নষ্ট হয়ে যাওয়া মিষ্টি বিক্রি’র দিন শেষ! মিষ্টি’র ট্রে’তে বা প্যাকেটে লিখতে হবে ‘এক্সপায়ারি ডেট’

.

বিশেষ প্রতিবেদন, সায়নী দাশগুপ্ত, ২৬ সেপ্টেম্বর : সিংহভাগ সচেতন নাগরিক প্যাকেট জাত বা কৌট জাত দ্রব্য কেনার সময় ‘বেস্ট বিফোর’ দেখে কেনেন। এর ফলে নষ্ট হয়ে যাওয়া বা খারাপ হয়ে যাওয়া জিনিস কেনা থেকে রক্ষা পাওয়া যায়! কিন্তু, দোকান থেকে মিষ্টি কেনার সময়, মিষ্টির ট্রে বা প্যাকেটের উপর এক্সপায়ারি ডেট দেখেছেন কখনও? তবে একথা সত্যি, দোকান থেকে মিষ্টি কিনতে গেলে আমরা প্রায়শই ভাবি, এই মিষ্টি টাটকা হবে কি না! এবার থেকে, এই দুঃশ্চিন্তা থেকে রেহাই পাওয়া যাবে নিঃসন্দেহে! দূর হয়ে যাবে দুঃশ্চিন্তা। FSSAI বা Food Safety and Standards Authority of India (খাদ্যের মান নির্ধারণকারী সর্বভারতীয় সংস্থা) এর নয়া নির্দেশিকা অনুয়াযী, এবার থেকে মিষ্টির দোকানে মিষ্টি রাখার ট্রেতেও লিখে রাখতে হবে ‘বেস্ট বিফোর’ (কতদিন পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে) !

THEBENGALPOST.IN
মিষ্টিতেও এবার এক্সপায়ারি ডেট :

.

আগামী ১ লা অক্টোবর থেকে এই নিয়ম কার্যকর হবে গোটা দেশে। ইতিমধ্যে সমস্ত রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে এই বিষয়ক চিঠি পাঠানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় খাদ্য নিয়ামক সংস্থা তরফ থেকে বলা হয়েছে, প্যাকেটজাত মিষ্টিতে লিখে রাখতে হবে ‘এক্সপায়ারি ডেট’ (নষ্ট হয়ে যাওয়ায় দিন))! এর সাথে, মিষ্টির দোকানে মিষ্টির ট্রে’তেও লিখে রাখতে হবে সেটির ‘বেস্ট বিফোর’ অর্থাৎ কতদিন পর্যন্ত তা খাওয়ার উপযোগী, সেই তথ্য। উৎসবের মরসুমে অনেক সময় টাটকা মিষ্টি’র পরিবর্তে, বেশ কয়েকদিন আগের বানানো মিষ্টি চালিয়ে দেওয়া হয়! অনেক সময় বাসি মিষ্টি বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে, বিভিন্ন দোকানের বিরুদ্ধে, যা স্বাস্থ্যের পক্ষেও খুবই ক্ষতিকারক! এই সমস্ত দিক বিবেচনা করেই এরকম সিদ্ধান্ত নিয়েছে FSSAI (খাদ্যের মান নির্ণায়ক সংস্থা), এমনটাই জানা যাচ্ছে।

.
.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে