শুভেন্দু জল্পনার মধ্যেই জঙ্গলমহলের প্রবীণ তৃণমূল নেতা নতুন দলে যোগদান করলেন

thebengalpost.in
শুভেন্দু জল্পনার মধ্যেই জঙ্গলমহলের প্রবীণ তৃণমূল নেতা নতুন দলে যোগদান করলেন :
.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, ঝাড়গ্রাম, ১২ নভেম্বর : লালগড়ের তথা অবিভক্ত মেদিনীপুরের (বর্তমান, ঝাড়গ্রাম) একসময়ের অত্যন্ত জনপ্রিয় ও ডাকাবুকো নেতা ছিলেন বনবিহারী রায়। নেতাই আন্দোলনে শুভেন্দু অধিকারী’র সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে লড়াই করেছেন। সম্প্রতি (নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে) তিনি রাজনীতির মঞ্চে একেবারেই নবীন বা সদ্যজাত দল “হাম পার্টি” (HUM Party) তে যোগদান করলেন এবং সদস্যপদ গ্রহণ করলেন। দলের মুখপাত্র পরিমল গুছাইত জানিয়েছেন, “আমরা তাঁর মতো অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদকে পেয়ে গর্বিত। তাঁকে আমরা দলের রাজ্য কমিটিতে বিশেষ পদ দিতে চলেছি খুব শীঘ্রই।” ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূলের অন্যতম পদাধিকারী বনবিহারী রায়ের নতুন এই দলে যোগদান করা নিয়ে ইতিমধ্যে চাঞ্চল্য ছড়ালেও, জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন।

thebengalpost.in
বনবিহারী রায় যোগ দিলেন হাম পার্টিতে :

.
.

প্রবীণ এই তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একসময়ের বিশ্বস্ত এই সেনাপতি ২০১৬-‘১৭ পর্যন্তও দলে অত্যন্ত সক্রিয় ছিলেন। কিন্তু, দলীয় প্রার্থী করা নিয়ে, তুলনামূলক নবীনদের সাথে ২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে তাঁর বিরোধ বাঁধে। দল সেই সময় প্রবীণ নেতা তথা জঙ্গলমহলের ডানপন্থী আন্দোলনের সুপরিচিত ‘মুখ’ বনু বাবু’র পাশে দাঁড়ায়নি বলে অভিযোগ ছিল তাঁর অনুগামীদের। অভিমানাহত হয়েছিলেন প্রবীণ নেতা বনবিহারী রায়। আর, সেই অভিমানের কারণেই ২০১৮ সাল থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছিলেন বনু বাবু (বনবিহারী রায়)। তবে, সম্প্রতি পিকে’র টিম দায়িত্বে আসার পর, রাজ্যজুড়ে দলের প্রবীণ নেতাদের ফিরিয়ে আনার কর্মসূচি নেওয়া হয়। সেই সূত্র ধরে, সাম্প্রতিক (২০২০) জেলা কমিটিতে তাঁকে স্থান দেওয়া হয়েছিল বলেই বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে। এর মধ্যেই, নতুন এই দলে তাঁর যোগদান করা নিয়ে, চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

thebengalpost.in
জঙ্গলমহলের প্রবীণ তৃণমূল নেতা বনবিহারী রায় নতুন দলে যোগদান করলেন :

.

নতুন এই দলের (হাম পার্টির) মহাসচিব স্যামসন হুডা জানিয়েছেন, “উনি বিভিন্নভাবে আমাদের দলের বিষয়ে জানতে পারেন। আমাদের দলের এজেন্ডা বা নীতি ওনার ভালো লাগে, তাই সম্প্রতি লালগড়ে তাঁর বাসভবনে গিয়ে আমরা তাঁর হাতে দলীয় পতাকা ও সদস্যপদ তুলে দিই। ওনাকে আমরা রাজ্য কমিটিতে যথাযথ পদে অভিষিক্ত করব।” উপস্থিত ছিলেন হাম পার্টি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শমীক ব্যানার্জী ও দলীয় মুখপাত্র শ্রী পরিমল গুছাইত। এদিকে, ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান বীরবাহা সরেন জানালেন, এই বিষয়ে তাঁর কাছে কোন খবর নেই, খোঁজ নিয়ে দেখবেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, হাম পার্টি গত ২১ শে অক্টোবর (২০২০) নির্বাচন কমিশনের স্বীকৃতি লাভ করে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও কর্মসংস্থানকে অগ্রাধিকার দিয়েই তাঁরা ২০২১ এর নির্বাচনে লড়াই করতে চান বলে জানিয়েছেন।

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে