‘দলবদল’ কিংবা ‘ভোলবদল’ স্থায়ী হল মাত্র ২৪ ঘন্টা! বিজেপি’তে গিয়েও তৃণমূলে ফিরলেন মেদিনীপুর সদরের পঞ্চায়েত সদস্য

বিজ্ঞাপন

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, মেদিনীপুর, ৪ ডিসেম্বর: মাত্র চব্বিশ ঘণ্টা স্থায়ী হল ‘দলবদল’! তৃণমূল থেকে বিজেপিতে গিয়েও, ফের তৃণমূলেই ফিরে এলেন, চাঁদড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত ভাটপাড়া’র পঞ্চায়েত সদস্য সৌম্য মাইতি। তাঁকে দলে ফিরে পেয়ে উচ্ছ্বসিত, শাসক দলের নেতাকর্মীরা। তাঁরা বললেন, ওকে নানারকম প্রলোভন দেখিয়ে, বিজেপিতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিল, পারেনি! এই এ ঘটনায়, বিজেপির কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি, তবে গতকাল (৩ ডিসেম্বর) রাতে, সৌম্য মাইতি’র দলবদলের খবর বিজেপির স্থানীয় নেতাকর্মীরা সমাজ মাধ্যমে ঘটা করে প্রকাশ করেছিল। যদিও, তা স্থায়ী হল মাত্র কয়েক ঘণ্টা!

thebengalpost.in
বিজেপির সঙ্গে সৌম্য মাইতি (সোয়েটার পরিহিত) :

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২০১৮ সালের পর মেদিনীপুর সদর ব্লকের অন্তর্গত চাঁদড়া গ্রাম পঞ্চায়েতটি বিজেপি দখল করে। যে কয়েকটি গ্রাম সংসদ তৃণমূলের দখলে থাকে, তার মধ্যে অন্যতম ভাটপাড়া। সেই ভাটপাড়ার পঞ্চায়েত সদস্য (পরিচিত শব্দে, পঞ্চায়েত) সৌম্য মাইতি। গতকাল রাতে তিনি বিজেপি’র পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পার্টি অফিসে গিয়ে (সিপাই বাজারে) দলবদল করে বলে জানা যায়। বিজেপির স্থানীয় নেতৃত্বের সাথে, সৌম্যর ছবিও ফেসবুকে পোস্ট করা হয়। তবে, রাত গড়িয়ে সকাল হতেই, ‘ভোল বদল’ করলেন সৌম্য! আজ (৪ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা নাগাদ ফিরে এলেন নিজের দল তৃণমূলে। নিজের দলে ফিরে এসে তিনি বললেন, “আমাকে বিজেপি নেতারা প্রলোভন দেখিয়ে কাল রাতে বিজেপিতে জোর করে যোগদান করিয়েছিল। আজ নিজের অনুশোচনা হয়! তৃণমূল ছাড়তে পারবো না। আমি দশ বছরের পঞ্চায়েত সদস্য। তাই সব উপেক্ষা করে তৃণমূলেই ফিরে এলাম।” অপরদিকে, শাসক দলের স্থানীয় পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য নয়ন দে বললেন, “সৌম্য লড়াকু ছেলে। বিজেপির গ্রাম পঞ্চায়েতের বহু দুর্নীতির বিরুদ্ধে ও আন্দোলন করেছে। ও কখনোই বিজেপি’তে যেতে পারেনা। যতই প্রলোভন দেখাক, চাপ দিক।”
মেদিনীপুর সদর ব্লকের শাসকদলের নেতা নয়ন দে'র সঙ্গে সৌম্য মাইতি :

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে