রামনগরে শুভেন্দুর ‘মেগা শো’ এর আগেই তাঁকে ‘চরম বার্তা দেওয়া’ অডিও ভাইরাল হল! শীর্ষনেতার ক্ষোভ ‘আর কত চাই?’

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পূর্ব মেদিনীপুর, ১৯ নভেম্বর: ক্ষুব্ধ দল। ক্ষুব্ধ স্থানীয় থেকে শুরু করে রাজ্য নেতৃত্ব। তাই, এবার শুভেন্দু অধিকারী’কেও পাল্টা চাপে রাখার প্রক্রিয়া শুরু হল বলেই মনে করা হচ্ছে! অন্তত শুভেন্দু’র ‘মেগা শো’ অর্থাৎ আজ (১৯ নভেম্বর) রামনগরে সমবায় উপলক্ষে, বিশাল সমাবেশের আগের সন্ধ্যাতেই ভাইরাল হওয়া অডিও তে সেকথাই স্পষ্ট হল। অডিও’টির সত্যতা যাচাই করেনি দ্য বেঙ্গল পোস্ট। তবে, ভাইরাল অডিওতে তৃণমূলের শীর্ষস্থানীয় রাজ্য নেতা পূর্ব মেদিনীপুরের স্থানীয় এক নেতাকে স্পষ্ট বলছেন, “ওকে আমরা তাড়াবনা। তাড়ালে তো ও শহীদ হয়ে যাবে। তবে, তোমরা কলতলায়, চা-পান দোকানে আওয়াজ তোলো, ‘আর কত চাই?’ ”

thebengalpost.in
রামনগরের পথে শুভেন্দু অনুগামীরা :

.
.

ভাইরাল হওয়া ওই অডিওতে আরও শোনা যাচ্ছে, “নিজে মন্ত্রী, হলদিয়া ডেভলেপমেন্টের চেয়ারম্যান। ঘরে দুটো সাংসদ, একটা পৌরসভার চেয়ারম্যান। আর কত চাই? এত বড় হয়ে গেছে যে, দিদির জায়গা নিতে চাইছে, সেটা সম্ভব? তোমরাই বল সেটা সম্ভব?” তবে, ওই অডিওতে তৃণমূলের শীর্ষস্থানীয় ওই নেতা এও বলেছেন, “আমরা ওকে দলে রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। দেখা যাক কি হয়! চ্যাপ্টার ক্লোজ হলেই আমি নিজে নামব। যাতায়াত শুরু করব। ৪ ঘন্টার নোটিশে নন্দীগ্রামে এত লোক জড়ো হলে, দিদি গেলেতো সবাই তাঁর সভায় চলে আসবে! বলছে, নন্দীগ্রামে কেউ যায়নি। তুমি এলাকার বিধায়ক, তুমি যাবেনা তো কে যাবে ওখানে! রাস্তার লোক যাবে, কলকাতা থেকে নেতা যাবে!” ওই অডিওতে স্থানীয় যে নেতার গলা শোনা গেছে, সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, তিনি তমলুকের অনন্তপুর- ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলের প্রাক্তন অঞ্চল সভাপতি শৈলেন মাইতি। তিনি এই অডিওর কথা স্বীকার করেছেন বলে জানা যায়। অডিওর অন্য প্রান্তের রাজ্য নেতা হলেন, স্বয়ং সুব্রত বক্সী, রাজ্য তৃণমূলের সর্বোচ্চ পদাধিকারী তথা রাজ্য সভাপতি। এমনটাই দাবি করা হয়েছে, স্থানীয় নেতৃত্বের তরফে। তাঁরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওই রাজ্য নেতাকে অডিও তে বলছেন, “আমরা স্যার এটাই বলতে চাইছি, দল ছেড়ে, মন্ত্রীত্ব ছেড়ে যা করার করুক! তবে, আমরা দলের সঙ্গে, প্রতীকের সঙ্গেই আছি।” রাজ্য নেতার তরফেও এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, “ঐক্যবদ্ধ থাকো। সর্বত্র এই আওয়াজ তোলো, অর কত চাই?”

thebengalpost.in
রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সীই কি চরম বার্তা দিলেন ?

.

অপরদিকে, শুভেন্দু অনুগামীরা আজ সকাল থেকেই রামনগরের দিকে রওনা হয়ে গেছেন। এদিকে, শুভেন্দু’কে বাদ দিয়েই বিভিন্ন জেলা নেতৃত্ব ঐক্যবদ্ধ হওয়ার বার্তা দিচ্ছেন এবং নানা উদ্যোগ নিচ্ছেন। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব ইতিমধ্যেই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কালীঘাটে পৌঁছে গিয়েছিলেন গত ১৭ ই নভেম্বর, মঙ্গলবার। গতকাল (১৮ নভেম্বর) জেলা তৃণমূলের মুখপাত্র দেবাশীষ চৌধুরী বলেছেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে অনেক গোল্ডমাইন আছে। কাকে কখন, কিভাবে ব্যবহার করতে হবে তিনি জানেন।” অন্যদিকে, শুভেন্দু’র সাথে কথা বলার প্রক্রিয়াও চালানো হচ্ছে। সবমিলিয়ে, এতদিন দলের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করা, দলকে চাপে রাখা শুভেন্দু অধিকারী’কেও যে পাল্টা চাপে রাখার কৌশল নেওয়া শুরু হয়ে গেল তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্বের তরফে, তা বলাই বাহুল্য!

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে