শূন্য নবান্নে বিজেপি’র অভিযান! মেদিনীপুর থেকে কলকাতা, হুঙ্কার পুলিশের বিরুদ্ধে

thebengalpost.in
মেদিনীপুর থেকে হুঙ্কার পুলিশের বিরুদ্ধে :
.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট বিশেষ প্রতিবেদন, ৮ অক্টোবর: ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার ডাকে আজ বিজেপি’র নবান্ন অভিযান। আগের দিন সন্ধ্যাতেই টিম মমতা’র কৌশলী সিদ্ধান্ত, জীবাণুমুক্ত (Sanitization) করার জন্য নবান্নের সমস্ত কাজকর্ম বন্ধ রাখা হবে, দু’দিন বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) ও শুক্রবার (৯ অক্টোবর)। যদিও, বিজেপি শিবির মুখ্যমন্ত্রী’র এই সিদ্ধান্তকে পরোক্ষে ‘ওয়াক-ওভার’ দেওয়া বা ‘সেম সাইড গোল’ খাওয়া হিসেবে তুলে ধরছেন। মেদিনীপুর থেকে কলকাতা সর্বত্র বিজেপি নেতারা বলছেন, ভয় পেয়ে নবান্নের দরজা বন্ধ করে দিলেন মমতা। বিজেপি’র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এক ধাপ এগিয়ে বললেন, “এমনিতেই বন্ধ হয়ে যাবে আগামী বছর থেকে, আগে থেকেই বন্ধ করে দিলেন!” দিলীপ ঘোষের এই ইঙ্গিতে অবশ্য ক্ষমতায় এলে, ‘নবান্ন’ থেকে সচিবালয় ‘মহাকরণে’ (রাইটার্স বিল্ডিংয়ে) ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার আভাসও পাওয়া গেছে। অপরদিকে, বিজেপি যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি সৌমিত্র খাঁ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই সিদ্ধান্ত’কে কটাক্ষ করে বলেন, “নবান্নের ৭০ শতাংশ কর্মীই এখন বিজেপি হয়ে গেছে। মুখ্যমন্ত্রী তা বুঝতে পেরেই নবান্ন বন্ধ করে দিলেন। নবান্ন খোলা থাকলে, বিজেপি’র মিছিল নবান্নে পৌঁছনোর আগেই নবান্নের কর্মীরা বিজেপি’র পতাকা নবান্নের ছাদে উড়িয়ে দিতেন!” প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই মুহূর্তে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উত্তরবঙ্গ সফরের পর দু’দিনের দক্ষিণবঙ্গ (পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম) সফর শেষে গতকাল রাতেই কলকাতায় ফিরেছেন। উন্নয়ন ও কর্মসংস্থানের নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে এলেও বন্ধ হয়ে থাকা এসএসসি (স্কুল সার্ভিস কমিশন) ও প্রাইমারি টেট নিয়ে একটিও শব্দ খরচ করেননি! এদিকে, স্বচ্ছ নিয়োগের দাবিতে মহামারী উপেক্ষা করেও পথে নেমেছেন, প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চাকরিপ্রার্থীরা। দুর্নীতির অভিযোগে, উচ্চ আদালতে (কলকাতা হাইকোর্টে) আটকে থাকা উচ্চ প্রাথমিক নিয়োগ নিয়েও সরকার ভয়ঙ্কর চাপে! আর, একেবারে সঠিক সময়ে সঠিক ইস্যুকে বেছে নিয়েই, বিজেপি যুব মোর্চা বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) পথে নামতে চলেছে। দুর্নীতিমুক্ত এস এস সি (SSC) ও প্রাইমারি টেট (TET) পরীক্ষার ব্যবস্থা করা, স্বচ্ছভাবে শিক্ষক নিয়োগ, পাবলিক সার্ভিস কমিশন’কে দুর্নীতিমুক্ত করা সহ মোট ৭ (সাত) দফা দাবিতে বিজেপি যুব মোর্চার নবান্ন অভিযান। কাজেই, নবান্ন নিজের ‘কানে তুলো চাপা’ (পড়ুন, দরজা বন্ধ) দেওয়ার চেষ্টা করলেও, আওয়াজ যে পৌঁছে যাবে শাসক থেকে রাজ্যের চাকরিপ্রার্থীদের কানে তা বলাই বাহুল্য!

thebengalpost.in
মেদিনীপুর থেকে হুঙ্কার পুলিশের বিরুদ্ধে :

.

অন্যদিকে, অশান্তি এড়ানোর তাগিদেই ‘নবান্ন’ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত’কে, অনেকেই মমতার মাস্ট্রারস্ট্রোক হিসেবে তুলে ধরতে চাইছেন। তাঁদের মতে, এই মুহূর্তে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর শিবির কোনোরকম অশান্তি বা রক্তারক্তির ঘটনা তৈরি হোক তা চাইছেন না! পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে যদি কোনো অবাঞ্ছিত ঘটনা ঘটে, তাতে যে বিজেপি শিবির হাতে বড় অস্ত্র পেয়ে যাবে, তা বলাই বাহুল্য! অপরদিকে, নবান্ন অভিযানের সমর্থনে গত দু’তিন ধরে মেদিনীপুর শহরে বিজেপি’র যে পথসভাগুলি অনুষ্ঠিত হয়েছে, তাতে পুলিশকে তুলোধোনা করেছে জেলা বিজেপি ও যুব মোর্চা নেতৃত্ব। শাসকদলের তোষামোদি করা এবং বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেওয়ার অভিযোগ তুলে পুলিশকে ‘তৃণমূলের চাকর’ বলে আক্রমণ করেন জেলা বিজেপি নেতৃত্ব। জেলা বিজেপি’র সহ-সভাপতি অরূপ দাস বলেন, “তৃণমূল নেতাদের যত পারুন চাকর বৃত্তি করুন। আমরাও লিস্ট করছি আপনাদের। ২০২১ এ এসে কাউকে কাউকে এমন জায়গায় পোস্টিং দেব, সকালে উঠে গরু-ছাগলের মুখ দেখতে হবে, পরিবারের মুখ দেখার আশা ছেড়ে দিতে হবে।” সুর চড়িয়ে পুলিশ’কে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন, যুব মোর্চার জেলা সভাপতি আশীর্বাদ ভৌমিক বলেন, “বাধা দিতে এলে পুলিশকে বাঁশ দিয়ে পেটানো হবে।” এদিকে, অভিযানের আগের রাতে, অর্থাৎ বুধবার রাতে কোতোয়ালি থানার পুলিশ মেদিনীপুর সেন্ট্রাল বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে বাস কর্মীদের হুমকি দেন বলে অভিযোগ করলেন বিজেপি নেতারা। জেলা সহ-সভাপতি অরূপ দাস বলেন, “কোতোয়ালি থানার আইসি পার্থসারথি পালের নেতৃত্বে বাস কর্মীদের হুমকি দেওয়া হয় বুধবার রাতে, বৃহস্পতিবার যাতে বাস না নিয়ে যান, সেজন্য।” সবকিছু মিলিয়ে, আগামীকালের নবান্ন অভিযান ঘিরে যে ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে শাসক-বিরোধী থেকে পুলিশবাহিন, তা বেশ ভালোই বোঝা যাচ্ছে; যতই নবান্ন বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হোক না কেন! ইতিমধ্যে, এই অভিযানে নেতৃত্ব দিতে কলকাতায় পৌঁছে গিয়েছেন, যুব মোর্চার সর্বভারতীয় সভাপতি তথা বেঙ্গালুরু দক্ষিণের সাংসদ তেজস্বী সূর্য। আগামীকালের অভিযানে নেতৃত্বে থাকবেন- দিলীপ ঘোষ, কৈলাস বিজয়বর্গীয়, মুকুল রায়, সৌমিত্র খাঁ, অরবিন্দ মেনন, সায়ন্তন বসু, দেবশ্রী চৌধুরী, লকেট চট্টোপাধ্যায়, রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় প্রমুখরাও।

.
.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে