শালবনীর লেভেল ফোর করোনা হাসপাতাল আরো উন্নত হচ্ছে, অবিভক্ত মেদিনীপুরে করোনা আক্রান্ত ২০ জন

দ্য বেঙ্গল পোস্ট

মণিরাজ ঘোষ, মেদিনীপুর, ৩০ জুন : শালবনী সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল’টিকে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার একমাত্র লেভেল ফোর করোনা হাসপাতাল করা হয়েছে। গত ১৭ জুন থেকে ৫০ টি শয্যা নিয়ে এখানে করোনা চিকিৎসা শুরুও হয়ে গেছে। এবার এই হাসপাতালটির চিকিৎসা পরিষেবার মান এবং শয্যা সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। মঙ্গলবার জেলার সিএমওএইচ ডাঃ নিমাই চন্দ্র মন্ডল জানিয়েছেন, “জেলা প্রশাসনের নির্দেশ মেনে শালবনীতে আপাতত ১৪৪ টি শয্যা হবে এবং করোনা চিকিৎসার ক্ষেত্রে যাবতীয় উন্নত পরিষেবা দেওয়া হবে। সমস্ত উন্নত মেশিনপত্র পৌঁছে দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে শালবনীতে।”
তবে, জেলার লেভেল – ২ গ্লোকাল হাসপাতালে করোনা পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে তিনি জানিয়েছেন, “আমরা জেলা প্রশাসনের নির্দেশ মেনে কাজ করছি। বিষয়টি জেলা প্রশাসন সঠিকভাবে বলতে পারবে।”
যদিও, জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ১ জুলাই থেকে জেলার লেভেল -২ করোনা হাসপাতাল হিসেবে কাজ করা বন্ধ করছে মেদিনীপুর শহরের উপকণ্ঠে অবস্থিত গ্লোকাল হাসপাতালটি। বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, গত দু-এক মাসে করোনা আক্রান্ত এবং করোনা সন্দেহভাজন মিলিয়ে প্রায় ১৫-২০ জনের মৃত্যু’র কারণেই, এই হাসপাতালের চিকিৎসা পরিষেবা বিষয় অসন্তুষ্ট ছিল জেলা প্রশাসন।

দ্য বেঙ্গল পোস্ট
শালবনী সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের কর্মীবৃন্দ

এদিকে, গত চব্বিশ ঘণ্টায় দুই মেদিনীপুরে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হলেন ২০ জন! মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রকাশিত, রাজ্যের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের করোনা বুলেটিন অনুযায়ী, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ জন এবং পূর্ব মেদিনীপুরে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১২ জন। আক্রান্তদের যথাক্রমে শালবনী করোনা হাসপাতাল এবং বড়মা করোনা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে প্রশাসন সূত্রে। দুই মেদিনীপুরে আজ সুস্থ হয়েছেন ৩ জন। পূর্ব মেদিনীপুরের ২ জন ও পশ্চিম মেদিনীপুরের ১ জন করোনা মুক্ত হয়েছেন। ঝাড়গ্রামে গত ১৫ দিন ধরেই নতুন আক্রান্ত নেই!