পরিবার থেকে গোষ্ঠী সংক্রমণের হাত ধরে মেদিনীপুরে ফের ৩১ জন আক্রান্ত! শরৎপল্লী, রাঙামাটি, পালবাড়ি, আবাসে থামছেই না করোনা

thebengalpost.in
পুজোর মুখে মেদিনীপুর শহরের সংক্রমণ দুঃশ্চিন্তায় রেখেছে শহরবাসীকে :
.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, মেদিনীপুর, ৪ অক্টোবর:পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে রবিবার সকালে প্রাপ্ত, গত চব্বিশ ঘণ্টার করোনা রিপোর্ট অনুযায়ী, জেলায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১৬৬ জন। এর মধ্যে মেদিনীপুর শহর ও শহরতলী মিলিয়ে সংক্রমিত ৩১ জন। গতকালই স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বীকার করেছেন, রাজ্যে করোনা’র গোষ্ঠী সংক্রমণ ছড়িয়েছে। একই পরিবার থেকে একই এলাকা থেকে একই শহরের প্রায় সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ছে সংক্রমণ। উপসর্গহীন আক্রান্তের সংখ্যা বেশি হলেও, পুজোর আগে সংক্রমণ ছড়ানো নিয়ে দুঃশ্চিন্তা সেই থেকেই যাচ্ছে! চিকিৎসক ও বিশেষজ্ঞ থেকে শুরু করে রাজ্য ও জেলার স্বাস্থ্য আধিকারিক কিংবা স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সব রাজ্যবাসীকে সচেতন থাকার বার্তা দিয়েছেন। তাই, ক্রমাগত (প্রতিদিন) ৩০-৪০ জনের সংক্রমণের বহর নিয়ে চলা শহর মেদিনীপুর’কেও যে সাবধানে পুজো কাটাতে হবে, তা বলাই বাহুল্য!

thebengalpost.in
পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় সংক্রমিত ১৬৬, মেদিনীপুর শহর ও শহরতলীতে ৩১:

.

মেদিনীপুর শহরের প্রায় সর্বত্রই ছড়িয়ে পড়েছে নোভেল করোনা ভাইরাস। তবে, শরৎপল্লী, রাঙ্গামাটি, নজরগঞ্জ, আবাস (মৃণালপল্লী), সিপাই বাজার, পাটনা বাজার, পুলিশ লাইন, মির্জা বাজার প্রভৃতি এলাকার সাথে সাথে, বর্তমানে পালবাড়ি, রাজাবাজার, অরবিন্দনগর প্রভৃতি এলাকাগুলিতেও ধারাবাহিকভাবে করোনা সংক্রমিতের সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের গত চব্বিশ ঘণ্টার রিপোর্ট অনুযায়ী, মেদিনীপুর শহরের রাঙামাটি এলাকায় একটি পরিবারের মা (৪৭) ও মেয়ে (৯) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। আবাস-মৃণালপল্লী এলাকায় একই পরিবারের না হয়েও, ফের ২ জনের সংক্রমিত হওয়া প্রমাণ দিচ্ছে এই এলাকায় গোষ্ঠী সংক্রমণ ছড়িয়েছে। কারণ, প্রায় প্রতিদিনই এই এলাকায় করোনা সংক্রমিতের সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে। এদিন, ১১ বছরের এক কিশোরী এবং ৪০ বছরের এক ব্যক্তি’র রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। শরৎপল্লীও তাই। ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন রেখে ফের ২ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। ৬৮ বছরের এক বৃদ্ধ, বাড়ি থেকে সচরাচর যিনি বেরোনইনা, তিনি সংক্রমিত হয়েছেন। সঙ্গে, ৩৩ বছরের এক তরুণী’র রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। পালবাড়িতে, একটি পরিবারের স্বামী (৫৬) ও স্ত্রী (৪৪) করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। নান্নুরচকেও একই পরিবারের ২ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মেদিনীপুর শহরের করোনা হাসপাতাল আয়ুশের উপকন্ঠে খাসজঙ্গল এলাকায় একটি পরিবারের তিনজন (৪৫ বছরের মহিলা, ২১ বছরের তরুণী ও ২০ বছরের তরুণ) করোনা সংক্রমিত। তাঁরা স্বল্প উপসর্গযুক্ত বলে জানা গেছে। সংক্রমণে ধারা অব্যাহত রেখে, রাজাবাজার (প্রৌঢ় ৫৭), অরবিন্দ নগর (মহিলা ৪৬), নজরগঞ্জ (প্রৌঢ় ৫৮), ধর্মা (পুরুষ ৪৫), কুইকোটা (৬ বছরের শিশুকন্যা), গেটবাজার (প্রৌঢ় ৬৫), তাঁতিগেড়িয়া (৪৫ বছরের ব্যক্তি), সেখপুরা (প্রৌঢ় ৫২) প্রভৃতি এলাকায় ১ জন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। অপরদিকে, মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের ১ জন স্বাস্থ্যকর্মী সহ কোতোয়ালি থানার অধীন বিভিন্ন এলাকায় আরো ৫ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে শনিবার রাতে। এদিকে, সংক্রমণ ছড়িয়েছে মেদিনীপুর শহরতলীর গুড়গুড়িপাল ও চাঁদড়া এলাকাতেও। ভালকি (চাঁদড়া) এলাকাতে একই পরিবারের ২ জন এবং গুড়গুড়িপাল এলাকায় ২ জন সহ মোট ৪ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে নতুন করে।

thebengalpost.in
পুজোর মুখে মেদিনীপুর শহরের সংক্রমণ দুঃশ্চিন্তায় রেখেছে শহরবাসীকে :

.
.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে