আধার কার্ড তৈরি ও আধার কার্ড সংশোধনের জন্য ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা! বে-আইনি ব্যবসা চালানোর অপরাধে পশ্চিম মেদিনীপুরে পাকড়াও ৪ জন

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১৭ অক্টোবর: একেকটি আধার কার্ড তৈরি কিংবা আধার কার্ড সংশোধনের জন ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা! বে-আইনিভাবে এই ব্যবসা চালানোর অপরাধে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা ২ নং ব্লকের ইলামবাজার থেকে ৪ জনকে আটক করল পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, সরকারি অনুমতি ছাড়াই, “কমন সার্ভিস সেন্টার” খুলে টাকার বিনিময়ে আধার কার্ড তৈরি ও সংশোধনী’র কাজ চলছে দিনের পর দিন! সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে, আজ (শনিবার, ১৭ অক্টোবর) ৪ জনকে আটক করল পুলিশ। ঘাটালের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক অগ্নীশ্বর চৌধুরী জানিয়েছেন, “সেন্টারটি ফেক বা অবৈধ কিনা তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে যে এলাকায় এই কমন সার্ভিস সেন্টার চলছিল সেখানে এদের কোনো অনুমতি নেই। তদন্তে নেমে দেখা গেছে, মুর্শিদাবাদে এদের একটি কমন সার্ভিস সেন্টারের অনুমতি আছে। কিন্তু, সেই অনুমতি নিয়েই এখানে ব্যবসা করছিল তারা। গ্রাহকদের কাছ থেকে মোটা টাকা নিয়ে আধার কার্ড সংশোধন, নতুন আধার কার্ড করে দিচ্ছিল, এই অভিযোগে চারজনকে আটক করা হয়েছে। পুরো বিষয় তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।”

thebengalpost.in
আধার কার্ড তৈরি ও আধার কার্ড সংশোধনের জন্য ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা! বে-আইনি ব্যবসা চালানোর অপরাধে পশ্চিম মেদিনীপুরে পাকড়াও ৪ জন :

.

জানা গিয়েছে, কয়েকদিন ধরেই চন্দ্রকোনা থানার পুলিশের কাছে অভিযোগ আসছিল, ৫০০ থেকে ৭০০ টাকার বিনিময়ে, নতুন আধার কার্ড তৈরি ও আধার কার্ড সংশোধনীর কাজ করছে চন্দ্রকোনার ইলামবাজার এলাকার একটি “কমন সার্ভিস সেন্টার”। সরকার যেখানে সম্পূর্ণ বিনা পয়সায় এই কাজ করার কথা বলছে, সেখানে এরা কেন এত টাকা নিচ্ছে! এই সন্দেহ থেকেই পুলিশকে জানায় স্থানীয় কিছু লোকজন। ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ চারজনকে আটক করেছে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। তবে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার অনেকেরই অভিযোগ, বিভিন্ন পোস্ট অফিসকে এই দায়িত্ব দেওয়া হলেও, লকডাউনের পর থেকে তারা এই কাজ এখনো শুরুই করেনি! সেই সুযোগেই দুর্বৃত্তরা এই ধরনের ব্যবসা বা প্রতারণার ফাঁদ পেতেছে বলে তাঁদের অভিযোগ।

.
.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে