‘প্রথা ভাঙা’ নিয়মেই বিয়ে করছেন মেদিনীপুরের অনির্বাণ, কাঁদছেন বাংলার লক্ষ লক্ষ অনুরাগিনী

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট বিশেষ প্রতিবেদন, সুদীপ্তা ঘোষ, ২১ নভেম্বর: না, শুধু জন্মসূত্রে নয়, বেড়ে ওঠা, পড়াশোনা সবকিছুই তাঁর মেদিনীপুর শহরে। পরবর্তী সময়ে থিয়েটারের টানে কলকাতায় যাওয়া এবং ধীরে ধীরে প্রতিষ্ঠিত ও সফল হওয়া। তবে, টলিপাড়ায় কান পাতলে শোনা যায়, অনির্বাণ ভট্টাচার্যের পা’টা এখনও মাটিতেই আছে। টান ও ভালোবাসা আছে, মফস্বল শহর মেদিনীপুরের প্রতিও। সেই অনির্বাণ এবার বিয়ের পিড়িতে বসতে চলেছেন। বাংলার অসংখ্য মহিলা অনুরাগীর হার্টথ্রব এই মুহূর্তে অনির্বাণ ভট্টাচার্য। স্বাভাবিকভাবেই মন খারাপ তাঁদের। জানা গেছে, আগামী সপ্তাহের ২৬ তারিখ (২৬ নভেম্বর), বৃহস্পতিবার সল্টলেকের ন্যাশনাল মাইম ইনস্টিটিউটে ঘরোয়া আয়োজনের মধ্যে দিয়েই চার হাত এক হতে চলেছে।

thebengalpost.in
অনির্বাণ ও মধুরিমা :

.
.

সূত্রের খবর অনুযায়ী, অনির্বাণের হবু স্ত্রী তাঁর বারো বছরের পুরানো বান্ধবী মধুরিমা গোস্বামী। মধুরিমাও অনির্বাণের মতো থিয়েটার প্রেমী। যেখানে অনির্বাণের অভিনয় জীবনের শুরু থিয়েটার দিয়ে, সেখানে থিয়েটার নিয়েই পড়াশুনো করেছেন মধুরিমা। এমনকি মধুরিমা এবং অনির্বাণ একসাথে বেশ কয়েকটি নাটকও প্রযোজনা করেছেন। মধুরিমার বাবা পদ্মশ্রীখ্যাত মুখাভিনেতা শিল্পী নিরঞ্জন গোস্বামী। টলিউড ইন্ডাস্ট্রির মোস্ট এলিজেবল ব্যাচেলর হিসেবে এতদিন যার কথা প্রথমেই মাথায় আসতো তিনি ছিলেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য। গতানুগতিক জীবনধারা থেকে চিরকালই বেশ দূরে থেকেছেন অনির্বাণ। প্রসঙ্গত, বিয়েটাও হতে চলেছে প্রথা ভাঙা নিয়মেই। কন্যাপক্ষের নিমন্ত্রণ পত্রে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, অগ্নিকে সাক্ষী রেখে মন্ত্র উচ্চারণ এবং সাত পাক ঘুরে নয়; বরং পরিবার এবং ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের সাথে গল্প, গান, মজা, আড্ডা, খাওয়া-দাওয়া ইত্যাদির মাধ্যমেই জীবন শুরু করতে চলেছেন অনির্বাণ এবং মধুরিমা।

thebengalpost.in
মধুরিমা গোস্বামী :

.

উল্লেখ্য যে, ২৬ নভেম্বর রেজিস্ট্রি ম্যারেজের মাধ্যমে বিয়ে করবেন দু’জনে এবং ২৭ নভেম্বর বিয়ের জায়গাতেই ঘনিষ্ঠদের ছোট্ট করে একটি রিসেপশন পার্টি দিচ্ছেন নবদম্পতি। অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন সৃজিত মুখার্জী, ব্রাত্য বসু। এই বছরের শুরু থেকেই অনির্বাণের ফিল্ম ক্যারিয়ার বেশ ভালই যাচ্ছে। বছরের শুরুর দিকে সৃজিত মুখার্জী পরিচালিত “দ্বিতীয় পুরুষ” বক্সঅফিসে যথেষ্ট সাড়া ফেলেছিল। এরপর ওটিটি প্ল্যাটফর্মে “ডিটেকটিভ”, পুজোর সময় “ড্রাকুলা স্যার” দর্শক এবং ক্রিটিক দিয়ে মধ্যে ভালই প্রশংসিত হয়েছিল। অপরদিকে, বছরের শেষের দিকে, ব্যক্তিগত জীবনেও নতুন পদক্ষেপ নিতে চলেছেন তিনি। বলাবাহুল্য এই বছরটি অন্যান্যদের তুলনায় অনির্বাণের কাছে নিঃসন্দেহে ‘স্পেশাল’!

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে