নবান্নে’র চোদ্দ তলায় করোনার থাবা, কেন্দ্রের পথে হেঁটে রাজ্যেও সরকারি কর্মচারীদের জন্য বিধিনিষেধ

Advertisement

বিশেষ প্রতিবেদক, কলকাতা, ১০ জুন  : নবান্নের চোদ্দ তলায় বসেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যসচিব রাজীব শর্মা’র কার্যালয়ও চোদ্দ তলায়। সেই চোদ্দ তলাতেই গুটি গুটি পায়ে পৌঁছে গেল নোবেল করোনা ভাইরাস! নবান্নের চারজন আমলা বা আধিকারিকের গাড়ির চালক করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে, তিন জন আমলা বসেন চোদ্দ তলাতেই এবং একজন আবার মুখ্যসচিবের দপ্তরেই ! সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আমলাদের ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। ইতিমধ্যে, তিন দফাতে নবান্ন স্যানিটাইজ করাও হয়েছে।

Advertisement
দ্য বেঙ্গল পোস্ট
কঠোর বিধিনিষেধ মেনে হাজির হতে হবে অফিসে :

এদিকে, সারা দেশে যেভাবে সংক্রমণ বাড়ছে (আক্রান্ত প্রায় ২ লক্ষ ৭০ হাজার, গত চব্বিশ ঘণ্টায় প্রায় ১০০০০, মাত্র ১৩ জন কম), তাতেই কেন্দ্র সরকার কিছু বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বাধ্য হয়েছে। বিভিন্ন অফিসে কর্মচারীদের উপস্থিতির বিষয়ে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছ- ১. কনটেইনমেন্ট জোন থেকে আসা যাবেনা। ২. উপসর্গ থাকাদের অফিসে ঢুকতে দেওয়া যাবেনা। ৩. একদিনে ২০ জনের বেশি অফিসে আসার প্রয়োজন নেই। ৪. অফিসে সারাক্ষণ মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

মঙ্গলবার সকালে কেন্দ্রের এই ঘোষণার পরই, রাজ্য সরকারও সন্ধ্যা নাগাদ নির্দেশিকা জারি করল এই বিষয়ে। রাজ্য সরকার এও জানিয়ে দিয়েছে, প্রয়োজনে ৭০ শতাংশের কম কর্মচারী এলেও চলবে। কিন্তু, উপরোক্ত বিধিনিষেধ মেনেই অফিসে আসতে হবে।