সুস্থ হয়ে এবার ছাড়া পেলেন জেলার ৪ পরিযায়ী শ্রমিক, একইদিনে সুস্থ ৭ জন, চিকিৎসাধীন আছেন মাত্র ৪ জন

দ্য বেঙ্গল পোস্ট

মণিরাজ ঘোষ,  মেদিনীপুর,  ২৯ মে  :  এবার সুস্থ হয়ে ছাড়া পেলেন, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার আরো চার করোনা আক্রান্ত। শুক্রবার বিকেল তিনটে নাগাদ, পূর্ব মেদিনীপুরের বড়মা কোভিড হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন, জেলার আরো চার পরিযায়ী শ্রমিক। ইতিমধ্যে, আজ সকালে করোনা মুক্ত হয়েছেন ঘাটাল মহকুমার দাসপুর – ১ ব্লকের তিন জন পরিযায়ী শ্রমিক (বা, ভিন রাজ্য ফিরে আসা এই জেলার শ্রমজীবী মানুষ)।

 

সবমিলিয়ে, জেলার আজ সাতজন (৭) জন করোনা আক্রান্ত সুস্থ হয়ে ছাড়া পেয়েছেন, বড়মা থেকে। এই ৭ জনই ভিন রাজ্য থেকে ফিরে আসা শ্রমজীবী মানুষ। বিকেলে ছাড়া পাওয়া চারজনের মধ্যে তিনজন কেশপুর ব্লকের বাসিন্দা। গত ১৭ মে মহারাষ্ট্র থেকে ফিরেছিলেন এই তিন যুবক। অপর একজন, মেদিনীপুর সদর ব্লকের যুবক। তিনিও ১৭ মে ফিরেছিলেন মুম্বাই থেকে। মেদিনীপুর সদর ব্লকের বাসিন্দার করোনা ধরা পড়েছিল গত ২০ মে (আমফান তান্ডবের দিন)। অপরদিকে, কেশপুর ব্লকের তিন যুবকের করোনা ধরা পড়েছিল গত ২১ মে (একইদিনে, দিল্লি ফেরত দাসপুরের দুই মহিলা ও এক যুবকেরও করোনা ধরা পড়েছিল, যারা আজ সকালেই ছাড়া পেয়েছেন)। মাত্র সাতদিনের চিকিৎসায় এই সাত শ্রমিক তরুণ-তরুণী’ করোনা মুক্ত হওয়ায় উচ্ছ্বসিত জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক স্বয়ং। মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ গিরিশ চন্দ্র বেরা আজ জানালেন, “বড়মা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অসংখ্যকে ধন্যবাদ জানাই, উন্নত ও যথাযথ চিকিৎসা পরিষেবা প্রদানের মধ্য দিয়ে করোনা আক্রান্তদের দ্রুত সুস্থ করে তোলার জন্য।”

ডাঃ বেরা এও জানালেন, এই মুহূর্তে জেলার আর মাত্র চারজন করোনা আক্রান্ত বড়মা’তে চিকিৎসাধীন আছেন। কেশপুর ব্লকের পাহাড়চকের দিল্লি ফেরত এক পরিযায়ী শ্রমিক (২৭), ঘাটালের কামারগোড়িয়া গ্রামের এক মধ্যবয়স্ক হৃদরোগী (৪৮), দাঁতন-২ নং ব্লকের জাহালদা’র ক্যান্সার আক্রান্ত এক তরুণী গৃহবধূ (৩১) এবং খড়্গপুরের ৩২ ওয়ার্ডের (ছোট আয়মার) এক যুবতী (১৯)।