সব হারিয়েছে ওরা, সাধ্যমতো সাহায্য নিয়ে সুদূর সুন্দরবনে ‘মেদিনীপুর ছাত্রসমাজ’, রক্তের সংকট মেটাতে অভিনব ভাবনা মেদিনীপুর ক্যুইজ কেন্দ্রের

Advertisement

বিশেষ প্রতিবেদন, মণিরাজ ঘোষ, ২৪ জুন : অবিভক্ত মেদিনীপুর জেলার সুপরিচিত স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘মেদিনীপুর ছাত্রসমাজ’ আমফান বিপর্যস্তদের জন্য ত্রাণ নিয়ে পৌঁছে গিয়েছিল সুদূর সুন্দরবন এলাকায়। সুন্দরবন এলাকার অসহায় মানুষগুলি আমফান ঝড়ে হারিয়েছেন নিজেদের সবকিছু! সামান্য ত্রাণে তাদের সুখ ফিরবেনা, তবে কয়েকদিনের খাদ্যের সংস্থান হয়তো হবে। আর, একটা ত্রিপলে হয়তো একটু স্বস্তি! এই ভাবনা থেকেই, অবিভক্ত মেদিনীপুর জেলার গন্ডি ছাড়িয়ে মেদিনীপুর ছাত্রসমাজ পুনরায় রওনা দিয়েছিল, সুন্দরবনের উদ্দেশ্যে। করোনা পরিস্থিতিতে ইতিপূর্বে যেখানে দু-দু’বার ত্রানসামগ্রী পাঠানো ছাড়াও, অতীতে পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করা হয়েছে। সোমবার তাঁরা সুদূর সুন্দরবনের বিপর্যস্ত পাথরপ্রতিমার ৭০ টি, কাশীপুরনগরের ৩০ টি, রায়দীঘির ৫০ টি দুর্গত পরিবারের হাতে তুলে দিলেন চাল, ডাল, তেল, নুন, হলুদ প্রভৃতি এবং একটি করে ত্রিপল। ত্রাণ বিতরণ করে সোমবার অনেক রাতে যখন মেদিনীপুরে ফিরলেন, ছাত্রসমাজের সম্পাদক রাজকুমার বেরা, সহ-সম্পাদক অনিমেষ প্রামাণিক, কোষাধ্যক্ষ কৌশিক কঁচ এবং সদস্য সুকান্ত অট্ট’রা, তখন আর শরীরে দীর্ঘ সফরের ক্লান্তি নেই, গভীর অন্ধকারে নিজেদের সাধ্যমতো আলো ছড়িয়ে দিয়ে আসার গভীর পরিতৃপ্তি বিরাজ করছে।

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
‘মেদিনীপুর ছাত্রসমাজ’ সুন্দরবনে ত্রাণ নিয়ে :

রক্তের ভয়াবহ সঙ্কটে ভুগছে ব্লাড ব্যাংকগুলি। কিন্তু, সময় অনুকূল নয়। ভুরি ভুরি রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত হচ্ছেনা। রক্তদান শিবির আয়োজনের ক্ষেত্রে বিশাল আড়ম্বর দেখানো সম্ভব নয়! তাই, মেদিনীপুর ক্যুইজ কেন্দ্রের অভিনব ভাবনা “ইনহাউস ব্লাড ডোনেশন” ক‌্যাম্প। ব্লাড ব্যাংকে গিয়ে সরাসরি রক্তদান করা এবং রক্তদান করতে উৎসাহিত করা। এতে বিশাল কর্মযজ্ঞ সম্পাদন করতে হয়না, প্রচুর ব্যয় করতেও হয়না। এই আকালের দিনে তাই সর্বোত্তম প্রচেষ্টা রক্তের চাহিদা পূরণের ক্ষেত্রে। মেদিনীপুর, হলদিয়া, তমলুক ব্লাড ব্যাংকে ইতিমধ্যে এই কর্মসূচি সম্পাদিত হয়েছে। চতুর্থ পর্ব সোমবার অনুষ্ঠিত হল, কাঁথি ব্লাড ব্যাংকে। সংগঠনের পক্ষ থেকে ১০ জন রক্তদাতার লক্ষ্য নিয়ে এই শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল এবং এদিন ১০ জনই রক্ত দিয়েছেন। এদিন যাঁরা এই মহতী উদ্যোগে সামিল হলেন, তাঁরা হলেন- ব্যবসায়ী স্বপন মাইতি, শিক্ষক সৌমিত্র সামন্ত, প্রখ্যাত নৃত্যশিল্পী ও কোরিওগ্রাফার নয়নরাজ দাস এবং শীতল প্রসাদ মাইতি, চেন্নাই মেট্রোর কর্মী দেবব্রত মাইতি, নার্সিং পাঠরত ছাত্র সায়ন ভূঁইয়া, শিক্ষক পুস্পেনজিৎ বেরা, শিক্ষক তারাশঙ্কর ত্রিপাঠী, সংগীত শিক্ষক সত্যজিৎ সামন্ত এবং সংগঠনের সদস্য শিক্ষক সোমনাথ ঘোড়াই। ক্যুইজ কেন্দ্রের চিরাচরিত রীতি অনুযায়ী এবং সংগঠনের বছরব্যাপী সবুজায়নের অভিযানের সঙ্গে সাযুজ্য রেখে প্রত্যেক রক্তদাতাদের হাতে একটি করে উচ্চ ফলনশীল পেয়ারা চারা তুলে দিয়ে কৃতজ্ঞতা জানানো হয়। ক্যুইজ কেন্দ্রের কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক সুজন বেরা ও সভাপতি রিংকু চক্রবর্তী সমস্ত রক্তদাতা ও উপস্থিত সদস্য-সদস্যাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন এবং ঘোষণা করেছেন যে, ৭ জুলাই সংগঠনের উদ্যোগে তমলুক ব্লাড ব্যাংকে পরবর্তী ইন হাউস ব্লাড ডোনেশন ক্যাম্পটি অনুষ্ঠিত হবে।
দ্য বেঙ্গল পোস্ট
মেদিনীপুর ক্যুইজ কেন্দ্রের ইন হাউস ব্লাড ডোনেশন ক‌্যাম্প, উপহার চারাগাছ :

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
চতুর্থ রক্তদান শিবির :

Advertisement