রাজীব-হীন মন্ত্রীসভার বৈঠক! ১২ ই জানুয়ারি অমিত শাহের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদানের সম্ভাবনা

বিজ্ঞাপন

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, কলকাতা, ২৩ ডিসেম্বর: রাজ্য মন্ত্রীসভার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে অনুপস্থিত রাজ্যের চার হেভিওয়েট মন্ত্রী! মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে রাজ্য মন্ত্রীসভার ক্যাবিনেট মিটিং ছিল। নেওয়া হল, একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত। তবে, অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে অনুপস্থিত ছিলেন রাজ্য মন্ত্রীসভার ৪ জন মন্ত্রী। এর মধ্যে, ২ জনকে নিয়ে বিশেষ জল্পনার অবকাশ নেই! তবে, অন্য ২ জনকে নিয়ে জল্পনার জল ঘোলা হচ্ছে অবশ্যই। এই ২ জনের মধ্যে অন্যতম হলেন, বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। অপরজন, মৎস্যমন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহা। অন্য দুই অনুপস্থিত মন্ত্রী হলেন, উত্তরবঙ্গের গৌতম দেব এবং রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। তাঁদের অনুপস্থিত থাকার যথেষ্ট কারণ রয়েছে এবং তাঁদের নিয়ে রাজ্য-রাজনীতিতে এই মুহূর্তে নতুন কোনও জল্পনাও তৈরি হয়নি। গৌতম দেব সদ্য করোনা মুক্ত হয়েছেন এবং রবীন্দ্রনাথ ঘোষ দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ। এ বিষয়ে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী বা দল অবগত আছেন। তবে, বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় মন্ত্রীসভার এই বৈঠকেও অনুপস্থিত থেকে, নিজের অবস্থান যে ক্রমেই স্পষ্ট করছেন, তা বলাই বাহুল্য! এর আগেও মন্ত্রীসভার বৈঠকে অনুপস্থিত থেকেছেন রাজীব। শুভেন্দু অধিকারী’র পর এই মুহূর্তে সমস্ত জল্পনার ‘কেন্দ্রবিন্দুতে’ও তিনি। কারণ, হাওড়া থেকে কলকাতা, হুগলি থেকে মেদিনীপুর তাঁর নামেও অনুগামীরা ‘অরাজনৈতিক’ ব্যানার দিয়ে তাঁকে ‘স্বচ্ছতার প্রতীক’ বা ‘কাজের মানুষ’ রূপে তুলে ধরার চেষ্টা চলছে গত প্রায় মাসখানেক ধরে। শুধু তাই নয়, মেদিনীপুরের ভূমিপুত্র শুভেন্দু অধিকারী’র সঙ্গে একই ব্যানারে হাওড়ার ভূমিপুত্র রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবিও পড়েছে বিভিন্ন এলাকায়। সবমিলিয়ে, শুভেন্দু-পথের পথিক হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের। আর এসব বুঝেই তাঁর সঙ্গে দু’-দু’বার বৈঠকে বসেছেন দলের মহাসচিব তথা শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তবে, বৈঠক থেকে কোনও রফাসূত্র মিলেছে বলে এখনও পর্যন্ত কোনও পক্ষ থেকেই সামান্যতম ইঙ্গিতও পাওয়া যায়নি। ‘দলীয় আলোচনা’ বলে দায় সেরেছেন রাজীব। আর, শিক্ষামন্ত্রী নিঃশ্চুপ। এর মধ্যেই, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিজের বিধানসভা এলাকায়, ‘ভূমিপুত্র’ রাজীবের সমর্থনে অনুগামীরা পুনরায় ব্যানার ঝুলিয়েছেন! যদিও, ব্যানারের নীচে তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী বলে নিজেদের তারা তুলে ধরেছে। অন্যদিকে, মঙ্গলবারের (২২ ডিসেম্বর) বৈঠকে রাজীবের অনুপস্থিতি রাজ্য-রাজনীতিকে ফের একবার উত্তাল করে দিয়েছে। তবে, চার মন্ত্রীর অনুপস্থিতি সম্পর্কে শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, “অনুপস্থিত চারজনই নিজেদের অনুপস্থিতির কারণ মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়েছেন।”

thebengalpost.in
রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় :

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এদিকে, বিজেপির দলীয় সূত্রে জানা যায়, আগামী ১২ ই জানুয়ারি অর্থাৎ স্বামী বিবেকানন্দের ১৫৮ তম জন্মজয়ন্তী’তে রাজ্যে ফের আসতে চলেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আর, তাঁর এই আগমণ উপলক্ষে ইতিমধ্যেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে। রাজনৈতিক বিশ্লেষক থেকে শাসক ও বিরোধীদলের বিভিন্ন নেতৃত্ব একবাক্যে স্বীকার করেছেন, ওইদিনও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী’র হাত থেকে গেরুয়া পতাকা নিতে চলেছেন একাধিক মন্ত্রী ও বিধায়ক। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের এই তালিকায় সবার উপরে যে নামটি জ্বলজ্বল করছে, সেটি নিঃসন্দেহে বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার মন্ত্রীসভার বৈঠকে অনুপস্থিত থাকা আরেক মন্ত্রী (মৎস্যমন্ত্রী) চন্দ্রনাথ সিনহা’কে নিয়েও জল্পনা তৈরি হয়েছে। তিনি বোলপুরের বিধায়ক। সম্প্রতি, বোলপুরের মহামিছিলে রীতিমতো জনস্রোতে ভেসে গিয়েছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। স্বাভাবিকভাবেই, মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহা কে নিয়ে জল্পনা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছেনা। এছাড়াও, হাওড়ার বালি এলাকার বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া, শিবপুরের বিধায়ক জটু লাহিড়ী প্রমুখদের নিয়েও জল্পনা ক্রমেই দানা বাঁধছে! এর মধ্যে, বৈশালী দেবী এবং জটু বাবু দু’জনেই ভোটকৌশলী প্রশান্ত কিশোর এর প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। এছাড়াও, মন্ত্রী লক্ষ্মীরতন শুক্লা কে নিয়েও আলোচনা শুরু হয়েছে। সূত্রের খবর অনুযায়ী, ১২ থেকে ১৪ ই জানুয়ারি, তিনদিনের সফরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ প্রথমদিনই হাওড়া’তে সভা করতে পারেন বলে জানা যাচ্ছে। আর, ওই সভাতেই উপরোক্ত ব্যক্তিত্বরা (মন্ত্রী ও বিধায়করা) বিজেপি’তে যোগদান করতে পারেন বলে এই মুহূর্তে রাজ্য-রাজনীতিতে তীব্র জল্পনা শুরু হয়েছে। তবে, এই জল্পনার কতটা ‘জল’ আর কতটা ‘দুধ’ তা আর সপ্তাহ তিনেকের মধ্যেই পরিস্ফুট হতে চলেছে।

thebengalpost.in
বৈশালী ডালমিয়া ক্ষুব্ধ পিকে’র উপর :

thebengalpost.in
জটু লাহিড়ীও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পিকে’র টিমের উপর :

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে