মেদিনীপুরের ‘গান্ধীবুড়ি’ কে স্মরণ করল মেদিনীপুর ডট ইন

.

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, মেদিনীপুর, ১৯ অক্টোবর: তিনি মেদিনীপুরের ‘গান্ধীবুড়ি’। প্রকৃত নাম মাতঙ্গিনী হাজরা। বীরত্বের জন্য ‘বীরাঙ্গনা’ উপাধিতে ভূষিত হয়েছিলেন। ভারতবর্ষের স্বাধীনতার ইতিহাসে, মাতঙ্গিনী হাজরা এমনই এক নাম যিনি হয়ে রয়েছেন বিপ্লব ও প্রতিবাদের প্রতিভূ হিসেবে। তৎকালীন ব্রিটিশ সরকারের বিরুদ্ধে লড়তে গিয়ে যিনি বন্দুকের সামনেও মাথা নত করেননি। অবিভক্ত মেদিনীপুরের এই অগ্নিকন্যা নড়িয়ে দিয়েছিলেন ব্রিটিশ শাসনব্যবস্থাকে। অত্যন্ত সাদামাটা অথচ তীব্র দেশপ্রেমের স্পৃহায় তিনি হয়ে রয়েছেন চির-অমর। আজ, ১৯ অক্টোবর, দেশজুড়ে পালিত হচ্ছে “গান্ধীবুড়ি” তথা মাতঙ্গিনীর ১৫১ তম জন্মদিবস। মেদিনীপুর শহরেও মহাসমারোহে পালিত হলো দিনটি। মেদিনীপুরের মীরবাজার এবং কলেজ মাঠে তাঁর আবক্ষ মূর্তিতে করা হয় মাল্যদানও। অবিভক্ত মেদিনীপুরের অন্যতম স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা মেদিনীপুর ডট ইন (midnapore.in) অত্যন্ত শ্রদ্ধার সাথে পালন করে দিনটি।

thebengalpost.in
গান্ধীবুড়িকে স্মরণ করল মেদিনীপুর ডট ইন :

.
.

১৮৬৯ সালে তমলুকের কাছে প্রত্যন্ত গ্রাম হোগলাতে জন্মগ্রহণ করেন মাতঙ্গিনী। মাত্র ১৮ বছর বয়সেই স্বামীকে হারান তিনি। কোনো প্রথাগত শিক্ষা না থাকলেও, গভীর দেশপ্রেমের টানে তিনি হয়ে ওঠেন মহান। ভারত ছাড়ো আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা গ্রহণ করে, তমলুক থানা দখলের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। আর সেই আন্দোলনের কারণেই, ১৯৪২ খ্রিস্টাব্দের ২৯ সেপ্টেম্বর তদনীন্তন মেদিনীপুর জেলার তমলুক থানার সামনে ব্রিটিশ (কিন্তু, ভারতীয়!) পুলিশের গুলিতে তিনি শহিদ হয়েছিলেন!

.
.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে