রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড রাজ্যের, মাত্র একদিনের ঝোড়ো ‘করোনা’ ব্যাটিংয়ে পূর্ব মেদিনীপুরকে ছাপিয়ে গেল পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রামে আক্রান্ত ৫ জন

Advertisement

বিশেষ প্রতিবেদন, মণিরাজ ঘোষ ও সায়নী দাশগুপ্ত, ৮ জুন : ৩৬৮, ৪২৭, ৪৩৫, ৪৪৯! না কোনো টেস্ট ম্যাচের চার ইনিংসের রান সংখ্যা নয়; পশ্চিমবঙ্গের পরপর চারদিনের (৪-৭ জুন) করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এভাবেই আপাততো বাড়ছে। আনলক শুরু হয়েছে, ভিন রাজ্য থেকে নিজেদের এলাকায় শ্রমিকরা ফিরছেন আর বিষয়টাও মানুষের গা সওয়া হয়ে যাচ্ছে! তাই, আপাততো দু-তিন মাস এভাবে বাড়তে থাকাটাই স্বাভাবিক বলে মেনে নিচ্ছেন সংশ্লিষ্ট সব মহলই। পরিস্থিতি বুঝে রাজ্যেও বাড়ানো হচ্ছে করোনা হাসপাতাল। প্রয়োজনে মানুষকে বাড়িতে থেকেও চিকিৎসা নেওয়ার কথা বলা হচ্ছে। তা সত্বেও, সাবধানতা অবলম্বনই সচেতন মানুষের একমাত্র বর্ম হতে পারে!

Advertisement
দ্য বেঙ্গল পোস্ট
৭ জুন এর বুলেটিন :

এদিকে, মাত্র ২৪ ঘন্টার ঝোড়ো ‘করোনা’ ইনিংসে পূর্ব মেদিনীপুরের সমস্ত রেকর্ড ভেঙে, মোট (টোটাল) করোনা আক্রান্তের সংখ্যাতেও ছাপিয়ে গেল পশ্চিম মেদিনীপুর। শুধুমাত্র গতকালের রিপোর্টেই, পশ্চিম মেদিনীপুরে আক্রান্ত ৮৪ জন এবং পূর্ব মেদিনীপুরে ২ জন। এই নিয়ে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা হল, ১৭৭ জন (চিকিৎসাধীন ১৪৭ জন) এবং পূর্ব মেদিনীপুরের সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪১ জন (চিকিৎসাধীন ৭৩ জন)। অপরদিকে, ঝাড়গ্রাম জেলা মাঝখানে কিছুদিন নিশ্চিন্তে (পড়ুন, করোনা মুক্ত হয়ে) কাটানোর পর আজ একদিনেই ৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন এই জেলায়।‌ প্রতিটি ক্ষেত্রেই উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানা যায়। এই নিয়ে ঝাড়গ্রাম জেলায় সরকারিভাবে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হল ১১ (বেসরকারি ভাবে আরো ৫-৬ জন)। এর মধ্যে পূর্বের ৬ জনই সুস্থ হয়ে যাওয়ার ফলে, চিকিৎসাধীন করোনা আক্রান্ত এই ৫ জনই।