“সব কিছুই ঠিক আছে, শুধু ভাত আর একটু সেদ্ধ হলে ভালো হয়”, শালবনী করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন প্রৌঢ়ের আর্জি মহকুমাশাসকের কাছে

.

মণিরাজ ঘোষ, শালবনী, ৪ নভেম্বর : “সব কিছুই ঠিক আছে, শুধু ভাত আর একটু সেদ্ধ হলে ভালো হয়”, শালবনী করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন প্রৌঢ় আজ (বুধবার) হাতের কাছে সদর মহকুমাশাসক দীননারায়ণ ঘোষ’কে পেয়ে শুধু এটুকু অনুযোগই করলেন! সুদীর্ঘ করোনা যুদ্ধের যাত্রাপথে, নানা সাফল্য-ব্যর্থতা’র মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে জেলার লেভেল ফোর করোনা হাসপাতাল শালবনী’কে। কখনো বা যুদ্ধজয়ের আনন্দে বুক চওড়া হয়েছে। আবার কখনো বা সমালোচনার ঝড়ে হয়েছে মন খারাপ! তবে, মানব ইতিহাসের অন্যতম ভয়াবহ এই যুদ্ধ থেমে থাকেনি, আজও থেমে নেই! এ যুদ্ধ কবে শেষ হবে, শুধু পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার লেভেল ফোর করোনা হাসপাতালের (শালবনীর) যোদ্ধারাই নন, জানেনা কেউই। তবে, শত শত দুঃশ্চিন্তার মধ্যেও অত্যন্ত আনন্দের খবর হল, আমাদের দেশ ও রাজ্যের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে (বরং বেশ কিছুটা এগিয়ে) পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় এই মুহূর্তে সুস্থতার হার ৯২.৫১ শতাংশ! জেলার ১৪৩৮১ জন সংক্রমিতের মধ্যে এই মুহূর্তে চিকিৎসাধীন মাত্র ৮৬৭ জন। এদের মধ্যে আবার ৭১৩ জন বাড়িতে বা গৃহ নিভৃতবাসে (Home Isolation) আছেন। মাত্র ১৫৪ জন আছেন করোনা হাসপাতাল ও সেফ হোম গুলিতে। লেভেল ফোর শালবনীতে চিকিৎসাধীন মাত্র ৮২ জন। এইচডিইউ, আইসিসিইউ, ভেন্টিলেশন সহ ২০০ টি শয্যা আছে এই হাসপাতালে। স্বাভাবিকভাবেই, এই মুহূর্তে শালবনী করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগী’র তুলনায় চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সংখ্যা বেশি। আর তাই স্বাস্থ্য পরিষেবাও এখন তাঁরা পাচ্ছেন উন্নতমানের। রোগী সহায়তা কেন্দ্রের মাধ্যমে ভিডিও কল বা ফোনে কথা হলেই, প্রিয়জনদের তাঁরা জানাচ্ছেনও সে কথা। তাই, মহকুমাশাসকের কাছে চিকিৎসাধীন এক অশীতিপর বৃদ্ধ শুধু “ভাত শক্ত” ছাড়া অন্য কোন অভিযোগ জানাতে পারেননি! পরিদর্শনে এসে খুশি মহকুমাশাসক দীননারায়ণ ঘোষ এবং শালবনীর বিডিও সঞ্জয় মালাকারও। তাঁদের সঙ্গে ছিলেন শালবনী ব্লক মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক তথা হাসপাতালের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় চিকিৎসক ও আধিকারিক ডাঃ নবকুমার দাসও। তিনি জানালেন, “আসলে ওনার একটু বয়স হয়ে গেছে তো! তবে, ওইটুকু সমস্যারও সমাধান করা হয়েছে।” একই কথা জানিয়েছেন হাসপাতালের সুপার ডাঃ নন্দন ব্যানার্জিও।

thebengalpost.in
শালবনী করোনা হাসপাতাল পরিদর্শনে মহকুমাশাসক দীননারায়ণ ঘোষ :

.
.

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) রাজ্যের করোনা চিকিৎসা নিয়ে বিভিন্ন জেলার সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করার কথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তার ঠিক আগের দিনই অর্থাৎ বুধবার, (দুপুর ১২ টা নাগাদ) জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মহকুমাশাসক দীননারায়ণ ঘোষ হাসপাতাল পরিদর্শনে যান। যদিও প্রশাসন সূত্রে বলা হয়েছে, এটা রুটিন পরিদর্শন মাত্র। অপরদিকে, স্বাস্থ্য পরিষেবা ও নজরদারি দুটি বিষয় নিয়েই এখন আর কোন সমস্যা নেই বলে জানানো হয়েছে প্রশাসনের তরফে। মহকুমাশাসক দীননারায়ণ ঘোষ জানিয়েছেন, “প্রতিটি রোগীকেই এখন উন্নতমানের চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে। আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থা এবং চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের আন্তরিক প্রয়াস দুই মিলে একেবারে ত্রুটিমুক্ত পরিষেবা প্রদান করা হচ্ছে। খাওয়ার দাওয়ারের মানও যথেষ্ট ভালো।” অপরদিকে, জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ নিমাই চন্দ্র মন্ডল এবং উপ মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ সৌম্যশঙ্কর সারেঙ্গীও জানিয়েছেন এই মুহূর্তে, জেলার তথা লেভেল ফোর শালবনীর চিকিৎসা পরিষেবা নিয়ে নূন্যতম অভিযোগও নেই, বরং বিভিন্ন মহলে প্রশংসিত। উল্লেখ্য যে, ২ রা নভেম্বর থেকে শালবনী করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা শিক্ষা ভবনের এক আধিকারিক। তাঁর প্রেসার ও সুগারের সমস্যাও রয়েছে। কিন্তু, শালবনী করোনা হাসপাতালের চিকিৎসা পরিষেবা সম্পর্কে তিনি সন্তুষ্ট এবং প্রিয়জনদের কাছে যথেষ্ট প্রশংসা করেছেন। তিনি এই মুহূর্তে সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন বলেও জানা গেছে, রোগী কল্যাণ সহায়তা কেন্দ্রের মাধ্যমে।

.
.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে