পুজোর তিনদিন আগেই মেদিনীপুর ও খড়্গপুরের একাধিক পরিবারে করোনাসুরের আঘাত! সংক্রমিত প্রায় ৩০ জন করে, গ্রামকে শান্তি দিয়ে জেলায় ১৪১

thebengalpost.in
শালবনী করোনা হাসপাতাল :
.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১৮ অক্টোবর: আজ দ্বিতীয়া। পঞ্চমী বুধবার থেকে। যদিও করোনা আবহে পুজোর চেনা আমেজ উধাও! তবে, তার মধ্যেই আকাশে বাতাসে শিউলির গন্ধ মনকে নাড়া দেবেই। নতুন পোশাক একটিবার গায়ে চাপিয়ে মণ্ডপে যেতে ইচ্ছে করবেই! কিন্তু, শহর মেদিনীপুর আর খড়্গপুরের যেসকল পরিবার আর এলাকায় নেমে এলো করোনাসুরের নির্মম আঘাত, তাঁদের প্রতি সহমর্মী হয়ে আর করোনা যোদ্ধাদের প্রতি মানবিক হয়ে, পুজোর আনন্দ-উচ্ছ্বাস’টা নাহয় এবার তোলাই থাক! হাইকোর্টের আদেশে শহরের মোড়ে মোড়ে জেলা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকেও দেওয়া হচ্ছে সতর্কবার্তা। সাবধানে, সচেতনভাবে, দূরত্ব বজায় রেখে ও অনাড়ম্বরভাবেই পুজো উদযাপনের নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে। ক্লাবকে দেওয়া ৫০,০০০ টাকা খরচ করতে বলা হচ্ছে, মাস্ক ও স্যানিটাইজারের জন্য। এর মধ্যেই, রবিবার সকালে (১৮ অক্টোবর) জেলা স্বাস্থ্য ভবন সূত্রে, ১৭ অক্টোবরের যে রিপোর্ট পাওয়া গেল, তাতে দেখা যাচ্ছে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১৪১ জন নতুন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন এবং মৃত্যু হয়েছে মাত্র ১ জনের। সুস্থ হয়েছেন প্রায় ১৪০ জন। এজন্য অবশ্যই ধন্যবাদ প্রাপ্য জেলা স্বাস্থ্য ভবন সহ জেলার করোনা যোদ্ধাদের। এই মুহূর্তে চিকিৎসাধীন সংক্রমিত ১৩২৫ জন। মাত্র ২৫৪ জন আছেন করোনা হাসপাতালে। বাকিরা হোম আইশোলেশনে।

thebengalpost.in
শালবনীতে আরো ২০ টি ফিমেল HDU :

.

খড়্গপুর শহর ও শহরতলীতে গত চব্বিশ ঘণ্টায় মোট করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩০ জন, শুধুমাত্র আরটি-পিসিআর অনুযায়ী (র‌্যাপিড অ্যান্টিজেনের মোট সংখ্যা জানা গেলেও স্থানগুলির তালিকা পাওয়া যায়নি)। তালবাগিচা ও হিজলি (কো-অপারেটিভ) এলাকার গোষ্ঠী সংক্রমণ নিয়ে কোন সন্দেহই নেই। এদিনও তালবাগিচায় ৪ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। হিজলি কো-অপারেটিভ এলাকায় একই পরিবারের ২ জন সহ মোট ৩ জন, খয়রাচটি, শ্রীকৃষ্ণপুর এলাকায় দেখা গেছে পরিবার সংক্রমণ। সংক্রমিত একই পরিবারের ৩ জন করে। আইআইটি ক্যাম্পাসে নতুন করে ২ জন, ইন্দা কমলাকেবিন এলাকায় ২ জন , মিরপুরে একই পরিবারের ২ জন, বুলবুলচটিতে ২ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। এই সমস্ত এলাকাগুলিই গোষ্ঠী সংক্রমণের স্বীকার। এছাড়াও, রবীন্দ্রপল্লী, সারদাপল্লী, আনন্দনগর, সোনামুখী ঝুলি, গোলবাজার প্রভৃতি এলাকাতে নতুন করে করোনা সংক্রামিতের সন্ধান পাওয়া গেছে। সবমিলিয়ে সংক্রমিত ৩। আরটি-পিসিআর অনুযায়ী, মেদিনীপুর শহর ও শহরতলীতে সংক্রমিত ২৪ জন। র‌্যাপিড (২৬) ও ট্রুনেট (১৩) এর মোট আক্রান্ত সংখ্যা পাওয়া গেলেও, এলাকাগুলি পাওয়া যায়নি, সেক্ষেত্রে মেদিনীপুর শহর ও শহরতলীর আরো ২-১ জন বাড়তেও পারে বলে মনে করা হচ্ছে, কারণ শহরের কেন্দ্রস্থলে বেসরকারি হাসপাতালেই ট্রুনেট পরীক্ষা করা হয়, তাতে ১৩ জনের রিপোর্ট পজিটিভও এসেছে, ১৭ অক্টোবর। যাইহোক, আরটি-পিসিআর এর ২৪ জনের মধ্যে, মেদিনীপুর সদর ব্লকের গুড়গুড়িপাল থানার গোটগেড়িয়া গ্রামে সংক্রমিত একই পরিবারের ৬ জন। পরিবারের কর্তা (৫৮), কর্ত্রী (৪৮) ছাড়াও দু’জন মেয়ে (২৫ ও ১৪) এবং দু’জন ছেলে (১৬ ও ৬) সংক্রমিত হয়েছেন এই পরিবারে! কালগাঙে ১ জন (৫৫ বছরের মহিলা) এর রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। অপরদিকে, আবাস (৬০ ও ৫২), পাটনাবাজার (৩৬ ও ২৮) এলাকাতেও পরিবার সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। সংক্রমিত বাড়ির কর্তা ও কর্ত্রী রা। কোতোয়ালী থানা এলাকায়, শেখপুরা (17m), সিপাই বাজার (45m), রাজাবাজার (28m) তোলাপাড়া (30f), সুকান্তপল্লী (40m), শরৎপল্লী (79m) তে ১ জন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। কোতোয়ালী থানা এলাকায় আরো ৫ জন সহ মোট ২৪ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে মেদিনীপুর শহর ও শহরতলীতে।

thebengalpost.in
মেদিনীপুর ও খড়্গপুরে সংক্রমিত যথাক্রমে ২৪ জন ও ৩০ জন :

.

অন্যদিকে, ঘাটাল মহকুমার ঘাটাল, দাসপুর ও ক্ষীরপাই মিলিয়ে ২০ জন, বেলদার বেলদা (২), নারায়ণগড় ও ছোটমাতকাৎপুর মিলিয়ে ৪ জন, কেশিয়াড়ি তে ৬ জন, গড়বেতার গড়বেতা, লাপুড়িয়া, দেবগ্রাম মিলিয়ে ৩ জন, চন্দ্রকোনা রোডে ৬ জন, চন্দ্রকোনা টাউনে ৩ জন, কেশপুরে একজন, দাঁতনে ২ জন এবং সবংয়ের মোহাড়, পাঁচবেড়িয়া সবং মিলিয়ে ৩ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন।

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে