বড় সিদ্ধান্ত! করোনা রুখতে এবার তুলসী গাছের চাষকেও একশো দিনের কাজে অন্তর্ভুক্ত করা হল

Advertisement

বিশেষ প্রতিবেদক, কলকাতা, ২২ জুন : করোনা রুখতে “আয়ুশ ক্বাথ” এর জুড়ি মেলা ভার! বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী, রাজ্যের বহু স্বাস্থ্যকর্মী থেকে আমলা, পুলিশ থেকে সাধারণ মানুষ এই পাচন ব্যবহার করে চলেছেন দিন দু’বেলা করে। ইতিমধ্যে অনেক দেশে, আয়ুশ ক্বাথ এর সুফল মিলেছে বলেও জানা গেছে। তাই, আদা, গোলমোরিচ, দারচিনি এবং তুলসী দিয়ে তৈরি এই আয়ুর্বেদিক পাচন এবার বাণিজ্যিক ভাবে তৈরি করতে উদ্যোগী হল রাজ্য সরকার। আর এক্ষেত্রে, এই আয়ুশ ক্বাথের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান তুলসী গাছ লাগানোর জন্য এই বিষয়টিকে ১০০ দিনের কাজে অন্তর্ভুক্ত করা হল।

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
আয়ুশ ক্বাথ তৈরির উপকরণ :

করোনা মোকাবিলায় সামান্যতম ত্রুটিও রাখতে চাইছে না রাজ্য সরকার। তাই এই বিষয়ে ঘোষণা করা হয়েছে, আপাতত কোচবিহার জেলার ২ টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় এই তুলসী চাষ করা হবে। ১ বিঘা করে জমি আছে, এরকম ১৫০ জন চাষিকে নির্বাচন করা হয়েছে। তাঁরা ১৫০ বিঘা জমিতে এই চাষ করবেন। কোচবিহারের ১২ টি জনপদকে তুলসী গ্রাম রূপে গড়ে তোলা হবে। এমনিতেই, কোচবিহার জেলায় বিভিন্ন ফ্লু বা ভাইরাল অসুখের প্রাদুর্ভাব বেশি, তাই আপাতত এই জেলাকেই চিহ্নিত করা হয়েছে বলে জানা যায়। এই প্রকল্পটিকে একশো দিনের কাজে অন্তর্ভুক্তও করা হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আয়ুশ ক্বাথ তৈরিতে ৪ ভাগ শুকনো তুলসী পাতা, ২ ভাগ শুকনো আদা, ২ ভাগ দারচিনি এবং ১ ভাগ গোলমরিচের প্রয়োজন হয় বলে জানা গেছে। বিভিন্ন দেশে প্রতি কেজি শুকনো তুলসী পাতা ৪০-৫০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছ বলেও জানা গেছে।
দ্য বেঙ্গল পোস্ট
তুলসী গাছের চাষ হবে কোচবিহারে :

Advertisement