জঙ্গলমহলে শুরু হওয়া সেই “লকডাউন পাঠশালা” এবার জেলায় জেলায়

Advertisement

নিজস্ব প্রতিবেদক, আসানশোল, ৮ জুলাই : “বিশ্বে আজ মহামারী, তাই শিক্ষক শিক্ষিকারা বাড়ী বাড়ী” এই আদর্শকে সামনে রেখে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নির্দেশ মেনে, জুন মাসে (৭ জুন) জঙ্গলমহলে শুরু হয়েছিল, ‘লকডাউন পাঠশালা’। প্রকৃতির কোলে, গুটিকয়েক আদিবাসী ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে শালবনীর রাধামোহনপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক-শিক্ষিকারা শুরু করেছিলেন, লকডাউন পাঠশালা। শিক্ষক তন্ময় সিংহ ও অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষিকাদের উদ্যোগে, অলচিকি ও বাংলা ভাষায় নিয়মিত সেখানে শিক্ষাদান সম্পন্ন হচ্ছে। অপরদিকে, পশ্চিম বর্ধমান জেলার হীরাপুর ব্লকের প্রান্তিক আদিবাসী গ্রাম ধেনুয়াতে, অশোক রুদ্রের নেতৃত্বে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তর একত্রিত হয়ে লকডাউন পাঠশালা’র সূচনা করেছে। পূর্ব বর্ধমান জেলায় তপন পোড়েল, আবু বক্কর, অনিমেষ গুপ্ত, সচিন সিংহ ও নদীয়া জেলায় জয়ন্ত সাহা, সান্টু ভদ্র, উত্তর দিনাজপুরে গৌরাঙ্গ চৌহান প্রমুখদের উদ্যোগে এলাকার বিভিন্ন অঞ্চলে শুরু হয়েছে লকডাউন পাঠশালা।

Advertisement
দ্য বেঙ্গল পোস্ট
লকডাউন পাঠশালা
দ্য বেঙ্গল পোস্ট
লকডাউন পাঠশালা

উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়ও এই উদ্যোগ ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে। এছাড়াও, রাজ্যজুড়ে, শিশুদের পুষ্টিকর খাদ্যসামগ্রী দিয়ে, কখনো খেলাধূলার সামগ্রী দিয়ে এই দীর্ঘ লকডাউনে তাদের মানসিক ও বৌদ্ধিক বিকাশের প্রচেষ্টা চলছে। পশ্চিমবঙ্গ তৃনমুল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির রাজ্য সভাপতি অশোক রুদ্র বলেন, “বিপদের সময় পাশে থাকার বার্তা দিয়ে এবং অপত্য-স্নেহে ছাত্র ছাত্রীদের পাশে থেকে প্রকৃত মাস্টারমশাই হিসাবে উত্তরণ ঘটছে বাংলার শিক্ষক কূলের,।”

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
লকডাউন পাঠশালা