“চীনা প্রযুক্তি বাদ দিতে হবে”, এয়ারটেল, ভোডাফোন, আইডিয়া’কে কে নির্দেশ দিতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার

Advertisement

বিশেষ প্রতিবেদন, সুদীপ্তা ঘোষ, ২০ জুন: এক এক করে দেশের মানুষ চীনা দ্রব্য থেকে শুরু করে, চীনা অ্যাপস সব কিছুই বর্জন করার উদ্যোগ নিচ্ছে! চেষ্টা চালানো হচ্ছে, চীনা পণ্যের বদলে নিজের দেশ ভারতেই কাঁচামাল এবং সমস্ত রকম দ্রব্যের যোগান দেওয়ার। এবার সেভাবেই মনে করা হচ্ছে, ভারতে ব্যবসা করা বেসরকারি টেলিকম অপারেটর ভোডাফোন, এয়ারটেল, আইডিয়া’কে চীনা প্রযুক্তি বর্জন করার নির্দেশ দিতে পারে কেন্দ্র। চীনের টেলিকম দ্রব্য প্রস্তুতকারী Huawei এবং ZTE এর সাথে সমস্ত রকম সম্পর্ক এবং চুক্তি বর্জন করার নির্দেশ দেওয়া হতে পারে।

Advertisement

দ্য বেঙ্গল পোস্ট

BSNL ইতিমধ্যেই তার ৪জি টেন্ডারে ZTE কে ব্যান করেছে। মূলত, পূর্ব লাদাখের গালওয়ান সীমান্তে সেনাদের ওপর অতর্কিতে আক্রমণের পরই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। HUAWEI ভোডাফোন, আইডিয়ার সঙ্গে ৬ টি সার্কেলে কাজ করে এবং ZTE ভোডাফোন, আইডিয়ার সঙ্গে কাজ করে পাঁচটি সার্কেলে। HUAWEI এবং ZTE দুজনেই এয়ারটেলের সাথে তিনটি করে সার্কেলে কাজ করছে। ভারত সরকারের শীর্ষস্থানীয় একজন আধিকারিক একটি সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকারে জানান, “আমরা বেসরকারি চিনা পণ্য প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলিকে ভবিষ্যতে আমাদের দেশে পণ্য সরবরাহ করতে সম্পূর্ণরূপে বাধা দিতে চলেছি। তার পরিবর্তে ভারতের নিজস্ব টেলিকম দ্রব্য প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি টেলিকম কোম্পানি অর্থাৎ এয়ারটেল, ভোডাফোনকে সাহায্য করবে।” একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, যদি চীনের টেলিকম সংস্থাগুলি ভারতে ব্যবসা করতে না পারে, তাহলে এই সমস্ত দ্রব্য প্রস্তুতের খরচ ১০ থেকে ১৫ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে। আপাতত, ভারত চীনের কোম্পানিগুলিকে ব্যান করার পরিকল্পনা নিয়েছে। এই কোম্পানীগুলির মধ্যে রয়েছে HUAWEI, ZTE এবং UNISTARCOM। এই কোম্পানিগুলি বেসরকারি টেলিকম সংস্থা ছাড়াও সরকারি টেলিকম অপারেটর BSNL এবং MTNL এর মত কোম্পানির সঙ্গে কাজ করত।