পুরানো সম্পর্কের কারণেই খুন! ডেবরার আদিবাসী মহিলা খুনের ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ

বিজ্ঞাপন

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১২ জানুয়ারি: পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরা থানার বারুনিয়া গ্রামের এক আদিবাসী মহিলা খুনের ঘটনায়, মঙ্গলবার শৈল দিয়াসী নামে এক মধ্যবয়ষ্ক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ (১২ জানুয়ারি), বিকেলে জেলা পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার সাংবাদিক বৈঠক করে এই তথ্য জানান। প্রসঙ্গত, পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরা থানার বারুনিয়া গ্রামে গত শনিবার সকালে এক আদিবাসী মহিলার দেহ উদ্ধারের পর চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। জানা গেছে, শনিবার খুন হওয়া আদিবাসী মহিলার বাড়ি ইসলামপুর থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে, একটি ঝোপের মধ্যে মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। খবর পেয়ে ডেবরা থানার পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

thebengalpost.in
ডেবরা কান্ডে গ্রেফতার এক ব্যক্তি :

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, ঐ মহিলাকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন গ্রামবাসীরা। ঘটনায় জড়িত থাকা ব্যক্তিদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে গতকাল ডেবরা -সবং রাস্তার গোদাবাজার এলাকায় অবরোধ করেন গ্রামবাসীরা। এদিকে, প্রথম থেকেই বিজেপি মহিলা কর্মীরা দাবি করছেন, ওই মহিলা তাঁদের কার্যকর্তা। সোমবার ময়নাতদন্তের পর দেহ নিয়ে প্রথমে গ্রামে পৌঁছন বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি ভারতী ঘোষ। পরে মহিলা মোর্চার সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পল গ্রামে এসে পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তোলেন এবং অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতারির দাবি তুলে থানার সামনেই অনশনে বসে পড়েন। এদিকে, গ্রামবাসী ও বিজেপি নেতৃত্ব ধর্ষণ ও খুনের অভিযোগ তুললেও, জেলা পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, ধর্ষণের প্রমাণ পাওয়া যায়নি। ময়নাতদন্তেও ধর্ষণের উল্লেখ নেই। পুরানো সম্পর্ক ও অশান্তি থেকেই খুন বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে! জেলা পুলিশ সুপারের বক্তব্য অনুযায়ী, পুলিশ তদন্তে নেমে জানতে পারে অভিযুক্তের সঙ্গে ঐ মহিলার আগে থেকে সম্পর্ক ছিল। আগামীকাল গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিকে মেদিনীপুর জেলা আদালতে তোলা হলে, পুলিশ নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার জন্য আবেদন করবে বলেও পুলিশ সুপার জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে