শেষ মুহূর্তে জেলা স্বাস্থ্য ভবনের নজিরবিহীন তৎপরতায় জঙ্গলমহলের ‘রক্তদান শিবির’ সফলভাবে অনুষ্ঠিত হল

Advertisement

মণিরাজ ঘোষ, মেদিনীপুর ও ভাদুতলা, ৭ জুলাই : পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী, ‘জঙ্গলমহল উত্তরণ ঐক্যমঞ্চ’ এর উদ্যোগে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য ভবনের নজিরবিহীন তৎপরতায় এবং স্বয়ং জেলা স্বাস্থ্যকর্তার উপস্থিতিতে, জঙ্গলমহলের ভাদুতলায় আজ (৭ জুলাই) সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে, রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত হল। কিন্তু, একেবারে শেষ মুহূর্তে, জেলা স্বাস্থ্য ভবন তৎপরতা না দেখালে, এই রক্তদান শিবির হয়তো অনুষ্ঠিতই হতোনা, বাতিল হয়ে যেত! পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর ভলেন্টিয়ারি ব্লাড ডোনার্স ফোরামের সহযোগিতায়, ডেবরা ব্লাড ব্যাংকের পক্ষ থেকে এই রক্তদান শিবিরে রক্ত গ্রহণ করার কথা ছিল। কিন্তু, হঠাৎ করেই রবিবার রাতে ডেবরা ব্লাড ব্যাংকের এক স্বাস্থ্যকর্মীর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসার পর, বাকি স্বাস্থ্যকর্মীদেরও কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়। গতকাল অর্থাৎ সোমবার, ভলেন্টিয়ারি ব্লাড ডোনার্স ফোরামের পক্ষ থেকে অসীম ধর এই ঘটনার কথা জানতে পেরেই, উদ্যোক্তাদের এই বিষয়ে জানিয়ে দেন। একেবারে শেষ মুহূর্তে, এই হতাশাজনক খবর এলেও, ভেঙে না পড়ে উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য ভবন তথা জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ নিমাই চন্দ্র মন্ডলের সঙ্গে। তিনি, জঙ্গলমহল উত্তরণ ঐক্যমঞ্চের অন্যতম কান্ডারী জগন্নাথ পাত্রকে আশ্বস্ত করে বলেন, রক্তদান শিবির যেভাবেই হোক আয়োজন করার ব্যবস্থা করা হবে। কয়েক মিনিটের মধ্যেই, জেলার ডেপুটি সিএমওএইচ (২) ডাঃ জয়দেব বর্মন জগন্নাথ বাবু’কে ফোন করে বলেন, “খড়্গপুর ব্লাড ব্যাংকের পক্ষ থেকে রক্ত গ্রহণ করা হবে।”

সেইমতো, আজ (৭ জুলাই), অর্থাৎ নির্ধারিত দিনে, নির্ধারিত সময়ে, নির্ধারিত স্থানে সফলভাবে অনুষ্ঠিত হল, সংস্থা’র উদ্যোগে আয়োজিত প্রথম রক্তদান শিবির। প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত এই শিবিরে উপস্থিত থেকে, রক্তদান শিবির পরিচালনা করলেন, অ্যাডিশনাল এম. ও ডাঃ রামানন্দ পাল। তিনি, উদ্যোক্তাদের এবং খড়্গপুর ব্লাড ব্যাংকের স্বাস্থ্যকর্মীদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানালেন।

thebengalpost.in
অ্যাডিশনাল এম.ও ডাঃ রামানন্দ পাল সার্টিফিকেট তুলে দিচ্ছেন :

আজকের এই শিবিরে মোট ৩৫ জন রক্তদান করেছেন। করোনা আতঙ্ককে উপেক্ষা করে জঙ্গলমহলের তরুণ প্রজন্মই মূলত এই শিবিরে রক্তদান করলেন। জেলার অতিরিক্ত এম.ও ডাঃ রামানন্দ পাল ছাড়াও এই শিবিরের উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শালবনী’র বিডিও সঞ্জয় মালাকার, ভলান্টিয়ারি ব্লাড ডোনার্স ফোরামের অসীম ধর। ‘জঙ্গলমহল উত্তরণ ঐক্যমঞ্চ’ ছাড়াও এদিনের এই রক্তদান শিবিরের অন্যতম আয়োজক ছিল, বিদ্যাসাগর ফাউন্ডেশন, টুগেদার ফাউন্ডেশন এবং ভাদুতলা প্রগতি কল্যাণ সমিতি। অন্যতম আয়োজক বিদ্যাসাগর ফাউন্ডেশনের প্রবীর কুমার লায়েক বললেন, “জঙ্গলমহলের এই প্রত্যন্ত এলাকায় আমরা যৌথভাবে এই রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত করতে পারার জন্য ধন্যবাদ জানাই জেলা স্বাস্থ্য ভবন এবং খড়্গপুর ব্লাড ব্যাংককে। সমস্ত রকম স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত হয়েছে।”

thebengalpost.in
বিডিও সঞ্জয় মালাকার রক্তদান শিবিরে :

ব্লাড ডোনেশন ক্যাম্প বা রক্তদান শিবির সফলভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ার পর জেলার ডেপুটি সিএমওএইচ (২) ডাঃ জয়দেব বর্মন বললেন, “রক্তদান শিবির সবসময়ই এক মহান কর্মসূচি। আর, এই পরিস্থিতিতে বা গ্রীষ্মকালীন রক্ত-সংকটের মধ্যে একটা রক্তদান শিবির বাতিল হয়ে যাবে, সেটা আমাদের কাছে অত্যন্ত দুঃখজনক! তাই, জেলা স্বাস্থ্য ভবনের পক্ষ থেকে চেষ্টা করা হয়েছে, যাতে এই শিবির অনুষ্ঠিত হয়। সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে, খড়্গপুর ব্লাড ব্যাংক। উদ্যোক্তাদেরও ধন্যবাদ জানাই।”
thebengalpost.in
সাংবাদিক পলাশ খাঁ রক্ত দিলেন :