বর্বরোচিত ব্যবহার করা হচ্ছে করোনা আক্রান্তদের সাথে! পশ্চিমবঙ্গ সহ কিছু রাজ্যকে তীব্র ভর্ৎসনা সুপ্রিম কোর্টের

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
ভারতে বাড়ছে সংক্রমণ ও মৃত্যু (প্রতীকী চিত্র) :
Advertisement

বিশেষ প্রতিবেদন, নীলাদ্রি শেখর জানা, ১২ জুন : কোভিড-১৯ তথা করোনায় আক্রান্ত রোগীদের সঙ্গে ব্যবহার ইস্যুতে রাজ্য সরকার ও রাজ্য সরকারি হাসপাতালগুলিকে তীব্র ভর্ৎসনা করল সর্বোচ্চ আদালত। করোনা সংক্রমণ এই মুহূর্তে  দেশে মহামারির আকার নিয়েছে। এমতাবস্থায়, দেশের স্বাস্থ্যপরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের উচিত আরও বেশি করে মানুষের পাশে দাঁড়ানো। বিশেষত যারা করোনার সঙ্গে লড়ছে, তাদের সঙ্গে ব্যবহার ভালো করা উচিত দেশের সরকারি হাসপাতালগুলির। এমনই গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিল শীর্ষ আদালত। আজ (১২ জুন) সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, করোনা আক্রান্ত রোগীদের সঙ্গে পশুদের থেকেও খারাপ ব্যবহার করা হচ্ছে। এমনকী মৃত্যুর পরেও দেহগুলিকে নিয়ে ছেলেখেলা করা হচ্ছে। এদিন সুপ্রিম কোর্টের তিন সদস্যের বেঞ্চ জানিয়ে দেয় আক্রান্তদের সাথে ব্যবহার ভালো করতে হবে রাজ্য সরকারগুলিকে। বিচারপতি এস কে কউল, এম আর শাহ ও অশোক ভূষণের বেঞ্চ একথা জানায়।

Advertisement
দ্য বেঙ্গল পোস্ট
সুপ্রিম কোর্টের পর্যবেক্ষণ :

আদালতের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত ব্যক্তিদের দেহ আবর্জনার স্তুপে পাওয়া যাচ্ছে, যা কখনই কাম্য নয়। পশুদের থেকেও খারাপ ব্যবহার করা হচ্ছে করোনা রোগীদের সাথে। এই ধরণের ব্যবহার বর্বরোচিত এবং অমানবিক। শীর্ষ আদালত এদিন জানায়, পরিবারের লোকেদের সঠিক তথ্য দেওয়া হচ্ছে না। যিনি মারা যাচ্ছেন, তাঁকে পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া না হলেও, অন্তত খবরটুকু দিতে পারে পরিবারকে। সেই প্রয়োজনীয় তথ্যও পাচ্ছেন না পরিবারের লোকেরা। এই ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারের পাশাপাশি তামিলনাড়ু, পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লি ও মহারাষ্ট্রের কাছ থেকে ১৭ই জুনের মধ্যে উত্তর চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। এই বিষয়ে রাজ্য সরকারগুলি ও কেন্দ্র সরকার কি ব্যবস্থা নিতে পারে, তা জানতে চাওয়া হয়েছে। কেন্দ্রের বেঁধে দেওয়া গাইডলাইন পালন করা হচ্ছে কিনা, তা দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রাজ্যের মুখ্যসচিবদের। রাজ্যে পেশেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম কীভাবে চলছে, তার ওপরও রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।