের রিপোর্টে খড়্গপুরে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২৬। রেলশহরের ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের আরামবাটির নিমপুরা এলাকায় এক বৃদ্ধা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। খড়্গপুরের দক্ষিণ ইন্দা এলাকার এক বৃদ্ধা (৬৭), মালঞ্চ সংলগ্ন ঝাড়েশ্বর মন্দিরের সন্নিকটে এক মহিলা (৩৫) সহ ওল্ড সেটেলমেন্ট এলাকার এক মহিলা (৪৩) সহ মোট ৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। খড়্গপুর রেল পুলিশের (জি.আর.পি অফিসে) এক জওয়ান (৩৬) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। রেলশহরের ইন্দার পাঁচবেড়িয়ায় এক মাঝ বয়স্ক ব্যক্তির (৪২) করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে বলে জানা য‍ায়। তালবাগিচার ডিভিসি এর মায়াপুর এলাকার এক প্রৌঢ়া (৫৪) করোনায় আক্র‍ান্ত হন।সালুয়ার ট্রেনিং ক্যাম্পে একসঙ্গে ৫ জন জওয়ানের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। রেলশহরের ১ নম্বর ওয়ার্ডের জফলা সংলগ্ন সারদাপল্লী এলাকায় এক প্রৌঢ়া (৫২) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। আর.টি-পি.সি.আরের রিপোর্ট অনুযায়ী রেলশহরে ১৩ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ ঘটে। ইন্দায় এক মাঝ বয়স্ক ব্যক্তি (৪৮) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। সাউথ সাইডের রেল আবাসনে এক প্রৌঢ় (৫৩) সহ এক যুবক (৩২) এর শরীরে করোনার সংক্রমণ ঘটে। খরিদার তেঘরি সংলগ্ন সাঁতরাপাড়া এলাকায় একই পরিবারের ২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়াও নিউ ট্রাফিকের রেল আবাসন, সাউথ সাইডের রেল আবাসনে মোট ৫ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ মেলে। অপরদিকে, সবংয়ের তালুকপাইকান গ্রামের এক ২৭ বছরের যুবকসহ তেমাথানি সংলগ্ন লুটুনিয়া এলাকায় একই পরিবারের ২ জন (মহিলা-৪৫ ও বৃদ্ধ৬১) সহ মোট ৩ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। দাঁতনের ধলহারায় (নেকুড়সুণি) একই পরিবারের ২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। এছাড়াও দাঁতনের খানিপুর এলাকায় এক মহিলার (৩২) করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ঘাটালে নতুন করে মোট ৯ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায় জেলা স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্ট অনুযায়ী। ঘাটালের কুশপাতা এলাকায় এক প্রৌঢ়া (৫৪) করোনায় আক্রান্ত হন। ঘাটালের ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের কুশপাতায় ১ জন ,১১ নম্বর ওয়ার্ডের নিশ্চিন্তপুর এলাকার ১ জন, ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কোন্নগর এলাকার ২ জন সহ বিভিন্ন এলাকায় করোনা আক্রান্তের হদিশ মেলে। ডেবরায় ২ জনের কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানা যায় জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে। ডেবরার শ্যামচকে এক মাঝ বয়স্ক ব্যক্তি (৪৩) সহ ডিঙ্গলের এক প্রৌঢ় (৪৯) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। অ্যন্টিজেন পরীক্ষায় চন্দ্রকোনার মিত্রসেনপুরে এক বৃদ্ধা (৭৮) সহ ১৮ বছর বয়সী এক যুবতীর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বৃহস্পতিবার। কৃষ্ণপুর সংলগ্ন চৈতন্যপুর এলাকায় এক যুবতী (২০) করোনায় অ‍াক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়।দাসপুরে ১২ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ ঘটে বলে জানা যায়। দাসপুরের রসিকগঞ্জ এলাকার একসঙ্গে ১২ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এই এলাকায় গোষ্ঠী সংক্রমণ হয়েছে কিনা তা নিয়ে আশঙ্কায় রয়েছে জেলা স্বাস্থ্য দফতর। ক্ষীরপাই বসন্তপুর এলাকাতেও একাধিক ব্যক্তি করোনার সংক্রমিত হয়েছেন গতকাল। বেলদার নবোদয়পল্লীর ১জন, বড়মাতকাতপুরের ১ জন ,খাকুড়দার বড়মোহনপুরের ১ জন, নয়াগাঁওয়ের ২ জন ও মহম্মদপুরের ১ জন সহ মোট ৬ জনের শরীরে করোনার জীবাণু পাওয়া গেছে। চন্দ্রকোনা রোডের সাতবাঁকুড়ার সরবেড়িয়ায় ২ মহিলা (৩০ও৫৩) করোন‍ায় আক্রান্ত হয়েছেন। গড়বেতার লাপুরিয়া সহ বিভিন্ন এলাকায় মোট ৩জনের (যুবক-২০, বৃদ্ধা-৫৩, বৃদ্ধা-৬৫) শরীরে করোনা সংক্রমণ ঘটে।আমলাগোড়া সংলগ্ন রাধানগর এলাকাতেও এক বৃদ্ধা (৬৫) এর কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। শালবনীর দেবগ্রামে ফের এক ব্যক্তি (৪২)’র রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এদিকে, ঘাটাল থানার ওসি দেবাংশু ভৌমিক (৪১) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। সবং থানায় ফের এক পুলিশকর্মী’র (৫২) রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে এবং গোয়ালতোড় থানায় একসঙ্গে ৭ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এর মধ্যে ৫ জন পুলিশকর্মী ও ২ জন সিভিক ভলেন্টিয়ার বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য যে, এর আগেরদিনও (বুধবার) গোয়ালতোড় থানার দুই পুলিশকর্মী করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। ফলে, বেলদা ও সবং থানার মতো এবার গোয়ালতোড় থানাও করোনা সংক্রমণের কবলে পড়েছে। যদিও, সারা রাজ্য এবং জেলাতে স্বাস্থ্যকর্মী এবং পুলিশকর্মীরা বিপুলহারেই সংক্রমিত হচ্ছেন, সাধারণ মানুষকে পরিষেবা দিতে গিয়ে। জেলা স্বাস্থ্য ভবন সূত্রে জানা যায়, আক্রান্তদের অধিকাংশই উপসর্গহীন, তবে বেশ কিছু সংখ্যকের শরীরে মৃদু ও ভারি উপসর্গ রয়েছে; তাঁদের ইতিমধ্যে করোনা হাসপাতালে পাঠানোও হয়েছে। উপসর্গহীন’দের নিয়ে এই মুহূর্তে কোনো চিন্তা না থাকলেও, উপসর্গযুক্তদের চিকিৎসার উপর জোর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে।
*আরো পড়ুন: করোনা সংক্রমিত কলকাতা পুলিশ কমিশনার ও ঘাটাল থানার ওসি….

thebengalpost.in
সংক্রমিত ঘাটাল থানার ওসি দেবাংশু ভৌমিক :

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে