বিশ্ব এইডস দিবসে আশা ও আশঙ্কার কথা শোনাচ্ছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর

বিজ্ঞাপন

মণিরাজ ঘোষ, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১ ডিসেম্বর: আজ ‘বিশ্ব এইডস দিবস’। বিশ্বজুড়ে, এইডস (AIDS) রোগের আক্রমণ বা এইচ আই ভি (Human Immimmunodeficiency Virus) সংক্রমণ ক্রমবর্ধমান। তবে, এই মারণ রোগ থেকে চির মুক্তি না মিললেও, একে নিয়ন্ত্রণে রাখা বা কয়েক বছর সুস্থ থাকার মতো ওষুধ বেরিয়েছে এখন। এ নিয়েই অর্থাৎ এইডস চিকিৎসার বিষয়ে আশার কথা শোনাল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দফতরও। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ‘বিশ্ব এইডস দিবস’ উপলক্ষ্যে মঙ্গলবার জেলা স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে দু’টি সুসজ্জিত ট্যাবলো বের হয়। আগামী ১২ দিন এই ট্যাবলো ঘুরবে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ নিমাই চন্দ্র মন্ডল, উপ মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক (১) ডাঃ সৌম্যশঙ্কর সারেঙ্গী এই ট্যাবলো দুটির উদ্বোধন করেন। এছাড়াও, উপস্থিত ছিলেন, স্বাস্থ্য দপ্তরের অন্যান্য আধিকারিক ও কর্মীবৃন্দ।

thebengalpost.in
সুসজ্জিত ট্যাবলোর উদ্বোধন :

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের এই ট্যাবলোর মাধ্যমে বার্তা দেওয়া হচ্ছে, “হাতে হাত রেখে অঙ্গীকার, এইচআইভি পরীক্ষা হোক সবার। প্রতিরোধে পাশে থাকার, দায়িত্ব নেব সবাই এবার।” প্রসঙ্গত, জেলায় এই মুহূর্তে, অ্যাক্টিভ এইডস রোগীর সংখ্যা ১২৯১। তাঁরা প্রত্যেকেই এআরটি (ART) থেরাপি নিয়ে সুস্থ আছেন। গত চার বছরের জেলার এইডস সংক্রমণের তথ্য হল এরকম- ২০১৭-১৮: ১৩৩৪ (মৃত্যু- ৭৯), ২০১৮-১৯: ১৪৩২ (মৃত্যু- ১১০), ২০১৯-২০: ১৫০২ (মৃত্যু- ১৩৬) , ২০২০’র এপ্রিল থেকে অক্টোবর: ১৫২২ (মৃত্যু- ১৪৩)। তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় হল, গত ৬ মাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ জন। এদিকে, গত ৬ মাসে ১৪৩ জন এইডস রোগী মারা গেছেন! যদিও, তাঁদের বেশিরভাগ জনই গত ৬ বছর আগে সংক্রমিত হয়েছেন বলে জানা যায়। আশঙ্কার কথা হল, অনেকেই মাঝপথে চিকিৎসার পরিষেবা গ্রহণ বা ওষুধ সেবন করা ছেড়ে দেন। আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হলো, জেলার প্রায় ৮০ শতাংশ আক্রান্তই ঘাটাল মহকুমার। এর অন্যতম কারণ হল, এই মহকুমা থেকে একটা বড় সংখ্যক মানুষ দিল্লি, মুম্বাই, গুজরাট প্রভৃতি রাজ্যে সোনা, জরি সহ বিভিন্ন কাজ করতে যান।

thebengalpost.in
বিশ্ব এইডস দিবসে আশা ও আশঙ্কার কথা শোনাচ্ছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর :

বিজ্ঞাপন

প্রতিটি ব্লকে ব্লকে ঘুরবে এই সুসজ্জিত ট্যাবলো দু’টি। এ প্রসঙ্গেই এইডস চিকিৎসার বিষয়ে উপ মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ সৌম্যশঙ্কর সারেঙ্গী জানালেন, “এইডসের ক্ষেত্রে সর্বাপেক্ষা জরুরি সচেতনতা। এর উপসর্গ এবং প্রতিরোধ বিষয়ে এখন প্রায় সকলেই জানেন, জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের ট্যাবলো থেকে সেই বার্তা আবারও দেওয়া হচ্ছে। তবে, বর্তমানে এআরটি থেরাপি’র মাধ্যমে অনেকেই সুস্থ আছেন। এইডসের ক্ষেত্রে বর্তমানে অত্যন্ত কার্যকরী চিকিৎসা হল, এআরটি থেরাপি (ART- Anti Retroviral Therapy)। সম্পূর্ণ নিরাময় না হলেও, ধারাবাহিকভাবে এই ওষুধ বা চিকিৎসা পরিষেবা গ্রহণ করে ২০-২৫ বছর পর্যন্ত সুস্থ থাকা যায়। ব্লাড সুগার, ব্লাড প্রেসার এর মতো নিয়মিতভাবে এই ওষুধ সেবন করলে, একে নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। সর্বোপরি, এই থেরাপি এখন আমাদের জেলাতেও প্রদান করা হচ্ছে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের ক্লিনিক ছাড়াও ঘাটাল ও দাসপুর থেকেও এআরটি থেরাপি প্রদান করা হয়। এছাড়াও, জেলায় প্রায় ২১ টি সেন্টারে এইচআইভি পরীক্ষার ব্যবস্থা আছে। দ্রুত পরীক্ষা করালে, সংক্রমণও ছড়াবে না, আর দ্রুত চিকিৎসা পরিষেবাও পাওয়া যাবে। তাই, সচেতন থাকুন, দ্রুত পরীক্ষা করান, এই বার্তাই দেওয়া হচ্ছে জেলা স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে।” এদিকে, ভ্রাম্যমাণ দুটি ট্যাবলো থেকে আগামী ১২ দিন ধরে এই বার্তা সহ, ডাঃ সারেঙ্গী রচিত এবং তাঁর নিজেরই গাওয়া এইডস বিষয়ক গান প্রচারিত হবে। ট্যাবলো দু’টিকে মানুষের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলতে, ম্যাজিক শো এরও ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে