ষষ্ঠী’তে বৃষ্টি আসুক বা না আসুক, তৃতীয়াতে করোনা ঝড় মেদিনীপুরে! সাবধান থাকুন খড়্গপুরও, দ্বিতীয়া-তৃতীয়া মিলিয়ে ২৩৫ জন সংক্রমিত পশ্চিম মেদিনীপুরে

thebengalpost.in
জীবাণুমুক্ত করা হল মেদিনীপুরের পুজো মণ্ডপ গুলি :
.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ২০ অক্টোবর পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে পাওয়া সোমবার (১৯ অক্টোবর) রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী, জেলায় নতুন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ১২৮ জন। ফলে, দ্বিতীয়া ও তৃতীয়া মিলিয়ে মোট সংক্রমিত হলেন ২৩৫ (১০৭ ও ১২৮) জন। সোমবার পর্যন্ত, জেলায় মোট করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা হল, ১২৮১৬ এবং চিকিৎসাধীন আক্রান্তের সংখ্যা ১২৮৯ জন।‌ সুস্থতার হার ৮৮ শতাংশ। গত চব্বিশ ঘণ্টাতেও নতুন করে মৃত্যুর খবর নেই। ঘাটাল, দাঁতন, গড়বেতা, ডেবরা, শালবনী, সবং, গড়বেতা, চন্দ্রকোনা ‌সহ গ্রামীণ সমস্ত এলাকাতেই সংক্রমণ অনেকটা নিয়ন্ত্রণে এসেছে। তবে, করোনা দাপট অব্যাহত মেদিনীপুর ও খড়্গপুরে। গত দু’দিনে মেদিনীপুরে সংক্রমিত হয়েছেন ৫৭ (১৮ ও ৩৯) জন‌ এবং খড়্গপুরে ৩৮ (২৩ ও ১৫) জন।

thebengalpost.in
শালবনীতে আরো ২০ টি ফিমেল HDU নিয়ে উন্নত পরিষেবা :

.
.

রবিবার, অর্থাৎ ১৮ অক্টোবর রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী মেদিনীপুর শহরে করোনা সংক্রমিত হয়েছিলেন ১৮ জন।‌ শহরের হবিবপুরে সংক্রমণের ধারা অব্যাহত রেখে এদিনও ৩ জন (50m, 20m, 62f) সংক্রমিত হয়েছেন। আবাসে এক বৃদ্ধ দম্পতি (৭১ ও ৫১) ছাড়াও আরো এক প্রৌঢ় (৭৫) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। তোলাপাড়াতেও একই পরিবারের ২ জন (47f, 24m) এর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে রবিবার রাতে। কুইকোটা (32 f), মহতাবপুর (42f), তাঁতিগেড়িয়া (22f), কর্নেলগোলা (53f), পালবাড়ি (32m) থেকেও সংক্রমিতের সন্ধান পাওয়া গেছে। এছাড়াও, গুড়গুড়িপাল থানা এলাকায় এক মহিলা (৪৮) এবং কোতোয়ালি থানা এলাকায় আরো ৪ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। অপরদিকে, সোমবার (১৯ অক্টোবর) রাতের রিপোর্ট অনুযায়ী মেদিনীপুর শহরে ৩৯ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। তৃতীয়ার দিনও যেভাবে পরিবার থেকে গোষ্ঠী সংক্রমণের চিত্র ফুটে উঠেছে, তাতে পুজোতে বৃষ্টি আসুক বা না আসুক সচেতন ও সতর্ক থাকা যে বাঞ্ছনীয়, তা বলাই বাহুল্য! মেদিনীপুর শহরের এই মুহূর্তে সর্বাধিক সংক্রমণ-প্রবন এলাকা শরৎপল্লীতে একই পরিবারের ৩ জন (70f, 46m, 13f) ছাড়াও আরো এক প্রৌঢ় (৬২) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। খাপ্রেলবাজার এলাকায় দু’জন (৮২ বছরের প্রৌঢ় ও ৩৮ বছরের যুবক) এর রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে সোমবার রাতে। সুভাষনগর এলাকার এক দম্পতি (৬৫ ও ৫০), তোলাপাড়া এলাকার এক দম্পতি (৪৯ ও ৪২) কেরানীটোলার এক দম্পতি (৬৪ ও ৫৬) করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়াও, গোলকুঁয়াররচক (68m), হাতারমাঠ (61 m), মির্জাবাজার (64m) এলাকার ৩ জন প্রবীণ, ধর্মা-রামকৃষ্ণ নগরের এক নবীন (২০) এবং রাঙামাটির এক শিশু (৬) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। শহরতলীর মালিয়াড়া তে একই পরিবারের ৩ জন সহ মোট ৪ জন, বাসন্তীতলায় একই পরিবারের ২ জন সহ মোট ৩ জন এবং ইরিশপুরে ১ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। কোতোয়ালি থানা এলাকায় সোমবার, তৃতীয়ার দিন আরো ১৪ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। সবমিলিয়ে সংক্রমিত ৩৯।

thebengalpost.in
মেদিনীপুর ও খড়্গপুরে সংক্রমণ অব্যাহত :

.

এদিকে, রেলশহরে সংক্রমণ কিছুটা স্তিমিত হলেও, গত দু’দিনে ৪৮ জনের সংক্রমণ বলে দিচ্ছে সাবধান থাকতে হবে খড়্গপুরকেও। বিশেষত, ইন্দা থেকে শুরু হয়ে কৌশল্যা, সুভাষপল্লী, খরিদা, মালঞ্চ, সোনামুখী, তালবাগিচা, হিজলী কিংবা আইআইটি ক্যাম্পাসে গোষ্ঠী সংক্রমণ নিয়ে দ্বিমত নেই! রবিবার সুভাষপল্লী ভবানীপুর, খরিদা, সোনামুখী তালঝুলি এবং রেল সূত্রে ২ জন ছাড়াও সাদাতপুর পুলিশ ফাঁড়ির ৪ জন এবং টাউন থানার আইসি রাজা মুখার্জি (৪৬) সহ মোট ২৩ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। অপরদিকে, সোমবার (১৯ অক্টোবর) সংক্রমিত হয়েছেন ১৫ জন। এর মধ্যে আইআইটি ক্যাম্পাসেরই ৫ জন। এছাড়াও তালবাগিচা, খরিদা, মালঞ্চ, আনন্দনগর সোনামুখী প্রভৃতি এলাকাতেও করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১ জন করে। সবমিলিয়ে সংক্রমিত ১৫ জন। গ্রামীণ এলাকায় সংক্রমণ বেশ খানিকটা কমেছে।‌ তবে, গত দু’দিনে ঘাটাল, দাসপুর, ক্ষীরপাই সহ ঘাটাল মহকুমায় বেশ কয়েকজন সংক্রমিত হয়েছেন। গড়বেতার ধাদিকায় সোমবার একই পরিবারের ৩ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন।‌ শালবনী, সবং, গোয়ালতোড়, বেলদা, দাঁতন চন্দ্রকোনা প্রভৃতি এলাকায় সংক্রমিত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। সর্বোপরি, করোনা প্রতিরোধে জেলা পুলিশ প্রশাসনের সাথে সাথে সাধারণ মানুষকেও যে পুজোর এই ক’দিন সতর্ক থাকতে হবে, তা বলাই বাহুল্য!
***আরো পড়ুন: মেদিনীপুর দমকল বাহিনীর প্রশিক্ষণ ও জীবাণুমুক্ত করণ……

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে