‘নারদা-সারদা’কে স্বীকৃতি তৃণমূলের দাদার, গ্রাম বাংলার লড়াইয়ের ডাক বিজেপির দাদার, ‘রাজভবনে’ দেশের দাদা

বিজ্ঞাপন

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, সমীরণ ঘোষ, ২৭ ডিসেম্বর: ডায়মণ্ডহারবার থেকে সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কড়া আক্রমণ করলেন নন্দীগ্রামের প্রাক্তন বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী’কে। বললেন, “মেদিনীপুরের সভায় স্লোগান দিচ্ছেন তোলাবাজ ভাইপো হঠাও! আমি তোলাবাজ প্রমাণ দিতে পারলে, ফাঁসিকাঠে ঝুলব। তোলাবাজ তো তুমি! তোয়ালে মুড়ে টাকা তো তুমি নিয়েছ। সারদা-নারদায় তুমি জড়িত। ইডি-সিবিআই আমার কাঁচকলা করবে। আমি সারদাতেও নেই, নারদাতেও নেই!” প্রশ্ন উঠছে, শুভেন্দু’কে বিঁধতে গিয়ে পরোক্ষে কি সারদা-নারদা’কেই স্বীকৃতি দিয়ে ফেললেন না, তৃণমূল যুব কংগ্রেস সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়! সেক্ষেত্রে, প্রাক্তন পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ছাড়াও, তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়, কাকলি ঘোষ দস্তিদার, অপরূপা পোদ্দার, মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়- প্রমুখ যাঁদের অন-ক্যামেরা টাকা নিতে দেখা গিয়েছিল বা নারদা কেলেঙ্কারিতে জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছিল, তৃণমূলের সেই প্রথম সারির নেতা-নেত্রীদের কি বার্তা দেবেন যুব সভাপতি! নাকি, তৃণমূলে আছেন বলেই তাঁদের সাত খুন মাফ! অপরদিকে, সারদার অন্যতম প্রধান অভিযুক্ত কুনাল ঘোষ, সাসপেন্ড হয়েও বর্তমানে যিনি দলের মুখপাত্র, তিনিও অন-ক্যামেরা বলেছিলেন, “সারদা থেকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সবথেকে সুবিধা যিনি নিয়েছেন, তাঁর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়!” সারদা-নারদায় শুভেন্দু’কে অভিযুক্ত করার সাথে সাথে, কুনাল ঘোষের এই অভিযোগকেও স্বীকৃতি দিতে পারবেন তো ডায়মণ্ডহারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়! রাজনৈতিক বিশ্লেষক থেকে বাম-কংগ্রেস নেতারা আজ এই প্রশ্নই তুললেন!

thebengalpost.in
ডায়মণ্ডহারবারে সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় :

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অপরদিকে, পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতন থেকে নিজের পুরানো দল তৃণমূল কংগ্রেস’কে ফের কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন মেদিনীপুরের ভূমিপুত্র শুভেন্দু অধিকারী। “প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা থেকে আমফান, একশো দিনের কাজের টাকা চোর” বলে তৃণমূল নেতাদের ব্যাঙ্গ করলেন শুভেন্দু। নাম না করে ফের আক্রমণ শানালেন সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতিও, “কোনও এক অজানা কারণে, পঞ্চায়েত ভোটে ডায়ভণ্ডহারবারে কোনও বিরোধী দল প্রার্থী দিতে পারলনা! আসলে, বুথে বুথে জেহাদিদের বসিয়ে রাখা হয়েছিল।” মুখ্যমন্ত্রী’র ল্যান্ড ব্যাংক থেকে সবুজ সাথী’র সাইকেল, সবকিছুকেই ব্যাঙ্গ করলেন শুভেন্দু অধিকারী। সর্বোপরি, মুখ্যমন্ত্রী সহ দক্ষিণ কালকাতার মন্ত্রীদের দিকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে বললেন, “সব মন্ত্রীত্ব তো আপানারা দখল করে বসে আছেন! বাকিরা কি বানের জলে ভেসে এসেছে। এ লড়াই শহরের সঙ্গে গ্রাম বাংলার লড়াই!”

thebengalpost.in
দাঁতনে শুভেন্দু অধিকারী :

বিজ্ঞাপন

একদিকে যখন, দুই দলের দুই দাদার লড়াই জমে উঠেছে রাজনীতির ময়দানে! আপামর, দেশবাসীর ‘দাদা’ সৌরভ গাঙ্গুলি পৌঁছে গেলেন, রাজভবনে! সন্ধ্যা নাগাদ তিনি রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পৌঁছে যান। প্রায় আধঘন্টা পর বেরিয়ে এলে, ঘিরে ধরে সংবাদমাধ্যম। ‘মহারাজ’ সৌরভ জানান, নেহাতই সৌজন্য সাক্ষাৎ। রাজ্যপালের আহ্বানে এসেছিলেন। তবে, রাজনৈতিক মহল এর মধ্যেও জল্পনা খুঁজছেন! তবে, কি দেশের ‘দাদা’ই এবার বাংলা থেকে দেশের সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক দলের মুখ্যমন্ত্রী মুখ? সময় বলবে!

thebengalpost.in
রাজভবনে সৌরভ গাঙ্গুলি :

বিজ্ঞাপন

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে