করোনা হাসপাতাল হচ্ছে শালবনী সুপার স্পেশালিটি, তার আগেই বকেয়া বেতনের দাবিতে কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের ঢেউ আছড়ে পড়ল

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
ঘটনাস্থলে পুলিশ :
Advertisement

নিজস্ব প্রতিবেদক, শালবনী, ৬ জুন : গত ২ রা জুন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশক্রমে, পশ্চিম মেদিনীপুরের জেলাশাসক ডঃ রশ্মি কমলের নেতৃত্বে শালবনী সুপার স্পেশালিটি পাতাল পরিদর্শন করে জেলা প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ের একটি দল। ঐ দিনই জানিয়ে দেওয়া হয়, এই হাসপাতালটিকে করোনা হাসপাতাল হিসেবে অধিগ্রহণ করবে রাজ্য সরকার। এরপর, গতকাল (৫ জুন) থেকে এই হাসপাতালে ভর্তি থাকা সাধারণ রোগীদের মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে, ১০ জনকে স্থানান্তরিত করা হয়েছে এবং অবশিষ্ট ২৫-৩০ জনকেও আজ-কালের মধ্যে করা হবে বলে জানা গেছে। কিন্তু, এরই মধ্যে আজ সকাল থেকে হাসপাতালে কর্মরত স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত স্থায়ী ও অস্থায়ী কর্মীদের বিক্ষোভের ঢেউ আছড়ে পড়লো, বর্তমানে হাাপাতালের দায়িত্বে থাকা জিন্দল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে শালবনী থানার পুলিশ।

Advertisement

দ্য বেঙ্গল পোস্ট

    বিক্ষোভ কর্মরতদের :

হাসপাতালে কর্মরত স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত স্থায়ী ও অস্থায়ী (বা, চুক্তিভিত্তিক) কর্মীদের অভিযোগ, “হঠাৎ করেই আমরা জানতে পারি, এটি কোভিড হসপিটালে রূপান্তরিত হবে। তাই, আউটডোর পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়। আজ সকাল থেকে এমার্জেন্সি পরিষেবাও বন্ধ! এদিকে আমাদের প্রায় দু’ মাসের বেতন বাকি। এপ্রিল মাসের বেতন অর্ধেক দেওয়া হয়েছে অনেককে, সকলে তাও পায়নি। মে মাসের বেতন সম্পূর্ণভাবে বাকি। আমরা বারবার জানানোর পর, বলা হয়েছিল একসাথে ৩১ মে’র মধ্যে দিয়ে দেওয়া হবে; কিন্তু তা দেওয়া হয়নি বলেই আমরা বিক্ষোভ দেখাতে বাধ্য হয়েছি। রাজ্য সরকার অধিগ্রহণ করার আগে, আমরা চাই আমাদের বেতন সম্পূর্ণভাবে মিটিয়ে দেওয়া হোক।”

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
অবিলম্বে বকেয়া বেতন মিটিয়ে দেওয়ার দাবি :

তবে, এমার্জেন্সি রোগীদের কথা ভেবেই তাঁরা যে পুরোপুরি কর্মবিরতিতে যাননি, সে কথাও তাঁরা বলেছেন সংবাদমাধ্যমের সামনে। ইতিপূর্বে, মেদিনীপুর শহরের উপকন্ঠে করোনা হাসপাতাল লেভেল-২ তেও একবার স্বাস্থ্যকর্মীরা বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন বকেয়া বেতনের দাবিতে। জেলা স্বাস্থ্য ভবন অবশ্য নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছিল, তাদের তরফ থেকে বেতন মিটিয়ে দেওয়া হয়েছিল; হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অভ্যন্তরীণ কারণেই বিক্ষোভ হয়েছিল। শালবনীতে এদিনের বিক্ষোভে অবশ্য জিন্দাল কর্তৃপক্ষের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি এখনো।

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
বকেয়া বেতনের দাবিতে বিক্ষোভ :