“প্রশাসনিক সভা নয়, নির্বাচনী সভা করতে আসছেন মুখ্যমন্ত্রী, কাউকে বিশ্বাস করেন না, তাই নিজেই ছুটছেন”, সকাল সকাল মমতাকে বিঁধলেন দিলীপ

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, খড়্গপুর, ৩ অক্টোবর: সবং হোক বা খড়্গপুর তৃণমূল কংগ্রেস কিংবা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)’কে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। কোটি কোটি টাকার দুর্নীতি থেকে শুরু করে কৃষি বিলের বিরোধিতা কিংবা উত্তরপ্রদেশের ধর্ষণের ঘটনায় তৃণমূল সাংসদের হেথ্রাসে যাওয়ার ঘটনা’কে ব্যঙ্গ করেছেন দিলীপ ঘোষ। একইসঙ্গে, বিধায়ক ও সাংসদ হিসেবে নিজের উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরেছেন। এক কথায় বলা চলে, শুধু পৌরসভা নয়, বিধানসভা ভোটেরও দামামা বাজিয়ে দিয়েছেন তিনি। গতকাল দিলীপ ঘোষ বলেছেন, “৭০ বছর পর কৃষকদের মুক্তি দিতে, ফসলের সঠিক মূল্য দিতেই এই কৃষি বিল। ধানের সহায়ক মূল্য ১৮৮৫ টাকা/কুইন্টাল করেছে মোদী সরকার। “চাষিরা আলু বিক্রি করছে ৫ টাকায়, সেই আলু বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৩৫-৪০ টাকায়, মাঝখানের এই ৩০-৩৫ টাকা কে খাচ্ছে? দিদির ভাইয়েরা খাচ্ছে। ইচ্ছে করে শুরু থেকে আলু বের করছে না। বাংলার মিডিয়া উঃ প্রদেশের ধর্ষণের ঘটনা দেখাচ্ছে, খুব ভালো কথা! কিন্তু, বাংলায় একের পর এক ধর্ষণ হলেও দিদির ভয়ে মিডিয়া চুপ। আর দিদির লোকেরা উত্তরপ্রদেশে যাচ্ছে, অথচ বাংলা একের পর এক খুন ধর্ষণের বিচার নেই। বিজেপি নেতা কর্মীরা প্রতিবাদ করলেই মেরে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হচ্ছে। অপদার্থ, দুর্নীতিগ্রস্ত পুলিশ দেখিয়ে, বিজেপি কর্মীদের আটকে রাখা যাবেনা! ওই পুলিশকে দিলীপ ঘোষ ভয় পায়না! উত্তরপ্রদেশে দোষীদের গ্রেফতার করা হয়েছে, উচিৎ শাস্তি পাবে। আমি বিধায়ক হওয়ার পর, খড়্গপুরের রাস্তাঘাটের কাজ শুরু হয়েছে। খরিদা ফ্লাইওভারের কাজ শুরু হয়েছে। এতদিন কি সবাই ঘাস ছিঁড়ছিলেন !”

thebengalpost.in
খড়্গপুরে দিলীপ ঘোষ :

.

অপরদিকে, তৃণমূল থেকে আসা কর্মীদের যোগদান করিয়ে দিলীপ ঘোষ মন্তব্য করেছেন, “বিজেপির কোনো কার্যকর্তা তৃণমূলে যেতে পারেনা, যারা গেছে হয় তাদের মাথা খারাপ, নাহলে তৃণমূলের এঁটো কাঁটা খেতেই গেছে। খড়্গপুরের নাকি কিছু কার্যকর্তা তৃণমূলে গেছে, আমি জানিনা কোন কার্যকর্তা! একজনকে জানি, পুরানো বিজেপি কর্মী, তাঁকে পুলিশ দিয়ে ভয় দেখিয়ে তৃণমূলে যোগদান করানো হয়েছে। কিন্তু, আমাদেরকে কোনো ভয় বা লোভ দেখাতে হয়না, আমরা ক্ষমতায়ও নেই, তবু এত লোক যোগদান করছেন মঞ্চে জায়গা দেওয়া যাচ্ছেনা!” আর আজ সকালে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আগামী ৬ অক্টোবরের প্রশাসনিক সভা’কে ব্যঙ্গ করে বলেন, “উনি প্রশাসনিক সভা নয়, চারিদিকে নির্বাচনী জনসভা করে বেড়াচ্ছেন। কেন্দ্র সরকারের সমালোচনা করেছেন আর নানা রকম ঘোষণা করছেন! আসলে কাউকে বিশ্বাস করেন না, তাই নিজেই দৌড়ে বেড়াচ্ছেন! কিন্তু উনি জানেন না, মানুষ এখন আর ওনাকে বিশ্বাস করেন না।”

.
.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে