শহীদ সপ্তাহে মাওবাদীরা ফের সক্রিয়, ছত্তিশগড়ে বড়সড় হামলার ছক বানচাল করল বাহিনী, খুন হলেন এক পুলিশকর্মী

Advertisement

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, ছত্তিশগড়, ১ আগস্ট : জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহ জুড়ে (২৮ জুলাই থেকে ৩ আগস্ট) মাওবাদীরা পালন করে শহীদ সপ্তাহ। এই সময় তারা বিভিন্নভাবে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস তথা পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনী বা যৌথবাহিনীর উপর হামলা চালানোর চেষ্টা করে! অতীতেও তা করেছে, আর এই করোনা আবহে’র মধ্যে বর্তমান সময়েও তা করতে উঠেপড়ে লেগেছে। মাঝখানে, কয়েকমাস করোনা আতঙ্কের জন্যই তারা জঙ্গল ছেড়ে বেরোয়নি বা তুলনামূলক ভাবে নিষ্ক্রিয় ছিল বলে, ছত্তিশগড়ের বীজাপুরে কর্তব্যরত এক উচ্চ পদস্থ পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছিলেন। কিন্তু, জুলাইয়ের ২৮ তারিখের পর গোটা ছত্তিশগড় জুড়ে তারা ফের সক্রিয় হয়েছে। ৩০ জুলাই, যৌথবাহিনীর কেড়েমেটা ক্যাম্পে সেন্ট্রি ডিউটিতে থাকা ছত্তিশগড় পুলিশের এক কর্মীকে মাত্র ১৫০ মিটার ব্যবধান থেকে গুলি করে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই ঝাঁঝরা হয়ে যায় ওই পুলিশকর্মী’র খুলি!

Advertisement
thebengalpost.in
মাওবাদীদের গুলিতে নিহত পুলিশকর্মী :

অপরদিকে, গতকাল (৩১ জুলাই), জগদলপুরে পোস্টিং থাকা সিআরপিএফ এর ই-৮০ ব্যাটলিয়নের কর্মীদের উপর এক বড়সড় হামলার ছক আপাতত বানচাল হয়েছে বলে সূত্রের খবর। ৩১ জুলাই রাত্রি ১২ টা নাগাদ কোলিং থেকে চাঁদামেটা পর্যন্ত রাস্তায় এই বাহিনী যখন টহল দিচ্ছিল, তখনই খবর আসে, প্যাটেলপাড়া থেকে পাটনাম যাওয়ার রাস্তায় মাওবাদীরা মাইন বা বোমা বিছিয়ে রেখেছে। তারপরই, যৌথবাহিনীর কর্মীরা সন্তর্পণে গিয়ে ওই এলাকায় অনুসন্ধান চালায়। মাইন বা বোমা নয়, পাওয়া যায় স্পাইক বিছানো ফাঁদ! সিআরপিএফ জওয়ানদের মারফত জানা যায়, এই স্পাইক হল, মাওবাদীদের পাতা এক ধরনের ফাঁদ। যেখানে, মাটির নীচে গর্ত করে লোহার রড বা শিক বিছিয়ে দেওয়া হয়, তার উপরে ত্রিপল পেতে দিয়ে মাটি ও শুকনো পাতা ছড়িয়ে দেওয়া হয়। এবার, জওয়ানরা যখন জঙ্গলপথে এই ফাঁদ বা স্পাইকে পা দেবে, তখনই লোহার রডে ক্ষত-বিক্ষত হয়ে বা আহত হয়ে, তা নিয়েই ব্যস্ত হয়ে পড়বে, আর সেই সুযোগে বাহিনীর উপর মাওবাদীরা গুলি চালিয়ে জওয়ানদের নিহত করার চেষ্টা করবে। এরকম একটি ছক’ই এদিন বানচাল করতে সক্ষম হয়েছে, ই-৮০ ব্যাটেলিয়ন। তবে, তাঁরা আশঙ্কা করছেন, এই সপ্তাহের মধ্যে (শহীদ সপ্তাহের মধ্যে) মাওবাদীরা আরো বড় কোনো হামলার ছক কষতে পারে!

thebengalpost.in
মাওবাদীদের পাতা ফাঁদ :