“যশ” আসার আগেই দেড় মিনিটের টর্নেডোতে লন্ডভন্ড বাংলার দুটি শহর, “ল্যান্ডফলের আভাস” বললেন আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, কলকাতা, ২৫ মে : “যশ” আসার আগেই মাত্র দেড় মিনিটের টর্নেডোতে লন্ডভন্ড হল বাংলার দুটি শহর! আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের মতে, “সুপার সাইক্লোন আসার আগে টর্নেডো আসতে পারে। এমন অনেক কিছুই সুপার সাইক্লোনের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত।” প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার যখন দুপুর গড়িয়ে বিকেল, হঠাৎই উত্তর ২৪ পরগনা ও হুগলির একাংশে গঙ্গার পাড় জুড়ে প্রবল বেগে বইতে শুরু করে ঝোড়ো হাওয়া। স্থানীয়রা বেরিয়ে দেখেন গঙ্গার ওপরে ঘুরপাক খাচ্ছে টর্নেডো। তার দাপটেই মড়মড় করে ভাঙছে গাছের ডাল। উড়ে যাচ্ছে একের পর এক বাড়ির চাল। নুয়ে পড়ছে বিশাল নারকেল গাছগুলি। হুগলির ব্যান্ডেল চার্চ ও উত্তর চব্বিশ পরগণার হালিশহরে এই তাণ্ডব চলে।

thebengalpost.in
টর্নেডো :

মোবাইলে খবর পেতে জয়েন করুন
Whatsapp Group এ

ঝড়ের দাপটে নদীর দু’পারে অন্তত ৮০ টি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। একটি বাড়ির টিনের চাল উড়ে যাওয়ার পর ভেঙে পড়ে তার ওপরের গাঁথনি। তাতে আহত হয়েছেন ৩ জন। তাঁদের কল্যাণী জেএমএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চালের টিন উড়ে ট্রান্সফরমারে পড়ায় গোটা এলাকা বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। অন্যদিকে, পাণ্ডুয়ায় বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয়েছে ২ জনের। এদিন সন্ধ্যায় নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে এই টর্নেডোর কথা উল্লেখ করেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, “হালিশহরে ও ব্যান্ডেলে ৪০ টি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য করবে প্রশাসন।” তবে দুর্যোগের রাতে মাথার ওপর ছাদ হারিয়ে দিশাহারা অন্তত ৮০টি পরিবার। এদিকে, আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, “এটা ইয়াস-এর সঙ্গে যুক্ত। কোনও সাইক্লোন তৈরী হওয়ার সময় এই ধরণের মেসোসাইক্লোন বা ছোট রকমের টর্নেডো হয়। সাইক্লোন ল্যান্ড ফল হলে নিচের ও উপরের বাতাসের পার্থক্য হয়। ফলে সাইক্লোনের আগে এই ধরণের টর্নেডো হয়।” এদিন বিপর্যয় মোকাবিলা সচিব বলেন, “বুধবার ১২টার মধ্যে ইয়াস-এর ল্যান্ড ফল হতে পারে। ইয়াস-এর গতিপ্রকৃতির ওপর নির্ভর করে কোথাও কোথাও পকেট টর্নেডোর মতো হতে পারে।” এদিকে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, “আগে ঝড়টা চলে যেতে দিন। কারও কাজ থাকলে বাইরে না গিয়ে ফোনে কাজটা করে নিন। আমি বলছি ক্ষয় ক্ষতির বিষয়টা প্রশাসন দেখে নেবে। আমি রাতে নবান্নে থাকব। সব খোঁজ খবর রাখছি। এখানে ওয়ার রুম করে আমরা কাজ করছি। সবাই সাবধানে থাকবেন। রাতে প্রয়োজন না হলে আমি আর আপনাদের সঙ্গে কথা বলতে আসছি না।” উল্লেখ্য যে, স্বয়ং রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় নবান্নের কন্ট্রোল রুমে উপস্থিত হয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করে‌ গেছেন।

আরও পড়ুন -   চ্যালেঞ্জ নিলেন শুভেন্দু! ৫০ হাজার ভোটে মমতাকে না হারালে রাজনীতি ছাড়ার প্রতিজ্ঞা