সুশান্তের স্মরণে সত্যপ্রকাশের বকুল গাছ খড়্গপুরকে চিরকাল শোনাবে ‘এম এস ধোনি’র গল্প

Advertisement

মণিরাজ ঘোষ, খড়্গপুর, ৩০ জুন : খড়্গপুর, এম এস ধোনি আর সুশান্ত সিং রাজপুত যেন মিলেমিশে একাকার হয়ে আছে, রেলশহরের আকাশে বাতাসে। তাই, ১৪ ই জুন থেকেই অঝোরে কেঁদে চলেছে খড়্গপুর। ‘রিল লাইফ’ ধোনির স্মৃতি এখনো যে খড়্গপুরের পরতে পরতে। আর সেই স্মৃতির অন্যতম যোগসূত্র ‘রিয়েল লাইফ ধোনি’, অর্থাৎ ক্রিকেটার মহেন্দ্র সিং ধোনির বন্ধু সত্যপ্রকাশ, আজো স্মরণ করেন, সুশান্ত সিং রাজপুতের স্যুটিং এর সেই দু’মাস! তাঁর বাড়িতে যাওয়া, একসাথে ঘুরতে বেরোনো, তাঁর (সত্যপ্রকাশের) স্ত্রী’র অনুরোধে সুশান্তের ফুচকা খাওয়া; আরো কত কি! সেই হাসি খুশি, সু-অভিনেতা, সুন্দর মানুষ’টাই আর নেই; বিশ্বাস করতে কষ্ট হয় সত্যপ্রকাশ আর তাঁর পরিবার ও বন্ধু-বান্ধবদের। তবে, স্মৃতিতে সুশান্ত চিরকাল থাকবেন! সকল সুশান্ত অনুরাগী খড়্গপুরবাসী কিংবা সিনেমাপ্রেমী’দের স্মৃতিতেও যাতে সুশান্ত চির অমলিন, অক্ষয়, অমর রূপে বিরাজ করেন, সে জন্যই তাঁর মৃত্যুর ১৫ দিনের মাথায় শুধু মিলিত হওয়া, শ্রদ্ধা জানানো, প্রদীপ প্রজ্জ্বলন কিংবা মানবসেবা করেই ক্ষান্ত হলেন না সত্যপ্রকাশ, রাহুল মোংরে, শিবা, টমাস সহ সুশান্তের অসংখ্য পুরুষ ও মহিলা অনুরাগীরা। সুশান্তের স্মৃতিতে তাঁরা লাগালেন চারটি বকুলগাছ; যা মানুষকে ছায়া দেবে আর শোনাবে সুশান্তের গল্প, বলিউডের এম এস ধোনি’র না বলা গল্প!

Advertisement
দ্য বেঙ্গল পোস্ট
স্যুটিং এর দিনগুলিতে, সুশান্ত ও সত্যপ্রকাশ (ছবি: সংগৃহীত) :

খড়্গপুরের বম্বে সিনেপ্লেক্সের (সিনেমা হল) ঠিক বাইরে, হল মালিকের একান্ত ইচ্ছেয় সত্যপ্রকাশ লাগালেন একটি বকুল গাছ। মূলত, রাহুল মোংরে ও সত্যপ্রকাশের উদ্যোগেই শহরের আরো তিনটি রিল ও রিয়েল লাইফ ধোনি (মহেন্দ্র সিং ও সুশান্ত সিং)’র স্মৃতি বিজড়িত স্থানে লাগানো হল তিনটি বকুল গাছ। কমলের চাউমিন দোকান, টমাসের চা দোকান এবং শিবার ফুচকা দোকানের সামনে লাগানো হল তিনটি বকুল গাছ। সত্যপ্রকাশ বললেন, “বম্বে সিনেমা হলে আসা সিনেমানুরাগীরা যে নায়ককেই দেখতে আসুক না কেন, তারা যাতে সুশান্ত সিং রাজপুত’কে স্মরণ করতে পারে, তার কথা আলোচনা করতে পারে, সেজন্যই হলের বাইরে বকুল গাছ লাগানো হয়েছে। আর, এই গাছ রৌদ্রের দিনে, সিনেমা দেখতে আসা মানুষকে ছায়া প্রদানও করবে। গাছের তলায় দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে তারা গল্প করবে, আর সূশান্তের কথা স্মরণ করবে। এছাড়াও যে দোকানগুলিতে ধোনি নিয়মিত যেতেন এবং সুশান্তও স্যুটিং এর সময় গিয়েছেন, চাউমিন, চা ও ফুচকা খেয়েছেন, সেই জায়গাগুলিতেও লাগানো হয়েছে একটি করে বকুল গাছ। সুশান্তের স্মৃতি অক্ষয়-অমর করে রাখার জন্যই এই প্রচেষ্টা।”

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
বোম্বে সিনেপ্লেক্সের বাইরে :

আর এই প্রেম, হৃদয়ের বন্ধন, স্মৃতি আগলে রাখার আন্তরিক প্রচেষ্টা’কে রবি ঠাকুরের সুরে বলা যেতেই পারে— “আমি তোমার সঙ্গে বেঁধেছি আমার প্রাণ, সুরের বাঁধনে / তুমি জান না, আমি তোমারে পেয়েছি অজানা সাধনে। / সে সাধনায় মিশিয়া যায় বকুলগন্ধ, / সে সাধনায় মিলিয়া যায় কবির ছন্দ…..।।”

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
সুশান্ত স্মরণে :
দ্য বেঙ্গল পোস্ট
মানবসেবার মধ্য দিয়ে সুশান্ত স্মরণ :
দ্য বেঙ্গল পোস্ট
বকুল গাছ রোপন :