মেদিনীপুর থেকে শালবনী, খড়্গপুর থেকে গোয়ালতোড় ফের সংক্রমণের দৌরাত্ম্য, আক্রান্ত একাধিক করোনা যোদ্ধা

Increasing corona in everywhere of Paschim Medinipur

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১০ সেপ্টেম্বর: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা জুড়ে করোনা সংক্রমণের দৌরাত্ম্য সমানে চলেছে! সংক্রমণ নিয়ে আতঙ্ক বা ভীতি ছড়ানোর উদ্দেশ্য না নিয়েও বলতে হয়, একের পর এক চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, প্রশাসনিক কর্মী ও পুলিশকর্মী’দের আক্রান্ত হওয়ার ও মৃত্যু’র খবর বর্তমান পরিস্থিতিতে এক কঠিন বার্তা নিয়ে আসছে। পরিষেবা দিতে গিয়েই আক্রান্ত হচ্ছেন- আমলা, আধিকারিক, চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ থেকে শুরু করে জরুরী পরিষেবা সঙ্গে যুক্ত গ্রুপ-ডি কর্মী থেকে সাফাই কর্মী ও গাড়ি চালকরা। অনেকে দুর্ভাগ্যজনকভাবে মৃত্যুর কোলেও ঢলে পড়ছেন! হয়তো সুস্থতার সংখ্যা অনেক অনেক বেশি, তা সত্বেও রহস্যময় এই ভাইরাসের কবলে, স্বাস্থ্য পরিষেবা থেকে শুরু করে যেকোনো পরিষেবাই যে ধাক্কা খাচ্ছে তা বলাই বাহুল্য! শুধু করোনা সংক্রমিতরাই নয়, সাধারণ রোগী থেকে সুস্থ মানুষ, চিকিৎসা পরিষেবা থেকে শুরু করে অন্যান্য যেকোনো ধরনের পরিষেবা পাওয়ার ক্ষেত্রে নানা অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছেন। করোনা পরিস্থিতির শুরুতে মার্চ মাস থেকে যে ভয়টা করা হচ্ছিল, আনলক পর্বের এই শেষ সময়ে ভুক্তভোগীরা তা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন! অথচ, সুস্থ ও সাধারণ মানুষের মধ্যে এখনও সচেতনতার অভাব! আর এসব নিয়েই এগিয়ে চলা সামনের দিকে। জেলা স্বাস্থ্য দফতরের বুধবার রাতের (৯ সেপ্টেম্বর) অ্যন্টিজেন ও আর.টি.পি.সি.আরের রিপোর্ট অনুযায়ী পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় মোট ১৭২ জনের (আর.টি.পি.সি.আর-৫১ ও অ্যন্টিজেন-১২১) করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এর মধ্যে মেদিনীপুর শহর ও শহরতলীর ৩০ জন ছাড়াও খড়্গপুর, ডেবরা, সবং, ঘাটাল, গোয়ালতোড়, চন্দ্রকোনা, শালবনী, দাঁতন, বেলদা প্রকৃতি এলাকা থেকেও সংক্রমণের একাধিক খবর পাওয়া গেছে।

.
thebengalpost.in
মেদিনীপুর, খড়্গপুর সহ সারা জেলাতেই সংক্রমণের দৌরাত্ম্য :

আর.টি.পি.আর পরীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী মেদিনীপুর শহরে ৫ জন সংক্রমিত হয়েছেন বলে জানা যায়। কোতোয়ালীর অধীনে সাহাভড়ংবাজারে এক মহিলা (৫২) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। শহরের বল্লভপুর এলাকায় এক বৃদ্ধের (৬৪) রিপোর্টও এদিন পজিটিভ এসেছে। মেদিনীপুরের স্টেশন রোড সংলগ্ন মিত্র কম্পাউন্ড এলাকাতেও এক মহিলা (৩৫) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। এছাড়াও, শহরের ক্ষুদিরামনগরে এক কিশোর (৭) সহ শহরতলির বাড়ুয়ায় ১ জন বৃদ্ধা (৬৬) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। অ্যন্টিজেন পরীক্ষার রিপোর্টে মেদিনীপুরে মোট ২৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। শহরের বল্লভপুরের এক যুবক (৩৩) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। মেদিনীপুর পুলিশ লাইনে করোনা যুদ্ধের প্রথম সারির এক করোনা যোদ্ধা তথা এক পুলিশকর্মীর (৩১) করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে এদিন। ত‍াঁতিগেড়িয়া ‍এলাকায় এক (৪০) ব্যক্তির করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। কোতোয়ালীর অধীনে বিদ্যাসাগরপল্লীতে এক যুবক (২৫) এবং মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারের এক যুবকও (৩২) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায় জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে। জগন্নাথমন্দির সংলগ্ন পাহাড়ীপুর এলাকায় এক যুবকের (৩২) কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বুধবার। ক্ষুদিরামনগরের এক বৃদ্ধা (৬৮) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। মির্জাবাজার এলাকায় এক যুবতী (২৬) সহ এক প্রৌঢ়ের (৫৫) করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এছাড়াও, বটতলাচক সংলগ্ন এলাকায় এক যুবক (২৪) এবং কুইকোটার ১ যুবতী (২৫), মির্জাবাজারে ৩ জন (প্রৌঢ়-৫৫, প্রৌঢ়া-৫০, যুবক-৩২) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। মেদিনীপুর শহরতলির গুড়গুড়িপালের চাঁদড়ার দেপাড়া এলাকার এক ব্যক্তি (৩৫), এল্লাবনীর গজপাতিয়া এলাকার এক ব্যক্তি (৫০) ও গুড়গুড়িপাল থানার অধীনে চাঁদড়ার ১ জন সহ মোট ৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়। অপরদিকে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্যভবনের একজন আধিকারিক (জেড এল ও, Zonal Leprosy Officer) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। স্বাস্থ্য ভবন সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি এই আধিকারিকের (৫৫) গাড়ির চালক করোনা সংক্রামিত হয়েছিলেন, সেই সূত্রে গতকাল তাঁর রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানা গেছে। যদিও, এই আধিকারিক উপসর্গহীন বলে জানা গেছে। এই মুহূর্তে তিনি গৃহ নিভৃতবাসে আছেন বলে জানা গেছে।

.
thebengalpost.in
মেদিনীপুর, খড়্গপুর সহ সারা জেলাতেই সংক্রমণের দৌরাত্ম্য :

এদিকে, গোয়ালতোড় থানার একজন মহিলা পুলিশ কর্মী (৩০) ও একজন পুরুষ পুলিশ কর্মী (৩২) ছাড়াও কাদোশোল এলাকার এক মহিলা (৩৫), হুমগড়ের এক ব্যক্তি (৩৭) সহ গড়বেতা ১ নং ব্লকের ৪ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন এবং চারজনই সর্দি কাশির উপসর্গযুক্ত বলে জানা গেছে স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে। শালবনীর দেবগ্রামের এক ব্যক্তি (৩২)’র করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। তবে, তিনি উপসর্গহীন হওয়ায় গৃহ নিভৃতবাসে আছেন বলে জানা গেছে স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে। শালবনীর আরো এক ব্যক্তি (৫০)’র রিপোর্ট অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় পজিটিভ এসেছে বলে জানা গেছে। কেশপুরের মোহবনী, পিয়াশালা, আনন্দপুর (২ জন) মিলিয়ে চারজনের রিপোর্ট ফের পজিটিভ এসেছে। এদিকে, অ্যান্টিজেন ও আরটিপিসিআর মিলিয়ে, ডেবরা ব্লকে প্রায় ২৩ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানা গেছে। ডেবরা বাজার, রাতারপুর সুলতানপুর, বড়গড়, রাধামোহনপুর সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে সংক্রমিতদের সন্ধান পাওয়া গেছে। সবং এর নিশ্চিন্তিপুর, মুন্ডুমারী এবং পিংলা মিলিয়ে ৩ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। অন্যদিকে, অ্যান্টিজেন ও আরটিপিসিআর এর রিপোর্ট অনুযায়ী, আইআইটি ক্যাম্পাসের দুই কর্মী সহ শহর ও শহরতলী মিলিয়ে প্রায় ৪৫ জন সংক্রমিত হয়েছেন ‘রেলশহর’ খরগোপুর এলাকায়। ক্ষীরপাই, দাসপুর ও ঘাটাল মিলিয়ে এদিনও প্রায় ১০ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। দাঁতন, বেলদা ও মোহনপুর থেকেও একাধিক সংক্রমিতদের সন্ধান পাওয়া গেছে।
***আরো পড়ুন: মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ সংক্রমিত…

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে