করোনা চিকিৎসায় পশ্চিমে আরো একটি হাসপাতাল তৈরির পরিকল্পনা, নজরে ডেবরা, জেলায় এলেন রাজ্যের স্বাস্থ্য কর্তা

Advertisement

মণিরাজ ঘোষ, মেদিনীপুর, ১০ জুন : পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার করোনা পরিস্থিতি এবং চিকিৎসা পরিকাঠামো খতিয়ে দেখতে, গতকাল (৯ জুন) জেলায় এসেছিলেন, রাজ্যের ওএসডি (অফিসার অন স্পেশাল ডিউটি) ডাঃ গোপালকৃষ্ণ ঢালী। রাজ্যের করোনা চিকিৎসার পরিকাঠামো খতিয়ে দেখার দায়িত্বে রয়েছেন তিনি। গতকাল মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে তিনি যোগ দিলেন। এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ নিমাই চন্দ্র মন্ডল, মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডাঃ পঞ্চানন কুন্ডু, ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের মেদিনীপুর শাখার সম্পাদক ডাঃ কৃপাসিন্ধু গাঁতাইত সহ মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের বিভিন্ন বিভাগের প্রধান এবং জেলার উপ মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকরা।

Advertisement
দ্য বেঙ্গল পোস্ট
রাজ্যের ওএসডি :

এই বৈঠকে, জেলার করোনা পরিস্থিতি এবং করোনা চিকিৎসার সার্বিক পরিকাঠামো সম্পর্কে খোঁজ-খবর নেন এবং পরামর্শ দেন রাজ্যের ওএসডি। জেলার করোনা হাসপাতালগুলির পরিকাঠামো সম্পর্কেও বিশদে খোঁজখবর নেন তিনি। এই মুহূর্তে জেলায়, করোনা লেভেল – ১ (আয়ুশ) এবং লেভেল – ২ (গ্লোকাল) হাসপাতাল রয়েছে। লেভেল – ৪ (শালবনী সুপার স্পেশালিটি) ও তৈরি হচ্ছে। এছাড়াও লেভেল – ৩ হাসপাতালের জন্য ডেবরা হাসপাতালের কথা ভাবা হচ্ছে বলে জানা গেল। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, করোনা চিকিৎসা হয়, লেভেল-৩ ও লেভেল-৪ এ। উপসর্গ থাকা বা সন্দেহভাজনদের রাখা হয়, লেভেল – ১ ও লেভেল – ২ তে। পশ্চিম মেদিনীপুরে এখনো পর্যন্ত লেভেল – ৩ (স্বল্প উপসর্গ যুক্ত আক্রান্তদের চিকিৎসাকেন্দ্র) হাসপাতাল নেই বলেই, আর একটি হাসপাতাল গড়ে তোলার পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলে জানা গেল। যেভাবে, সংক্রমণ বাড়ছে তাতে আরো একটি হাসপাতালের প্রয়োজন আছে বলেও মনে করছেন আধিকারিকরা। উল্লেখ্য যে, পূর্ব মেদিনীপুরের বড়মা হাসপাতাল’টি একইসাথে লেভেল – ৩ ও লেভেল – ৪ হাসপাতালের ভূমিকা পালন করে।‌ প্রথমে ভাবা হয়েছিল, শালবনী হাসপাতালটিও হয়তো লেভেল – ৩ ও ৪ হিসেবেই গড়ে উঠতে চলছে। পরে, পরিষ্কার হয়, এটি শুধুমাত্র লেভেল – ৪ হিসেবেই কাজ করবে।

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
বৈঠক মেডিক্যালে :

করোনা হাসপাতাল ছাড়াও এদিনের বৈঠকে, করোনা পরীক্ষার বিষয়েও আলোচনা হয় বলে জানা গেছে। জেলার তরফে আরো কিছু উন্নতমানের যন্ত্রপাতি চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডাঃ পঞ্চানন কুন্ডু। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ নিমাই চন্দ্র মন্ডল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, “জেলার সার্বিক পরিকাঠামো নিয়ে আলোচনা হয়েছে।”