ধান তুলতে তুলতেই শালবনীর সনাতন জানিয়ে দিল অসম্পূর্ণ বাড়ি ‘প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা’রই

বিজ্ঞাপন

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, শালবনী, ২১ ডিসেম্বর: শনিবার স্বপ্নপূরণ হয়েছে শালবনীর সনাতন সিং ও তাঁর পরিবারের! স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ তাঁদের বাড়িতে আহার গ্রহণ করেছেন। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী’কে অতিথি হিসেবে পেয়ে এবং তাঁর সেবা করতে পেরে নিজেদের ধন্য মনে করছিলেন, জঙ্গলমহল শালবনী ব্লকের কর্ণগড় সংলগ্ন বালিজুড়ি গ্রামের ঝুনু সিং, তাঁর পত্নী যমুনা সিং, পুত্র সনাতন সিং এবং বউমা সরস্বতী সিং। শনিবার রাত অবধি সেই খুশির রেশ ছিল, কৃষক সনাতন সিং ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের মধ্যে। আপ্লুত হয়েছিল পুরো বালিজুড়ি গ্রাম। কিন্তু, রবিবার থেকেই বালিজুড়ির (শালবনীর) সিং পরিবার নিজেদের চাষের কাজে, অর্থাৎ মাঠের পাকা ধান তোলার কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। তবে, তাঁদের পরিবার’কে নিয়ে জেলার রাজনীতিতে জল্পনা চলছেই! জল্পনার কেন্দ্রবিন্দুতে সনাতন সিংয়ের পরিবারের অসম্পূর্ণ পাকা বাড়িটি! স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ মেদিনীপুরের সভায় গর্বিত কন্ঠে বলেছিলেন, “মধ্যাহ্নভোজন সেরে যুবক সনাতনের সাথে কথা বলতে বলতে জানতে পারলাম, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা থেকে পাকা বাড়িটি পেয়েছে।” এরপরই, রবিবার তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি তথা জেলা সহ-সভাধিপতি অজিত মাইতি এবং জেলা সভাধিপতি উত্তরা সিংহ হাজরা সাংবাদিকদের জানান, “বাড়িটি প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা’র নয়, বাংলার আবাস যোজনার। বিজেপি মিথ্যে প্রচার করেছে।” কিন্তু, আজ, সোমবার দুপুরে শালবনীর ভূমিপুত্র কৃষক সনাতন সিং ও তাঁর বাবা ঝুনু সিং ধান তোলার কাজ করতে করতেই স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, “২০১৬-‘১৭ অর্থবর্ষে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা থেকেই তাঁরা এই বাড়ি পেয়েছেন। তবে, বাড়িটি সম্পূর্ণ হওয়ার আগেই প্রকল্পের ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা শেষ হয়ে যায়!” এরপর, আর কোনও সাহায্য তাঁরা পাননি।

thebengalpost.in
শালবনীর সনাতন সিংয়ের বাড়ি :

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের মেদিনীপুর সফরের দু’দিন আগে থেকেই, পূর্ব প্রস্তুতির বিষয়ে খোঁজখবর নিতে, শালবনীর বালিজুড়ি গ্রামে পৌঁছে গিয়েছিলেন, দ্য বেঙ্গল পোস্ট সহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা। সনাতন সিংয়ের ওই অসম্পূর্ণ বাড়িটিতে ছিলনা কোনও বোর্ড বা লেখা। তবে, বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) দ্য বেঙ্গল পোস্টের প্রতিনিধি’কে সনাতন জানিয়েছিলেন, “বাড়িটি তাঁরা প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা থেকেই পেয়েছেন।” এদিকে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আসার আগের দিনই, অর্থাৎ শুক্রবার (১৮ ডিসেম্বর), তাঁর আগমন উপলক্ষ্যে বাড়িটি সাদা রং করা হয় এবং বাড়ির সামনে লেখা হয়- “প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা। উপভোক্তার নাম- রায়মণি সিং। আর্থিক বছর- ২০১৬-‘১৭। অর্থ- ১,৩০,০০০ টাকা।” রায়মণি হলেন, ঝুনু সিং এর মা, অর্থাৎ সনাতনের ঠাকুমা। ২০১৭ সালেই তিনি প্রয়াত হয়েছেন বলে জানা গেছে। আর, এ নিয়েই বিবাদ শুরু হয়, তৃণমূল জেলা নেতৃত্ব ও বিজেপি জেলা নেতৃত্বের মধ্যে। তৃণমূলের বক্তব্য, “বাংলার আবাস যোজনার বাড়ি।” বিজেপি’র জেলা সহ-সভাপতি অরূপ দাস বলেন, “এ নিয়ে কোনও সন্দেহই নেই যে, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনারই বাড়ি। প্রশাসনও ভালো মতো জানে। আর, তৃণমূল দলের কালচারই হল মিথ্যাচার আর দুর্নীতির। এমনিতেই, ওরা কেন্দ্রীয় প্রকল্পের নাম পরিবর্তন করে, আর বাড়ি থেকে পায়খানা সবকিছুর টাকা হজম করে! এবার অন্তত এইসব বন্ধ করুক, যদি নূন্যতম লজ্জা থাকে।” বিজেপি নেতৃত্ব শুধু নয়, সনাতন ও তাঁর পরিবারও জানিয়ে দেয়, “প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনারই বাড়ি।” প্রশাসনের কাছে এই বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে, সরাসরি কোনও মন্তব্য করা হয়নি! তবে, বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, সনাতন সিংয়ের অসম্পূর্ণ বাড়িটি কেন্দ্রীয় প্রকল্প থেকেই নির্মিত হয়েছে। আপাতত, এই বিতর্কে না জড়িয়ে, কোনও রাজনৈতিক দল যদি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়, তাহলে অসম্পূর্ণ বাড়িটি অন্তত সে সম্পূর্ণ করতে পারে!

thebengalpost.in
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ আসার আগে, বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) :

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে