মেদিনীপুরে বন্ধুর হাতে খুন দুই যুবক, বেলদায় মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনায় বৃদ্ধের মৃত্যু

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর : পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মেদিনীপুর শহরের কোতয়ালী থানার অন্তর্গত, মেদিনীপুর সদর ব্লকের ৫ নং শিরোমনি অঞ্চলে ঘটে গেল ‘হাড় হিম’ করা খুনের ঘটনা! পিকনিকের আসরে, তিন বন্ধুর মধ্যে ‘বচসা’ বাধে, তারপরই এক বন্ধু অন্য দুই বন্ধুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ মারে! ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়ে দুই বন্ধু। মৃত দুই বন্ধুকে বস্তাবন্দি করে, কোতোয়ালী থানায় আত্মসমর্পণ করে ‘খুনি’ বন্ধুটি। জানা যায়, তিনজনই মদ্যপ ছিল। পুলিশ ও মৃত দুই যুবকের পরিজনদের মাধ্যমে জানা গেল, গতকাল (১৮ সেপ্টেম্বর) রাতে, শহরের উপকণ্ঠে কেরানীচটিতে ফুলের ব্যবসায়ী রাজেশ দাসের (বয়স তিরিশের কাছাকাছি) দোকানে, তিন বন্ধু মিলে পিকনিক করছিল। সঙ্গে চলছিল মদ্যপান। হঠাৎই, কোন একটি বিষয় নিয়ে বচসা বাধলে, বিমল (বাপ্পা) নায়েক (বয়স আনুমানিক ৩০) নামে এক বন্ধু রাজেশ দাস ও তন্ময় মল্লিক (আনুমানিক ৪৫)’কে ছুরি বা ধারালো কোন অস্ত্র দিয়ে নৃশংস ভাবে আঘাত করে! সঙ্গে সঙ্গে মৃত্যু হয় ওই দুই যুবকের। এরপরই, কোতোয়ালী থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করে বাপ্পা নায়েক। জানা গেছে, তিনজনই ফুলের কাজ করতো। পাওনা টাকা’কে কেন্দ্র করে, বচসা শুরু হয়। তারপর হাতাহাতি থেকে খুন! ঘটনার তদন্তে নেমেছে কোতোয়ালী থানার পুলিশ।

thebengalpost.in
ঘটনাস্থলে কোতোয়ালী থানার পুলিশ :

.

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কোতয়ালী থানার অন্তর্গত ৫ নং শিরোমনি অঞ্চলের কেরানীচটি (ফড়িংডাঙা) এলাকায় আজ (শনিবার) সকালে দুটো মৃতদেহ উদ্ধার করা হয় একটি দোকানের ভেতর থেকে। দোকানের আসল মালিক সুমিত কাপরি হলেও, ভাড়া দিয়েছিলেন রাজেশ দাস’কে। রাজেশের ফুলের দোকান বা গোডাউন থেকেই মৃতদেহ দুটি উদ্ধার হয়। মৃত রাজেশের বাড়ি কেরানীচটি থেকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে বাড়ুয়া গ্রামে, তন্ময়ের বাড়ি আনন্দপুর থানার সাহসপুরে। অপরদিকে, খুনি বিমলের (বাপ্পার) বাড়ি ঘটনাস্থল অর্থাৎ ফড়িংডাঙ্গা সংলগ্ন এলাকাতেই। কোতোয়ালী থানার পুলিশ মৃতদেহ দুটি উদ্ধার করে, মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। আকস্মিক এই দুর্ঘটনায় দুই পরিবার শোকস্তব্ধ, এলাকা থমথমে! পুলিশ-পিকেট বসানো হয়েছে ওই এলাকায়।

thebengalpost.in
মৃতদেহ দুটি পাঠানো হয়েছে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের মর্গে :

.

অপরদিকে, বেলদায় এক পথ দুর্ঘটনায় আজ মর্মান্তিক ভাবে মৃত্যু হল এক ব্যক্তির। আজ (শনিবার) সকালে, পশ্চিম মেদিনীপুরের বেলদা থানার অন্তর্গত বাখরাবাদ ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কে সাইকেলে করে বাজার করতে এসেছিলেন নিতাই মির্দা (৭৮)। তাঁর বাড়ি নারায়ণগড় থানার মা মনসা গ্রামে। স্থানীয় সূত্রে জানা যা,য় দ্রুতগতিতে এসে একটি পিকআপ ভ্যান তাঁর সাইকেলের পিছনে ধাক্কা মারে! ঘটনাস্থলে লুটিয়ে পড়েন তিনি। স্থানীয় লোকজনের তৎপরতায় তাঁকে উদ্ধার করে, বেলদা গ্রামীণ হাসপাতাল নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসকরা সেখানে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। বাড়ি থেকে সুস্থ ভাবে বেরিয়েও বাড়ি ফেরা হলোনা নিতাই মির্দার! মর্মান্তিক এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে এলাকায়!

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে