“অন্ধকারে দেশ, রাষ্ট্রপতি শাসন জারির মতো পরিস্থিতি”, টর্চ হাতে রাজপথে হাঁটলেন মমতা! মেদিনীপুর থেকে শালবনী সর্বত্র প্রতিবাদ

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, কলকাতা ও পশ্চিম মেদিনীপুর, ৩ অক্টোবর: হাথরাস কান্ডে উত্তাল সারাদেশ! প্রবল সমালোচনার মুখে যোগী সরকার। নির্যাতিতার পরিবারের সাথে, কথা বলতে দেওয়া হয়নি, বিরোধী রাজনৈতিক দল থেকে শুরু করে সাংবাদিকদের। সারা দেশ জুড়ে এই দৃশ্য যখন ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে প্রবল গতিবেগে, চাপের কাছে কিছুটা নতিস্বীকার করেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। রাজনৈতিক নেতাদের এখনই, অনুমতি দেওয়া না হলেও, অনুমতি দেওয়া হল সংবাদমাধ্যমকে। অবশেষে খুলে দেওয়া হল, হাথরাসের সীমান্ত। হাথরাসের জয়েন্ট ম্যাজিস্ট্রেট প্রেম প্রকাশ মীনা জানিয়েছেন, “আইনশৃঙ্খলা যাতে বজায় থাকে তার জন্যই এই নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। আজ থেকে সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা গ্রামের ভিতরে যেতে পারেন। তবে কোনও রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি বা নেতাকে ভিতরে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে না।” এদিকে, হাথরাসের দলিত তরুণী হত্যা ও গণধর্ষণের ঘটনায় দীর্ঘদিন পর রাজপথে নামলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এক হাতে টর্চ, অন্য হাতে কালো পতাকা নিয়ে রাজপথে হাঁটলেন তিনি! শাসক দলের তরফে যথাসম্ভব কোভিড প্রটোকল মেনে মিছিলের আয়োজন করা হয় আজ (শনিবার)।

thebengalpost.in
গান্ধী মূর্তির পাদদেশে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় :

.

এদিন বিড়লা প্লানেটোরিয়াম থেকে গান্ধীমূর্তির পাদদেশ পর্যন্ত মিছিলে হাঁটেন মুখ্যমন্ত্রী। সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা হয় মিছিলে। মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন মমতা। এক হাতে টর্চ এবং আরেক হাতে কালো পতাকা নিয়ে হাঁটেন মমতা। এরপর গান্ধীমূর্তির পাদদেশে মঞ্চে উঠে পরিচিত ভঙ্গিতে বিজেপিক আক্রমণ করেন তিনি। বিজেপি সরকারের কড়া সমালোচনা করে বলেন, “দেশে স্বৈরাচারী শাসন চলছে। স্বৈরতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছে বিজেপি! সাংবাদিকদের ফোন করে ভয় দেখাচ্ছে। হাথরাসের ঘটনা প্রচার না করার জন্য হুমকি দিচ্ছে। আজ হাতে টর্চ নিয়ে প্রতিবাদ জানাচ্ছি। যেভাবে যোগী সরকারের উত্তরপ্রদেশে, আদিবাসী-দলিত মা বোনেদের উপর অত্যাচার হচ্ছে, তাঁরা ক্রমেই অন্ধকারে চলে যাচ্ছে। তাঁদের অন্ধকার থেকে আলোর দিকে নিয়ে আসার প্রতীক হিসেবেই এই টর্চ হাতে পথে নেমেছি।”

thebengalpost.in
মেদিনীপুরে তৃণমূলের মহামিছিল :

.

এদিকে, হাথরাসের তরুণী মনীষা বাল্মীকি’কে গণধর্ষণ, হত্যা ও পরিবারের অনুমতি না নিয়েই পুড়িয়ে মারার অভিযোগে, মেদিনীপুর থেকে শালবনী প্রতিবাদের ঢেউ আছড়ে পড়ল সর্বত্র। মেদিনীপুর শহর তৃণমূল কংগ্রেস এবং মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্বে, কালো পতাকা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল আয়োজিত হয়। জঙ্গলমহলের শালবনীতেও তৃণমূল নেতৃত্বের আয়োজনে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

thebengalpost.in
শালবনীতে তৃণমূলের বিক্ষোভ মিছিল :

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে